corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা মোকাবিলায় চম্পাসারি এলাকায় বুধবার থেকে বন্ধ থাকছে সব বাজার, মার্কেট কমপ্লেক্স, দোকান

করোনা মোকাবিলায় চম্পাসারি এলাকায় বুধবার থেকে বন্ধ থাকছে সব বাজার, মার্কেট কমপ্লেক্স, দোকান

সংক্রমণের গ্রাফে ২ ও ৩ নম্বরে থাকা ওয়ার্ডের বাজারে দিকেও নজর প্রশাসনের

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: মারণ করোনার কামড় বেড়েই চলছে শিলিগুড়িতে। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বাড়ছে উদ্বেগ। সস্ত্রীক এক পুলিশ কর্মী আক্রান্ত হওয়ায় উদ্বেগ বেড়েছে পুলিশ মহলেও। কেননা শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের ডগ স্কোয়াডের ওই কর্মীর কোনও ট্র‍্যাভেল হিস্ট্রি নেই। যা ভাবাচ্ছে স্বাস্থ্য কর্তাদের। সংক্রমণ বাড়ায় মোকাবিলায় প্রস্তুত জেলা প্রশাসন। আজ, মঙ্গলবার ফের জরুরী বৈঠকে বসেন টাস্ক ফোর্সের সদস্যরা। আক্রান্তের গ্রাফে শীর্ষে থাকা ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডকে কনটেইননেন্ট জোন করা হয়েছে। আজই বাঁশের ব্যারিকেড দেওয়া হয়েছে চম্পাসারি বাজার সহ ওয়ার্ডের রাস্তার দু'ধারে।

চম্পাসারি বাজার তো বন্ধ থাকছেই, সেইসঙ্গে এলাকার অন্যান্য মার্কেট, দোকানপাট বন্ধ থাকবে। একমাত্র ওষুধের দোকান খোলা থাকবে। আজ একথা জানান দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক এস পুন্নমবালাম। শুধু রেগুলেটেড মার্কেট বা চম্পাসারি বাজারই নয়, আক্রান্তের গ্রাফে ২ এবং ৩ নম্বরে থাকা ওয়ার্ডগুলিতেও বাজার বন্ধের পথে হাঁটবে জেলা প্রশাসন। আজ জেলাশাসক সেই ইঙ্গিতই দিয়েছেন। সেক্ষেত্রে চাপ বাড়বে শহরে। রেগুলেটেড মার্কেটের পর উত্তরবঙ্গের কয়েকটি জেলার উৎপাদিত ফসল আসে শিলিগুড়ি টাউন স্টেশন বাজারে। যা ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাভুক্ত। সংক্রমণের গ্রাফে ৩ নম্বরে রয়েছে এই ওয়ার্ড। আর টাউন স্টেশন বাজার বন্ধ হলে শহরে সবজির সংকট তৈরী হবে, সাফ জানান ব্যবসায়ীরা।

আবার সংক্রমণের গ্রাফে ২ নম্বরে থাকা ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের শিলিগুড়ি হাট বন্ধ হলে সমস্যা আরও জটিল হবে। কিন্তু যেভাবে করোনা আক্রান্ত বাড়ছে, তা নিয়ন্ত্রণ করতে হলে বাজারের ওপর রাশ টানতেই হবে। জানান এক প্রশাসনিক কর্তা। প্রয়োজনে আরও বাজার, হাট বন্ধ করে দেওয়া হবে৷ তবে সবই সাময়িক। পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে জেলা প্রশাসন। জেলাশাসক জানান, বাজার বন্ধ করা উদ্দেশ্য নয়। তবে কীভাবে ভিড় এড়িয়ে বাজার খোলা যায়, সেই উপায় বের করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। নজর রয়েছে বিধান মার্কেটের ফল ও সবজি বাজারের দিকেও। বৃহস্পতিবার থেকে এই বাজার বসবে কাঞ্চনজঙ্ঘা মেলা মাঠে। আজ চম্পাসারি বাজার এলাকা পরিদর্শনে যান প্রশাসনিক কর্তারা। শীঘ্রই শহরের অন্য বাজারেও পরিদর্শনে যাবেন প্রশাসনিক কর্তারা। তারপরই নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Partha Pratim Sarkar

Published by: Ananya Chakraborty
First published: June 16, 2020, 10:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर