অ-হিন্দু পৌঁছে দেবেন খাবার , অর্ডার বাতিল করেছিল এক ব্যক্তি, উচিত শিক্ষা দিল Zomato

অ-হিন্দু পৌঁছে দেবেন খাবার , অর্ডার বাতিল করেছিল এক ব্যক্তি, উচিত শিক্ষা দিল Zomato
প্রতীকী ছবি ৷

সালটা ২০১৯ ৷ তবে এখনও ধর্ম-বিভেদ রয়ে গিয়েছে মানুষের মনে ৷ যে দেশ সার্বভৌমত্বের কথা বলে ৷ কথা বলে সর্ব ধর্ম সমন্বয়ের ৷ সেখানে এখনও ধর্মই যেন পাশের মানুষটির সঙ্গে একটা বিভাজন রেখা টেনে দিচ্ছে ৷ রাজনীতি হচ্ছে ধর্ম, জাত-পাত নিয়ে ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সালটা ২০১৯ ৷ তবে এখনও ধর্ম-বিভেদ রয়ে গিয়েছে মানুষের মনে ৷ যে দেশ সার্বভৌমত্বের কথা বলে ৷ কথা বলে সর্ব ধর্ম সমন্বয়ের ৷ সেখানে এখনও ধর্মই যেন পাশের মানুষটির সঙ্গে একটা বিভাজন রেখা টেনে দিচ্ছে ৷ রাজনীতি হচ্ছে ধর্ম, জাত-পাত নিয়ে ৷ আর সেই পরিস্থিতি এমন জায়গায় গিয়ে পৌঁছেছে যে ভিন জাতের মানুষের বয়ে আনা খাবারও পর্যন্ত বাতিল করে দিচ্ছে মানুষ ৷ খাবারের কি জাত-পাত হয়?এই প্রশ্নটা উঠতে শুরু করেছে ৷ আর এমনই এক কাণ্ড ঘটেছে এ দেশেই ৷

অনলাইন ফুড ডেলিভারি সংস্থা Zomatoতে খাবার অর্ডার দিয়েছিলেন এক ব্যক্তি ৷ কিন্তু তিনি যখন জানতে পারলেন সেই খাবারটি নিয়ে আসছেন একজন অ–হিন্দু যুবক, তখন সেই অর্ডার বাতিল করে দিলেন। এই ঘটনা দেশে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। কারণ একদিকে তিনি সরাসরি জাতপাতের বৈষম্য প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছেন। আবার অন্যদিকে এই বৈষম্য করে তিনি একজনকে অপমানও করেছেন। কিন্তু Zomato তাঁকে উচিত শিক্ষা দেয়। যা সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ভাইরাল। ‌টুইটারে এই ঘটনা নিয়ে এখন জোর চর্চা চলছে।

বিষয়টা ঠিক কী হয়েছে?‌  Zomato সূত্রে খবর, অমিত শুক্লা নামে এক ব্যক্তি Zomato–তে খাবার অর্ডার করেন। তারপর ট্যুইট করে কিছুক্ষণ পর জানিয়ে দেন, তিনি খাবারের অর্ডারটি বাতিল করছেন। কারণ তিনি জানতে পেরেছেন খাবারটি একজন অ–হিন্দু যুবক নিয়ে আসছেন। পাল্টা Zomato-র পক্ষ থেকে ট্যুইট করে জানিয়ে দেওয়া হয়, তাঁরা খাবার নিয়ে যাওয়া রাইডার পরিবর্তন করতে পারবেন না। এবং অর্ডার বাতিল করার জন্য টাকাও ফেরত দিতে পারবেন না। তখন অমিতবাবু পাল্টা ট্যুইট করে জানান, তাঁকে খাবার নিতে জোর করতে পারে না সংস্থাটি। টাকা ফেরত দিতে হবে না। শুধু অর্ডারটি বাতিল করলেই হবে।

1 এই ট্যুইটের পর অমিত শুক্লাকে মোক্ষম টুইট করে Zomato অ্যাপ–নির্ভর খাদ্য সরবরাহ সংস্থা। সেখানে তাঁরা লেখেন, ‘‌খাবারের কোনও জাত–ধর্ম হয় না। খাবার নিজেই একটা ধর্ম।’‌ এই ট্যুইটের পর মুখে কুলুপ আঁটতে বাধ্য হয় অমিত শুক্লা নামে ক্রেতাটি। গোটা ট্যুইট–পর্ব ভাইরাল হয়ে যেতেই একের পর এক তির্যক মন্তব্য ধেয়ে আসে ওই ক্রেতার কাছে।

22

একজন লেখেন,‘ধন্যবাদ Zomato এমন ধর্মান্ধদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার জন্যে।’ আরও একজন লেখেন, ‘এই ধরনের ক্রেতাদের ব্লক করে দিলে উপযুক্ত শিক্ষা পাবে। খাদ্যরসিকদের কাছে কোনও জাত–ধর্ম হয় না।’ ইতিমধ্যেই Zomato-র এই ট্যুইট ৮০০ রিটুইট হয়েছে। আর দেড় হাজার লাইক ছাড়িয়ে গিয়েছে।

First published: July 31, 2019, 4:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर