উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

স্বামীর চিকিৎসায় সর্বস্ব খুইয়েছেন, স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড গ্রহণই করল না হাসপাতাল

স্বামীর চিকিৎসায় সর্বস্ব খুইয়েছেন, স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড গ্রহণই করল না হাসপাতাল

স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড গ্রহনই করল না বেসরকারি হাসপাতাল। এমনটাই অভিযোগ আলিপুরদুয়ারের দেবিনগরের ছবি দে’র। স্বামীর চিকিৎসা করাতে গিয়ে সর্বস্ব খুইয়েছেন।

  • Share this:

#আলিপুরদুয়ার: স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড গ্রহনই করল না বেসরকারি হাসপাতাল। এমনটাই অভিযোগ আলিপুরদুয়ারের দেবিনগরের ছবি দে’র। স্বামীর চিকিৎসা করাতে গিয়ে সর্বস্ব খুইয়েছেন। অনটনের জেরে বন্ধ ছেলের পড়াশোনা। দিদিকে বলোতে ফোন করে সাহায্যের আরজি।

বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গিয়ে পথে বসেছে আলিপুরদুয়ারের দেবিনগরের এই পরিবার। একচিলতে টিনের ঘরে এখন অভাবের রোজনামচা। পরিবারের একমাত্র রোজগেরে তাপস দে, পেশায় গাড়িচালক। মাসখানেক আগে হৃদরোগে আক্রান্ত হন।

সামর্থ্য তেমন ছিল না। স্বাস্থ্যসাথীর কার্ডের ভরসাতেই স্বামীকে কোচবিহারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করেছিলেন ছবি দে। কিন্তু সেই কার্ড গ্রহনই করেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, এমনটাই অভিযোগ তাঁর।

চিকিৎসায় খরচ হয়েছে ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা। মাথার উপর ঋণের বোঝা। কাজও বন্ধ। এদিকে এখনও চিকিৎসা চলছে তাপস দের। কীভাবে জোগাড় হবে এত টাকা?

দু’বেলা দুমুঠো খেতে পাওয়া তো দূরে থাক, ছেলের স্কুলে যাতায়াতের খরত জোগাতেও অপারগ পরিবার। স্কুল ফেরত ছেলেমেয়েগুলোর দিকে তাকিয়ে স্বপ্নের জাল বোনে ক্লাস ফোরে পড়া ছেলেটা। বাবা সুস্থ হলে আবার একদিন স্কুলে যাবে ভিও- কিন্তু কার্ড থাকা সত্ত্বেও কেন তা নেওয়া হল না? সদুত্তর দিতে পারেরনি জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকও।

অথৈ জলে পড়েছেন তাপস দের পরিবার। কীভাবে চলবে সংসার? ছেলের পড়াশোনাই বা কীভাবে করাবেন? এখন তাঁদের একমাত্র ভরসা মুখ্যমন্ত্রী। দিদিকে বলোতে ফোন করে সাহায্যের আরজি জানিয়েছেন ছবি দে ৷

First published: September 6, 2019, 8:31 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर