• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • রাস্তায় পড়ে থাকা কাগজের জাতীয় পতাকা সংগ্রহ করল ওঁরা! শহরজুড়ে চলে বিশেষ অভিযান

রাস্তায় পড়ে থাকা কাগজের জাতীয় পতাকা সংগ্রহ করল ওঁরা! শহরজুড়ে চলে বিশেষ অভিযান

প্রতিবছর স্বাধীনতা দিবসের পরদিন বিভিন্ন পাড়ায়, অলিতে গলিতে, রাস্তায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকে কাগজের জাতীয় পতাকা।

প্রতিবছর স্বাধীনতা দিবসের পরদিন বিভিন্ন পাড়ায়, অলিতে গলিতে, রাস্তায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকে কাগজের জাতীয় পতাকা।

প্রতিবছর স্বাধীনতা দিবসের পরদিন বিভিন্ন পাড়ায়, অলিতে গলিতে, রাস্তায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকে কাগজের জাতীয় পতাকা।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: গতকাল ছিল স্বাধীনতা দিবস। শিলিগুড়ি জুড়েই সরকারী এবং বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালিত হয় দিনটি। জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিনটি পালন করা হয়। কোথাও আবার স্বাধীনতা দিবসের অঙ্গ হিসেবে রক্তদান শিবির, বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি, অসহায়দের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার মতো অনুষ্ঠানও করা হয়। করোনা আবহে ভিড় এড়িয়ে চলে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন।

বিভিন্ন ক্লাব, পাড়ায় পাড়ায়,মোড়ে মোড়ে জাতীয় পতাকায় মুড়িয়ে ফেলা হয়। দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের স্মরণ করা হয়। তবে স্কুল, কলেজ বন্ধ থাকায় এবারে স্কুল, কলেজের পড়ুয়াদের নিয়ে সেভাবে কর্মসূচি হয়নি।

প্রতিবছর তেরঙ্গা ঝাণ্ডায়, সে কাপড়ের হোক কিংবা কাগজের সেজে ওঠে শহর ও শহরতলি। কিন্তু দেখা যায় স্বাধীনতা দিবসের পরদিন বিভিন্ন পাড়ায়, অলিতে গলিতে, রাস্তায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকে কাগজের জাতীয় পতাকা। নোংরা আবর্জনার মাঝে! রাতারাতি জাতীয় পতাকা লুটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায় রাস্তায়! যা চূড়ান্ত অবমাননার।

সাধারন মানুষের চোখের সামনেই পড়ে থাকে কাগজের তেরঙ্গা পতাকা। জাতীয় পতাকাকে এভাবে অসম্মান জানানো যায় কি? তাই রবিবার  শিলিগুড়িতে পথে নামে শিলিগুড়ি ইউনিক সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সদস্যরা। ঘুরে দেখেন শহর। বিভিন্ন জায়গায় এভাবেই মাটিতে ধুলো, বালির সঙ্গে পড়ে থাকতে দেখা যায় জাতীয় পতাকা। সেখান থেকে তুলে এনে ব্যাগে পুড়ে দেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা। তারপর তা নিয়ে আসে তাদের সংগঠনের কার্যালয়ে।

শিলিগুড়ির পুর এলাকার পাশাপাশি গ্রামাঞ্চল এবং শহর লাগোয়া ডাবগ্রাম ও ফুলবাড়িতেও দিনভর চলে ওদের এই কর্মসূচি। প্রচুর কাগজের জাতীয় পতাকা সংগ্রহ করে ওরা। সংগঠনের সদস্য রাকেশ দত্ত জানান, আজ সকাল থেকেই এই বিশেষ অভিযান চলে। সাধারন মানুষকে আরও সচেতন হতে হবে। তাহলেই এই ধরনের ঘটনা আগামীবার থেকে আর হবে না। শহরবাসীকে দায়িত্ব প্রসঙ্গে একটা বার্তা দিতেই ওই অভিযান বলে তিনি জানান। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের এহেন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন শহরবাসী। তাঁদের কথায়, এটা খুবই প্রয়োজন। জাতীয় পতাকার অবমাননা মেনে নেওয়া যায় না। তাই এই কাজ অত্যন্ত ভাল উদ্যোগ।

Partha Sarkar

Published by:Shubhagata Dey
First published: