গুজরাত নির্বাচনের দিন ঘোষণা নিয়ে কেন্দ্রের তরফে কোনও চাপ নেই, জানাল নির্বাচন কমিশন

গুজরাত নির্বাচনের দিন ঘোষণা নিয়ে কেন্দ্রের তরফে কোনও চাপ নেই, জানাল নির্বাচন কমিশন

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Oct 23, 2017 05:13 PM IST
গুজরাত নির্বাচনের দিন ঘোষণা নিয়ে কেন্দ্রের তরফে কোনও চাপ নেই, জানাল নির্বাচন কমিশন
Achal Kumar Joti, India's Chief Election Commissioner
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Oct 23, 2017 05:13 PM IST

 #নয়াদিল্লি: হিমাচল প্রদেশের বিধানসভা ভোটের দিন ঘোষণা হয়ে গেলেও গুজরাত নির্বাচনের দিনক্ষণ নিয়ে এখনও কিছুই জানায়নি কমিশন ৷ এই ইস্যুতে উত্তাল রাজনৈতিক মহল ৷ বিরোধীদের অভিযোগে বিদ্ধ কমিশন স্পষ্টভাবে এদিন জানাল, গুজরাতে নির্বাচন নিয়ে মোদি সরকারের তরফে কোনও চাপ সৃষ্টি করা হয়নি ৷ দেশের সর্বোচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইলেকশন বডি সম্পূর্ণ স্বাধীনভাবে কাজ করে ৷

মুখ্য নির্বাচনী অফিসার আঁচল কুমার জ্যোতি বিরোধীদের তোলা অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে এদিন বলেন, সমস্ত রাজনৈতিক দলের কাছেই সমান সুযোগ রয়েছে ৷ নির্বাচন কমিশন কোনও দলকেই জনসভা করতে নিষেধ করেনি বা কারোর উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেনি ৷ কমিশন কোনও দলকেই কোনও বিশেষ সুবিধা দিচ্ছে না ৷

উদাহরণ স্বরূপ তিনি বলেন, রবিবারই নির্বাচনী প্রচারে গুজরাতে জনসভা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৷ সোমবার সে রাজ্যে ছিল রাহুল গান্ধির জনসভা ৷

গুজরাতে প্রচারে গিয়ে জনসভা থেকেই নরেন্দ্র মোদির সরকারি প্রকল্পের ঘোষণা থেকেই শুরু হয় বিতর্ক ৷ এই বিরোধীরা অভিযোগ করেন, ভোটারদের প্রভাবিত করতেই দলীয় জনসভা থেকে সরকারি প্রকল্পের এমন ঘোষণা ৷ একইসঙ্গে নির্বাচন কমিশনের নীরবতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন বিরোধীরা ৷

প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী চিদম্বরম কমিশন ও মোদীকে আক্রমণ করে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সভা শেষ হলে ভোটের দিন ধার্য করার অধিকার তাঁকেই দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। গুজরাত সরকার যাবতীয় ছাড় ও প্রকল্পের ঘোষণা করার পরেই ভোটের দিন স্থির করবে কমিশন।’

বিরোধীদের এই আক্রমণের জবাবেই এদিন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক বলেন,

‘নিবার্চন কমিশন কোনও রাজনৈতিক দলের অধীন নয় ৷ বিরোধীরা এমনভাবে প্রশ্ন করছেন যেন আমরা তাদের প্রচারে বাধা দিয়েছি ৷ প্রত্যেক দলই ভোটের আগে বহু প্রতিশ্রুতি দেয় ৷ সব দলের কাছেই প্রচারের সমান সুযোগ রয়েছে ৷’

তবে আঁচল কুমার জ্যোতি এও জানিয়েছেন, গুজরাতে নির্বাচনের দিন ঘোষণা নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সঙ্গে আলোচনা ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে ৷ ভোট চলাকালীন নিরাপত্তা জোরদার করতে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়ন নিয়ে কমিশন আলোচনা চালাচ্ছে ৷ একইসঙ্গে নির্বাচনকে সফল করতে তৈরি করা হচ্ছে কর্মীদের ডেটাবেস ৷ গুজরাতে ভোট চলাকালীন ৫০, ১২৮ টি পোলিং স্টেশনে দায়িত্বে থাকবেন প্রায় ২.৫ লক্ষ সরকারি কর্মচারী ৷ গুজরাত ভোটেই এযাবৎকালের সব থেকে বেশি ভিভিপ্যাটসের ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছে কমিশন ৷

First published: 05:13:53 PM Oct 23, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर