জলপাইগুড়িতে ১২ ফুটের পাইথনকে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখলেন গ্রামবাসীরা

জলপাইগুড়িতে ১২ ফুটের পাইথনকে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখলেন গ্রামবাসীরা
পাইথন

বেশ কিছুদিন থেকেই গ্রামের মুরগি, হাঁস নিখোঁজ হয়ে যাচ্ছিল। গ্রামের মানুষের ধারণা হয়েছিল, কোনও গ্রামবাসীই মুরগি মেরে খেয়ে নিচ্ছে বা চোর চুরি করে সেগুলো বিক্রি করছে।

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি: দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখা হল ১২ ফুটের লম্বা পাইথনকে। ধান খেতে ঢুকে মুরগি খাওয়ার চেষ্টা করছিল পাইথনটি৷ ঘটনাটি জলপাইগুড়ির দেওমালি এলাকার৷ গ্রামবাসীরা পাইথনটিকে একটি খুঁটির সঙ্গে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখেন৷

বেশ কিছুদিন থেকেই গ্রামের মুরগি, হাঁস নিখোঁজ হয়ে যাচ্ছিল। গ্রামের মানুষের ধারণা হয়েছিল, কোনও গ্রামবাসীই মুরগি মেরে খেয়ে নিচ্ছে বা চোর চুরি করে সেগুলো বিক্রি করছে। তবে কোথায় যাচ্ছিল বা কে চুরি করছিল তার হদিস মিলছিল না এতদিন। শনিবার বিকেলে আচমকাই দেওমালি এলাকায় শেখ সাহাবুল ধান খেতের মধ্যে কুন্ডলী পাকিয়ে বসে থাকতে দেখে এক বিশাল সাইজের পাইথনকে৷ মুরগি খুঁজতে গিয়ে দেখতে পান সাপটিকে৷

প্রথমে ছোট সাপ ভেবে লাঠি দিয়ে মারতে তেড়ে যান৷ কিন্তু সাপটি যখন কামড়াবার জন্য বেরিয়ে আসে মাথা উঁচু করে তখনই চোখ কপালে উঠে যায় জমির মালিক শেখ শাহাবুলের। চিৎকার করে আশেপাশে গ্রামবাসীকে ডাকতে শুরু করেন৷ এরপর সাহস করে গ্রামবাসীরা পাইথনটিকে লাঠির সাহায্যে ধরে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখেন একটি খুঁটির সঙ্গে৷ খবর দেওয়া হয় সোনাখালি বিটের বনকর্মীদের৷ কর্মীরা সাপটিকে দড়ির বাঁধন থেকে মুক্ত করে এবং বস্তাবন্দি করে তুলে দেওয়া হয় বনকর্মীদের হাতে।

First published: 09:00:30 PM Nov 16, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर