চোর সন্দেহে নির্মম মার, অমানবিকতার নজির করণদিঘিতে

চোর সন্দেহে নির্মম মার, অমানবিকতার নজির করণদিঘিতে
এই ছবিটিকে ঘিরেই উঠছে প্রশ্ন।

করনদিঘি থানার পুলিশ জানিয়েছে, গোটা ঘটনার ভিডিওটি তাদের হাতে এসেছে। ঘটনার সত্যতা যাচাই করা হচ্ছে।

  • Share this:

#করনদিঘি: করনদিঘিতে চোর সন্দেহ এক কিশোরকে মারধরের অভিযোগ উঠল স্বাধীনতা দিবসের ঠিক মুখে। ঘটনাটি উত্তর দিনাজপুর জেলার করনদিঘি থানার লাহুতারা এলাকায়।

অভিযুক্ত এক ব্যাক্তি টেলিফোনে জানিয়েছেন, এলাকায় প্রতিদিন চুরির ঘটনা ঘটছিল। গতকাল চুরি করতে আসা এক কিশোরকে হাতেনাতে ধরা হয়েছিল। এই ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না হয় সেই ওই কিশোরকে তিনি  শাসন করেছেন তিনি। করনদিঘি থানার পুলিশ জানিয়েছে, গোটা ঘটনার ভিডিওটি তাদের হাতে এসেছে। ঘটনার সত্যতা যাচাই করা হচ্ছে।

জানা গিয়েছে,গতকাল  করনদিঘি থানার লাহুতারা ১ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার দৌলতপুর মোড়ে এক মুদির দোকানে চুরি করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে সমীর আলি নামে এক কিশোর। সেখান থেকে সমীর আলিকে ধরে এনে দোকানের বারান্দায় বেঁধে বেধরক মারধর করে এলাকার তৃনমূল কংগ্রেস নেতা ফজলুর রহমান নামে এক ব্যাক্তি।


ফজলুর রহমানকে এ বিষয়ে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানা, এলাকায় একাধিক চুরির ঘটনায় সমীর যুক্ত ছিল। এলাকায় বৈঠক করে তাকে সতর্ক করে দেবার পরও তার পরিবর্তন না হওয়ায় গতকাল তাকে শাসন করা হয়েছে।

করনদিঘি থানার পুলিশ জানিয়েছেন,ভিডিওটি তাদের হাতে এসেছে। ভিডিও টি সতত্যা যাচাই করা হচ্ছে।তবে তাদের কাছে এ বিষয়ে কোন অভিযোগ জমা পড়ে নি।

এলাকাবাসীদেরই একাংশ আবার বলছেন, লাহুতাড়া গ্রামে কিশোরের উপর যে ধরনের শারীরিক অত্যাচার হয়েছে কোন সভ্য সমাজ এ কাজকে সমর্থন করে না। যারাই এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত পুলিশ তাদের খুঁজে বের করে তার বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহনের দাবি করেছেন জেলা তৃনমূল কংগ্রেস নেতা অরিন্দম সরকার।

তৃনমূল কংগ্রেস জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল জানিয়েছেন,  চুরির অভিযোগে এক কিশোরকে নির্মমভাবে মারা হয়েছে এটা তিনি শুনেথেন।পুলিশের হাতে তুলে না দিয়ে ওইভাবে মারাটা ঠিক কাজ হয়নি বলেই মনে করেন তিনি।

পুলিশকে ঘটনার তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দল অভিযুক্ত ফজলুর রহমানের বিরুদ্ধে তদন্ত করবে।

Published by:Arka Deb
First published: