Home /News /north-bengal /
Abhishek Banerjee || পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রাক্কালে নজরে সংগঠন! 'ব্যক্তিগত ক্ষমতা প্রর্দশন নয়', কড়া বার্তা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Abhishek Banerjee || পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রাক্কালে নজরে সংগঠন! 'ব্যক্তিগত ক্ষমতা প্রর্দশন নয়', কড়া বার্তা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Abhishek Banerjee

Abhishek Banerjee

Abhishek Banerjee || তাঁর নির্দেশ, "বুথে বুথে যান। ব্যক্তিগত লোক নয়, দলের লোক প্রয়োজন।"

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি: জলপাইগুড়ি জেলা নিয়ে কড়া বার্তা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ স্পষ্ট জানালেন, "পঞ্চায়েত নির্বাচনে কোনও দাদাগিরি নয়। প্রশাসনিক কাজে ব্যক্তিগত ক্ষমতা প্রর্দশন নয়। পঞ্চায়েত নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে হবে।" তাঁর নির্দেশ, "বুথে বুথে যান। ব্যক্তিগত লোক নয়, দলের লোক প্রয়োজন।"

লক্ষ্য সাংগঠনিক মজবুতি। এবার জেলাভিত্তিক বৈঠক শুরু করল তৃণমূল কংগ্রেস। দলের শীর্ষ নেতৃত্ব বৈঠক শুরু করছেন জেলার সাংগঠনিক দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের সঙ্গে। উত্তরবঙ্গের জেলা দিয়ে শুরু হল বৈঠক। অগস্ট মাসের প্রথম দিনেই দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলা নিয়ে বৈঠক হয়। বৈঠক করেন  অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷

সামনেই রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন। তার পর বছর ঘুরলেই লোকসভা ভোটের দামামা বেজে যাবে। এরই মধ্যে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেফতারে অস্বস্তিতে পড়েছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। প্রায় প্রতিদিন বিজেপি ও বামেরা রাজনৈতিক  আক্রমণ শানাচ্ছে বাংলার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে। পাল্টা রাজনৈতিক অবস্থান বজায় থাকলেও, সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি করে আগামী দিনের দিকে লক্ষ্য রাখছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই এই বৈঠক থেকে কথা বলে একদিকে যেমন দায়িত্ব পূর্ণ নেতাদের সাংগঠনিক শক্তি বুঝে নেওয়া হবে, অন্যদিকে ব্লক স্তরে সংগঠন ঢেলে সাজানোর জন্যেও চলছে আলোচনা। তাই রিপোর্ট কার্ড হাতে নিয়েই এই বৈঠকে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব৷

আরও পড়ুন: পার্থ-পর্বে বিরাট রদবদল, সংগঠনে আমূল পরিবর্তন তৃণমূলের! বাদ বড় বড় নাম

আরও পড়ুন: বিরাট খবর, রাজ্যে আরও ৭ নতুন জেলা! ঘোষণা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

গত লোকসভা নির্বাচনে এই তিন জেলাতেই খারাপ ফল হয়েছে তৃণমূলের। বিধানসভা ভোটে ঘুরে দাঁড়ালেও এই সব জেলার একাধিক আসন হাতছাড়া হয়েছে জোড়া ফুল শিবিরের। বিশেষ করে আলিপুরদুয়ার জেলায়। চা-বলয়ে একেবারে মুখ থুবড়ে পড়েছে তৃণমূল। আর এর পিছনে সাংগঠনিক দুর্বলতা রয়েছে বলেই মনে করছে দল। তাই একেবারে নীচু স্তরে গিয়ে যারা কাজ করবেন সেই ব্লক স্তরীয় নেতাদের আরও দায়িত্বশীল করতে উদ্যোগী তৃণমূল। স্বচ্ছ ভাবমূর্তি, জনসংযোগে দক্ষ, কাজ করার মানসিকতা আছে এমন ব্যক্তিত্বকেই যে সাংগঠনিক দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হবে তা বুঝিয়ে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই এই বৈঠক সাংগঠনিক দিক থেকেও গুরুত্বপূর্ণ। এর আগে এই সব জেলায় সভা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ধূপগুড়িতে গিয়ে দুই জেলাকে নিয়ে সভা করেছেন অভিষেক নিজেও। এবার জেলার নেতাদের কলকাতায় ডেকে রিপোর্ট কার্ড বুঝে নিল দল।

উল্লেখ জলপাইগুড়ি জেলার ৭৮টি  চা বাগানে সমাবেশ করবে তৃণমূল। বৃহত্তর সমাবেশ ১০ সেপ্টেম্বর। যেতে পারেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়।
Published by:Rachana Majumder
First published:

Tags: Abhishek Banerjee

পরবর্তী খবর