• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • AGITATION IN BURNING GHAT IN MALDA AS RUMOR ABOUT BURNING CORONA DEADBODY SPREAD IN THE AREA DC

করোনায় মৃতদের পোড়ানো হবে এই "গুজব"-এ হুলুস্থুল, বিক্ষোভ মালদহের শ্মশানে

গুজবের জেরে তুমুল বিক্ষোভ পুরাতন মালদহের লোলাবাগ শ্মশান চত্বরে।

গুজবের জেরে তুমুল বিক্ষোভ পুরাতন মালদহের লোলাবাগ শ্মশান চত্বরে।

  • Share this:

#মালদহ: করোনা মৃতদের পোড়ানো হবে এই "গুজব" পুরাতন মালদহের লোলাবাগ শ্মশান ও বৈদ্যুতিক চুল্লি কার্যত বন্ধ করে দিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। শ্মশানের রাস্তায় একাধিক জায়গায় বাঁশের ব্যারিকেড করে রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। এলাকায় গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েন মালদহ পুরসভার চেয়ারম্যান কার্তিক ঘোষ এবং মালদা থানার আই,সি শান্তিনাথ পাঁজা। শেষে করোনা আক্রান্ত পুড়ানো হবে না বলে প্রকাশ্যে প্রতিশ্রূতি দিতে হয় খোদ পুরপ্রধানকে।

গুজবের জেরে তুমুল বিক্ষোভ পুরাতন মালদহের লোলাবাগ শ্মশান চত্বরে। গত ১১ মার্চ ওই শ্মশানের বৈদ্যুতিক চুল্লির উদ্বোধন হয়। কিন্তু, বৈদ্যুতিক লাইনের কিছু কাজ বাকি থাকায় শবদেহ সৎকার এখনও শুরু হয়নি। এরইমধ্যে দিনকয়েক আগে ওই শ্মশানের বাকি কাজ খতিয়ে দেখেন জেলা পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা। সোমবার দুপুরে আচমকাই "গুজব" ছড়িয়ে পড়ে মালদহে করোনা আক্রান্ত মৃতদেহ পোড়ানো হবে এই শ্মশানে। এর জেরেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এলাকার লোকজন। শ্মশানে যাতায়াতের রাস্তায় তিন জায়গায় বাশেঁর ব্যারিকেড তৈরি করে ফেলা হয়। এমনকি শ্মশানের সাফাই কর্মীদের হেনস্থা করে এলাকা ছাড়া করে স্থানীয়দের একাংশ। বেলা বাড়তেই প্রচুর লোকজন জমা হয়ে যান। শ্মশান চত্বর কার্যত অবরোধের চেহারা নেয়। খবর পেয়ে এলাকায় যান পুরসভার চেয়ারম্যান কার্তিক ঘোষ। পরে থানার আই,সি-র নেতৃত্বে বাড়তি পুলিশ বাহিনীও এলাকায় যান।

তবে সাধারন মানুষকে বোঝালেও তাঁরা অবরোধ তোলা বা ব্যারিকেড খুলতে চাননি। শেষে পুরচেয়ারম্যানের কাছে প্রকাশ্যে প্রতিশ্রূতি দাবি করেন এলাকার লোকজন। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুরচেয়ারম্যান সকলের সামনে ঘোষণা করেন,এলাকায় সংক্রামক রোগের কোনও মৃতদেহ পোড়ানো হবে না। পুরপ্রধান এলাকাবাসিকে আরও আশ্বস্ত করেন, সন্দেহজনক কোনো মৃতদেহ এলে এলাকার মানুষ পুরসভা বা পুলিশকে খবর জানাতে পারবে। এরপর পরিস্থিতি শান্ত হয়। যদিও এলাকার লোকজনের হুশিয়ারী শ্মশানে অজানা-অচেনা বা করোনা আক্রান্ত কোনো দেহ সৎকার করতে দেওয়া হবে না।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: