'আপনাকে যে বললাম দিল্লিতে থাকতে,' অমিত শাহের সেই ধমক মনে পড়ে যোগী আদিত্যনাথের

'আপনাকে যে বললাম দিল্লিতে থাকতে,' অমিত শাহের সেই ধমক মনে পড়ে যোগী আদিত্যনাথের
যোগী আদিত্যনাথ

১৮ মার্চ ঘোষণা করা হয়,যোগী আদিত্যনাথ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী৷ ৬ মাসের মধ্যে গোরক্ষপুরের সাংসদ পদে ইস্তফা দেন তিনি৷ বিনা বিরোধিতায় উত্তরপ্রদেশ বিধানসভায় নির্বাচিত হলেন যোগী আদিত্যনাথ৷

  • Share this:

#লখনৌ: ২০১৭ সাল৷ বিধানসভা ভোটের শেষ দফা চলছে৷ ১১ মার্চ ভোটগণনা৷ তার ঠিক দু দিন আগে যোগী আদিত্যনাথ একটি ফোন পেলেন তত্‍কালীন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের থেকে৷ জানতে পারলেন, সাংসদের দলের সঙ্গে তাঁর বিদেশ সফর বাতিল করে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর অফিস৷ যোগী আদিত্যনাথ তখন গোরক্ষপুরের সাংসদ৷ এটাই ছিল, প্রথম ইঙ্গিত৷

News18 নেটওয়ার্কের এডিটর ইন চিফ রাহুল যোশীকে খোলামেলা সাক্ষাত্‍কারে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, উত্তরপ্রদেশে বিজেপি-র বিপুল জয়ে পরে কী ভাবে তিনি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হলেন৷ যোগী আদিত্যনাথের কথায়, 'আমি মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার দৌড়েই ছিলাম না৷ উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনের সময় প্রচারে যেখানে আমায় দল পাঠিয়েছে, গিয়েছি৷ ২৫ ফেব্রুয়ারি, বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ফোন করেন৷ বলেন, যোগীজি, সংসদীয় প্রতিনিধি দল পোর্ট লুইস যাচ্ছে, আপনারও যাওয়া উচিত৷ আমি ওঁকে বলি, আমার ওতো ইচ্ছে নেই কারণ ৬ মার্চ পর্যন্ত নির্বাচনের কাজে ব্যস্ত থাকবো৷ সুষমাজি বলেন, আপনাকে যেতেই হবে ৬ মার্চের পরে, আমরা চাই আপনি লিড করবেন৷ আমি বললাম, ৬ মার্চের আগে সময় হবে না৷ তারপর যেতে পারবো৷'

 

৮ মার্চ উত্তরপ্রদেশে ভোট শেষ হয়৷ ১১ মার্চ ভোটগণনা৷ যোগী আদিত্যনাথ জানালেন, '৮ মার্চ, আমি দিল্লি যাই৷ ততদিনে আমার পাসপোর্ট পাঠানো হয়ে গিয়েছে৷ ১০ মার্চ, আমি জানতে পারি, পিএমও আমার পাসপোর্ট ফিরিয়ে দিয়েছে৷ আমাকে যেতে হবে না৷ পরের দিন ভোট গণনা, আমি গোরক্ষপুরের বিমান ধরলাম৷ সুষমাজি আবার আমায় ফোন করলেন৷ জানালেন, পিএমও আমার পাসপোর্ট ফিরিয়ে দিয়েছে৷ ভোটগণনার দিন উত্তরপ্রদেশে থাকাটা আমার জরুরি৷ বিজেপি বিপুল ভোটে জিতল৷ ১৩ মার্চ হোলি ছিল, গোরক্ষপুরেই থাকলাম৷ হোলি মিটতেই দিল্লি গেলাম৷ ১৬ তারিখে সংসদীয় দলের বৈঠকে যোগ দিতে৷ দেখা করলাম অমিত শাহের সঙ্গে৷ নির্বাচন নিয়ে আমাদের মধ্যে সাধারণ কথাবার্তা হল৷ উনি আমাকে বললাম, দিল্লিতে থেকে যান, আপনার সঙ্গে কথা আছে৷'

তখনও যোগী আদিত্যনাথ জানেন না, তিনিই মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন৷ যোগী আদিত্যনাথ বলছেন, 'আমি ভাবলাম, নির্বাচন মিটে গেল, ফল প্রকাশ হয়ে গিয়েছে, আর কীই আলোচনা হতে পারে৷ ১৭ তারিখ, সংসদে আমার একটি প্রশ্নোত্তর পর্ব ছিল৷ ওটা সেরে দুপুরে বিমান ধরলাম গোরক্ষপুরের জন্য৷ ১৬ তারিখ সন্ধেয়, অমিত শাহের থেকে ফোন পেলাম, জিগ্গেস করলেন, আপনি কোথায় আছেন? আমি বললাম, আমি গোরক্ষপুরে৷ অমিত শাহ বললেন, কেন চলে গেলেন, আপনাকে দিল্লিতে থাকতে বললাম৷ আমি বললাম, দিল্লিতে কোনও কাজ নেই, তাই ফিরে এলাম৷ উনি বললেন, দিল্লি আসুন, আমাদের কথা আছে, খুব দরকারি৷'

কোনও ট্রেন বা বিমানের টিকিট না-পেয়ে পরের দিন ভোরেই চার্টার্ড বিমানে দিল্লি রওনা হলেন যোগী আদিত্যনাথ৷ 'অমিত শাহ বললেন, আমি কাল ভোরে আপনাকে চার্টার্ড প্লেন পাঠাচ্ছি৷ আপনি ওতেই দিল্লি আসুন, কাউকে কিছু জানাবেন না এ বিষয়ে৷ বেলা ১১টা নাগাদ দিল্লি পৌঁছলাম৷ অমিত শাহ বললেন, এই বিমানেই লখনৌ চলে যান, বিকেল ৪টেয় আপনাকে নির্বাচিত বিধায়কদের নেতা ঘোষণা করা হবে৷ আপনাকে কাল শপথগ্রহণ করতে হবে৷'

১৮ মার্চ ঘোষণা করা হয়,যোগী আদিত্যনাথ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী৷ ৬ মাসের মধ্যে গোরক্ষপুরের সাংসদ পদে ইস্তফা দেন তিনি৷ বিনা বিরোধিতায় উত্তরপ্রদেশ বিধানসভায় নির্বাচিত হলেন যোগী আদিত্যনাথ৷

First published: 12:28:05 PM Sep 19, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर