আলিপুরদুয়ারে ২ নতুন মুখ, বিজেপির জন বারলা ও কংগ্রেসের মোহনলাল বসুমাতা

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: চা বাগানে কি এবার পদ্ম? নাকি শক্ত হবে হাত?? উত্তর পেতে এখনও একমাস। পদ্ম প্রার্থী জন বারলা বলছেন, মোদিকে ফের প্রধানমন্ত্রী করতেই ভোটে লড়ছেন। কংগ্রেস প্রার্থী মোহনলাল বসুমাতার জবাব, লড়াই বিজেপির সঙ্গেই। আলিপুরদুয়াের বিজেপি ও কংগ্রেসের নতুন মুখকে চিনে নেওয়া যাক।

    ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে দার্জিলিং আসনটি নিজেদের দখলে রেখেছিল গেরুয়া শিবির। তবে আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রে হেরে গিয়েছিল তারা। এবারে তাই গেরুয়া শিবিরের পাখির চোখ এই চা বলয়। এখানে আদিবাসী ভোটার সংখ্যা বেশি। তাই আদিবাসী সমাজ থেকেই নতুন মুখকে প্রার্থী বেছেছে বিজেপি। একনজরে দেখে নেওয়া যাক, আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জন বারলাকে।

    জন বারলার বয়স ৪৪। নাগরাকাটার লক্ষ্মীপাড়া চা বাগানের বিঘা লাইনে বাড়ি। লক্ষ্মীপাড়া চা বাগানের শ্রমিক জন বারলা বিজেপির ভারতীয় টি ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের চেয়ারম্যান।

    আদিবাসী সমাজে জন বারলার একসময় ভাল প্রভাব ছিল। তবে যেসময় ডুয়ার্সের ১৯৮টি এলাকাকে গোর্খাল্যান্ডে অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছিল মোর্চা,সেসময় তিনি বিমল গুরুঙের সঙ্গে চলে গিয়েছিলেন। তাই অনেকেই মনে করছেন, বারলাকে ডুয়ার্সের আদিবাসী মানুষ ভালচোখে দেখছেন না। এছাড়াও বারলা জলপাইগুড়ির বাসিন্দা হওয়ায় আলিপুরদুয়ারে বহিরাগত। তা নিয়ে দলেও ক্ষোভ আছে। ওদিকে বারলা বলছেন, মোদিকে প্রধানমন্ত্রী করতেই ভোটে লড়ছেন তিনি। তাই তৃণমূলকে ঠেকানোই লক্ষ্য। এর পাশাপাশি আলিপুরদুয়ারে কংগ্রেসের টিকিটে প্রার্থী হয়েছেন নতুন মুখ মোহনলাল বসুমাতা। একনজরে দেখে নেওয়া যাক, আলিপুরদুয়ারের কংগ্রেস প্রার্থীকে।

    মোহনলাল বসুমাতা বিএসসি পাশ। তাঁর বয়স ৪৩ বছর। তিনি পারোকাটা হাইস্কুলের বিজ্ঞানের শিক্ষক। আলিপুরদুয়ার দুই ব্লকের মহাকালগুড়ি গ্রামের বাসিন্দা মোহনলাল।

    আগাগোড়া কংগ্রেসের ঘরের ছেলে মোহনলালের দাবি, বিজেপির মত সর্বভারতীয় দলকে রুখে দিতেই আরেক সর্বভারতীয় দল থেকে প্রার্থী হয়েছেন তিনি। আলিপুরদুয়ার থেকে রাজকুমার কর্মকার।

    First published: