হোম /খবর /উত্তর ২৪ পরগণা /
'দিদি দু'মুঠো খেয়ে যান', নমিতার আবদার শুনেই সিদ্ধান্ত বদল মুখ্যমন্ত্রীর!

North 24 Parganas News: 'দিদি দু'মুঠো খেয়ে যান', নমিতার আবদার শুনেই সিদ্ধান্ত বদল মুখ্যমন্ত্রীর! এখনও কাটছে না ঘোর

X
নানারূপে [object Object]

North 24 Parganas News: নমিতার হাতের মাছ ভাত খেলেন মুখ্যমন্ত্রী, দিদিকে কাছে পেয়ে ঘোর কাটছে না সুন্দরবনের।

  • Hyperlocal
  • Last Updated :
  • Share this:

    উত্তর ২৪ পরগনা: মুখ্যমন্ত্রীর জেলা সফরে আসার যেন এক অন্য মুহূর্তের সাক্ষী থাকল উত্তর চব্বিশ পরগনার সুন্দরবনের প্রত্যন্ত এলাকা। টাকি থেকে বেরিয়ে এদিন মিনি সুন্দরবনের উদ্দেশে রওনা দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথমে একটি প্রাথমিক স্কুলে ঢুকে ছাত্রদের ক্লাস নেন। তাদের জামাকাপড়, শীতের পোশাক বিতরণ করেন। তারপরই গ্রামের একটি বাড়িতে ঢুকে পড়েন। বাঙালি বাড়িতে দুপুরে কেউ এলে তাঁকে খেতে বলাই রীতি। নইলে গেরস্তের অকল্যাণ হয় বলে মনে করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী

    এদিন বৈদ্যপাড়ায় নমিতা মণ্ডল নামে এক মহিলার বাড়িতে পৌঁছনোর পর, তিনি আবদার করেন, দিদি এলেন যখন দুমুঠো খেয়ে যান। ট্যাংরা মাছের ঝোল আর ভাত। এমনিতে মুখ্যমন্ত্রী দুপুরে ভাত খান না। কিন্তু নমিতার আবদার তিনি ফেলেননি। উঠোনে বসে স্টিলের থালায় ট্যাংরা মাছের ঝোল দিয়ে দুমুঠো ভাত খান। খাওয়ার পরে তিনি বলেন, একটু ঝাল হয়েছে, কিন্তু টেস্ট খুব ভাল হয়েছে।

    আরও পড়ুন: প্রকাশ্যে আনলেন নথি, মমতার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ শুভেন্দুর! নিশানায় 'সেই' ধর্না

    হাসনাবাদের খাঁ পুকুর গ্রামের বৈদ্যপাড়ায় যেন ছিল অকাল উৎসব। এভাবে হঠাৎ মুখ্যমন্ত্রীকে কাছে পেয়ে যাওয়ায় যেন বিস্ময়ের ঘোর কাটছে না অনেকেরই। এই সব অঞ্চলে অনেকেই খেজুর পাতা দিয়ে মাদুর ইত্যাদি বোনেন। এদিন মুখ্যমন্ত্রীও তাঁদের পাশে বসে খেজুর পাতা বোনার চেষ্টা করেন। তারপর তাঁদের অভাব অভিযোগের কথা শোনেন।

    জেলা সফরের দ্বিতীয় দিনে এসেও জনসংযোগে খামতি রাখলেন না রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

    আরও পড়ুন: মমতার মাস্টারস্ট্রোক, বিজেপি-র অস্বস্তি বাড়িয়ে শুভেন্দুর সাহায্য চাইবেন শোভনদেব!

    বুধবার দুপুরে টাকি লঞ্চ ঘাট থেকে ইছামতি নদীতে লঞ্চে নৌ সফরে বের হন তিনি। সেখান থেকে সোজা চলে যান বসিরহাটের সুন্দরবনের হাসনাবাদ ব্লকের হাসনাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের খাঁপুকুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। সেখানে গিয়ে তিনি সরাসরি ঢুকে পড়েন ক্লাসরুমে এবং স্কুলের পড়ুয়াদের সঙ্গে আলাপচারিতায় মগ্ন হন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে এইভাবে কাছে পেয়ে হকচকিয়ে যান বিদ্যালয়ের পড়ুয়া থেকে শুরু করে শিক্ষক এবং অভিভাবকরা। দিনভর সাধারণ মানুষের মধ্যে থেকে মুখ্যমন্ত্রী পঞ্চায়েত ভোটের আগে জনসংযোগে আরো জোর দিলেন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।---রুদ্র নারায়ণ রায়

    First published:

    Tags: Mamata Banerjee, Sundarban, West Bengal news