Home /News /north-bengal /
Abhishek Banerjee: পঞ্চায়েতে প্রার্থী হওয়ার প্রধান শর্ত মানুষের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা, বুঝিয়ে দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় 

Abhishek Banerjee: পঞ্চায়েতে প্রার্থী হওয়ার প্রধান শর্ত মানুষের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা, বুঝিয়ে দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় 

পঞ্চায়েতে প্রার্থী হওয়ার প্রধান শর্ত মানুষের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা, বুঝিয়ে দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় 

পঞ্চায়েতে প্রার্থী হওয়ার প্রধান শর্ত মানুষের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা, বুঝিয়ে দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় 

আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে দেখা যেতে পারে বহু নতুন মুখ, জল্পনা রাজনৈতিক মহলে। 

  • Share this:

আবীর ঘোষাল, ধূপগুড়ি: পঞ্চায়েতের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে শাসক দল। জেলায় জেলায় বুথস্তরীয় সভা করছেন দলের সুপ্রিমো। পঞ্চায়েতে প্রার্থী কে হবেন তা নিয়েও চলছে তদ্বির। প্রার্থী নিয়ে এবার সতর্ক শাসক দল। আগে পরিষেবা দাও মানুষকে, বার্তা তৃণমূলের।

পুরনো হোক বা নতুন ৷ দল ও কাজে তার পারফরম্যান্স মাপার কাজ শুরু। আর এই বার্তাই ধূপগুড়ির সভা থেকে আরও স্পষ্ট করে দিয়েছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েই দিয়েছেন, প্রার্থী হতে গেলে মানুষের সার্টিফিকেট পেতে হবে। মানুষের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা থাকতে হবে। রাজনৈতিক মহলের মতে তদ্বির করে টিকিট যে পাওয়া যাবে না সেই বার্তাই আসলে দিয়ে দেওয়া হল।

আরও পড়ুন- লোকসভার প্রশ্নোত্তর পর্বে বাংলার এক সাংসদ 'রেকর্ড' গড়লেন, কে সেই ব্যক্তি? কী রেকর্ড?

প্রার্থী হিসাবে গুরুত্ব পাবে পরিষেবা প্রদান মূলক কাজে তার অবদান।জনভিত্তি কতটা? নিক্তিতে তা মেপে নিতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর সেই রিপোর্ট কার্ডের ওপরে ভিত্তি করেই মিলবে সাংগঠনিক দায়িত্ব। আগামী বছর রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন। তার আগে ব্লক স্তরকেই ঢেলে সাজাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর সেখানেই জনপ্রতিনিধিদের থেকে পাওয়া রিপোর্ট এর পাশাপাশি ওই ব্লকের নেতার প্রকৃত জনভিত্তি কতটা, মানুষের সঙ্গে মেশার ক্ষমতা কেমন তা দেখে নেওয়া হচ্ছে। আসলে মানুষের সেই নেতা সম্পর্কে কতটা আস্থা রয়েছে। কতটা সেই নেতা কাজ করতে পারেন।

আরও পড়ুন-ফের মূল্যবৃদ্ধি! ১৮ জুলাই থেকে ব্যাপক বাড়ছে কোন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম, রইল তালিকা

মানুষের প্রতি সেই নেতার ব্যবহার কেমন তার সবটাই গুরুত্ব সহকারে দেখে নিতে চায় শাসক দল। তাই ব্লক স্তরে নতুন কমিটি গড়ে তোলার আগে চলছে একাধিক বার ঝাড়াই-বাছাই। তৃণমূল কংগ্রেস আগেই জানিয়েছিল ২০'মে পর থেকে ধাপে ধাপে ঘোষণা করে দেওয়া হবে ব্লক স্তরের কমিটি ৷ পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে সেই কমিটি যাতে এখন থেকেই জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে কাজ শুরু করে দিতে পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি আছে দলের। এরই পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের বিভিন্ন বিধানসভা এলাকা থেকে রিপোর্ট জমা পড়ছে শাসক দলের অন্দরে। সেই রিপোর্ট দেখে, বাস্তবিক অবস্থা সম্পর্কে সেই নেতা সম্পর্কে আরও তথ্য সংগ্রহ করে তবেই দায়িত্ব দেবে শাসক দল। গোটা বিষয়টি অত্যন্ত স্বচ্ছতার সঙ্গে সেরে ফেলতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। এর আগে একাধিক সময় বিধায়কের সাথে ব্লক সভাপতির গন্ডগোলে বিড়ম্বনা বেড়েছে শাসক দলের অন্দরে।

একাধিক বার একাধিক শীর্ষ নেতাকে বসিয়ে সেই গন্ডগোল থামাতে হয়েছে৷ তাই সাবধানী দল। যাতে এই ধরণের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয়। এর পাশাপাশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে যাতে কোনও ধরণের দূর্নীতি যুক্ত না থাকে। তাই কারও বিরুদ্ধে কোনও দূর্নীতির অভিযোগ থাকলে তাদের দায়িত্ব দেবে না দল। প্রসঙ্গত, এর আগে বর্ধমান, নদিয়া, দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, হুগলির একাধিক জায়গা থেকে নানা অভিযোগ এসেছিল। ব্লক স্তরে কোনও অশান্তি যে দল বরদাস্ত করবে না তা ইতিমধ্যেই বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ করাই যে আসল লক্ষ্য দলের তা এই কমিটির মাধ্যমে বুঝিয়ে দিতে চলেছে তৃণমূল।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

Tags: Abhishek Banerjee, AITMC

পরবর্তী খবর