মালদহে গণপিটুনিতে নিহত ২২ বছরের যুবক, গ্রেফতার ৩

মালদহে গণপিটুনিতে নিহত ২২ বছরের যুবক, গ্রেফতার ৩
File Photo
  • Share this:

#মালদহ: মালদহে যুবককে গণপিটুনি। তিনদিন পর কলকাতার হাসপাতালে আনার পর মৃত্যু হয় ওই যুবকের। সেই মৃত্যু আটদিন পর মাঠে নামলেন রাজনীতির কারবারিরা। শনিবারই ঝাড়খন্ড থেকে গ্রেফতার করা হয় মূল অভিযুক্ত বাপ্পা ঘোষকে। ২৬ জুন, ২০১৯ -- কার্ড বাইক চুরির অভিযোগে যুবককে গণপিটুনি। মালদহের বৈষ্ণবনগর বাজারে এই গণপিটুনির ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল হয়েছিল। গণপিটুনির তিনদিন পর আহত যুবকের মৃত্যু হয় কলকাতার হাসপাতালে। সেই ঘটনার ৮ দিন পর সেনাউল শেখের মৃত্যু নিয়ে শুরু হল রাজনৈতিক চাপানউতোর।

শনিবার সকালে মালদহের কেতাবপাড়ায় মৃত সেনাউলের বাড়িতে পৌঁছয় তৃণমূলের প্রতিনিধিদল। রাজ্যের তরফে আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি পরিবারের একজনকে চাকরির আশ্বাস দিয়েছেন তৃণমূল নেতা। দুপুর গড়াতেই গণপিটুনিতে মৃত যুবকের বাড়িতে হাজির বাম - কংগ্রেস প্রতিনিধিদল। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে হিংসার ঘটনায় বিজেপিকে নিশানা করেছে দুই দল। গণপিটুনির পর আহত সেনাউলকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরিবর্তে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। সেনাউলকে গণপিটুনির ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রথমে গণপিটুনি সহ একাধিক ধারায় মামলা। পরে খুনের ধারাও যোগ করা হয়। মূল অভিযুক্ত বাপ্পা ঘোষ পলাতক। বাপ্পার সন্ধানে তল্লাশি চলছে। বৈষ্ণবনগর বিজেপির শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত। তবে গণপিটুনিতে অভিযুক্তদের সঙ্গে বিজেপির যোগ আছে কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। ২৩ বছরের সেনাউলের মৃত্যুতে রীতিমতো অনিশ্চয়তার মুখে তাঁর পরিবার। সেনাউলের মতো পরিণতি যেন আরও কারোর না হয়। আপাতত এটাই প্রার্থনা মালদহের বৈষ্ণবনগরের বাসিন্দাদের।

First published: July 7, 2019, 10:02 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर