উত্তরবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাড় হিম করা চেহারা! বিশাল আকৃতির রক পাইথন উদ্ধার শিলিগুড়িতে

হাড় হিম করা চেহারা! বিশাল আকৃতির রক পাইথন উদ্ধার শিলিগুড়িতে
তখন চলছে সাপটিকে বন্দি করার পালা।

এ দিন মহানন্দা নদীর পাশে গাছে পাইথনটিকে জড়িয়ে থাকা অবস্থায় দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। মূহূর্তে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: অ এ অজগর আসছে তেড়ে! শুধু ধেয়েই আসছে না,  রীতিমতো ফণা তুলে! বর্ষায় উদ্ধার হল  সেই দৈত্যাকার রক পাইথন। ঘটনাস্থল শিলিগুড়ির ৪৪ নং ওয়ার্ড।

এ দিন মহানন্দা নদীর পাশে গাছে পাইথনটিকে জড়িয়ে থাকা অবস্থায় দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। মূহূর্তে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। খবর দেওয়া হয় সাপুড়েকে। কিন্তু কিছুতেই বাগে আনা যাচ্ছিল না অজগরটিকে। যথেষ্ট বেগ পেতে হয় সাপুড়েকে কারণ সে ছটফট করছিল। কিছুতেই জাল বন্দি হতে চাইছিল না।

দীর্ঘক্ষন ধরে চলে চেষ্টা। যথেষ্ট ঘাম ঝরে ওই সাপুড়ের। আশপাশের লোকজন তখনও আতঙ্কে!  এই এলাকায় বহু মানুষের বসবাস। যদিও এবার প্রথম নয় এর আগেও এই এলাকায় একটি বাড়িতে অজগরের দেখা মিলেছে। সাধারণত উত্তরবঙ্গের জঙ্গলাকীর্ণ অ়ঞ্চলে দেখা যায় এই প্রজাতির পাইথন। বর্ষায় নদীর জল ফুলেফেঁপে উঠলে সংলগ্ন লোকালয়ে ঢুকে পড়ে সরীসৃপটি! এতেই ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক।

এদিন খবর পেয়েই সাপকে বাগে আনতে ওস্তাদ শহরের এক যুবক রাজু দাস ঘটনাস্থলে পৌঁছন। বেশ কয়েক ঘন্টার চেষ্টায় জাল বন্দি করেন অজগরটিকে।  জালে জড়িয়ে পড়তেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে স্থানীয়রা।

সেখান থেকে উদ্ধারের পর সাপটিকে তুলে দেওয়া হয় বৈকুণ্ঠপুর বন বিভাগের শারুগাড়া রেঞ্জের বন কর্তার হাতে। অজগরের প্রাথমিক চিকিৎসার পর কিছুক্ষণ পর্যবেক্ষনে রেখে ছেড়ে দেওয়া হয় বৈকুণ্ঠপুর জঙ্গলে। অজগরটি লম্বায় ছিল ১০ ফুট! আর তাই ছটফটানিও ছিল বেশী।

শারুগাড়া রেঞ্জের রেঞ্জার প্রদীপ চৌধুরী জানান, "উত্তরবঙ্গের জঙ্গলে এই প্রজাতির পাইথনের দেখা যায়। বর্ষায় লোকালয়ে চলে আসে। এই সময়ে নদী ও জঙ্গল লাগোয়া এলাকার বাসিন্দাদের সাবধানতা অবলম্বন করে চলতে হবে। শুধু জঙ্গল ঘেঁষা এলাকাই নয়, উত্তরের চা বলয়েও এই সময়ে দেখা যায় বিশাল আকৃতির রক পাইথন। ডুয়ার্সের বিভিন্ন চা বাগানের শ্রমিক লাইন, নালা থেকেও উদ্ধার করা হয় এই প্রজাতির পাইথন। আকারে অত্যন্ত লম্বা হয়ে থাকে। ভারী বৃষ্টি হলেই লোকালয়ে আশ্রয় নেয় অজগর!

Published by: Arka Deb
First published: July 21, 2020, 5:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर