• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • মহিলারা নাকি পোলে উঠতে পারবেন না, দাবি বিদ্যুৎ সংস্থার, পরীক্ষার নির্দেশ হাই কোর্টের

মহিলারা নাকি পোলে উঠতে পারবেন না, দাবি বিদ্যুৎ সংস্থার, পরীক্ষার নির্দেশ হাই কোর্টের

তেলেঙ্গানার বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থাগুলি ফিল্ড স্টাফ হিসাবে মহিলাদের নিয়োগ করতে নারাজ

তেলেঙ্গানার বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থাগুলি ফিল্ড স্টাফ হিসাবে মহিলাদের নিয়োগ করতে নারাজ

তেলেঙ্গানার বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থাগুলি ফিল্ড স্টাফ হিসাবে মহিলাদের নিয়োগ করতে নারাজ

  • Share this:

    #হায়দরাবাদ: তেলেঙ্গানার বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থাগুলি ফিল্ড স্টাফ হিসাবে মহিলাদের নিয়োগ করতে নারাজ। তাদের বক্তব্য, ইলেকট্রিক পোলে উঠে কাজ করা মেয়েদের পক্ষে কঠিন। কিন্তু লিঙ্গবৈষম্যের ভিত্তিতে নেওয়া বিদ্যুত সংস্থাগুলির এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছেন না তেলেঙ্গানার দুই কন্যা ভি ভারতী এবং বি শিরিষা। তাঁরা চ্যালেঞ্জ ছোঁড়েন বিদ্যুৎ সংস্থার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে। তাঁদের দাবিতেই হাইকোর্টের বেঞ্চ বসে পরিস্থিতি বিচার করার জন্য। সংস্থাগুলির এই যুক্তি মেনে নেওয়ার পক্ষে নেই তেলেঙ্গানা হাই কোর্টের বিচারকেরাও। মুখ্য বিচারপতি রাঘবেন্দ্র সিং চৌহান এবং বিচারক বি বিজয়সেন রেড্ডি রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিদ্যুৎ সংস্থার এই সিদ্ধান্তে। তাঁদের মতে, আজকের সময়ে, যেখানে মেয়েরা সশস্ত্র বাহিনীতেও কাজ করছেন, সেখানে মেয়েদের কাজের দক্ষতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ সম্পূর্ণ অমূলক।

    বিচারকদের এই বেঞ্চ বিদ্যুৎ আধিকারিকদের নির্দেশ দিয়েছেন, মেহবুবাবাদ এবং সিদ্দিপেট-এর বাসিন্দা ভি ভারতী এবং বি শিরিষা পোলে উঠতে পারবেন কি না, তা পরীক্ষা করে দেখা হোক। হাইকোর্ট সংশ্লিষ্ট সংস্থার আধিকারিকদের ২ সপ্তাহ সময় দিয়েছে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য। আশ্চর্যের বিষয় হল, বিদ্যুৎ সংস্থাগুলির তরফে, শুরুতে এই পদ মহিলাদের জন্য খোলা রাখা হয়েছিল, এমনকী ৩৩% পদ সংরক্ষণও করা হয়েছিল মহিলাদের জন্য। কিন্তু মহিলারা আদৌ পোলে উঠতে পারবেন কিনা, সেই চিন্তা থেকেই পরবর্তীতে সিদ্ধান্তে বদল আনা হয়।

    সিনিয়র কাউন্সেল এস সত্যম রেড্ডি বলেন , বিদ্যুৎ সংস্থার তরফে ২০১৮ তে যে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছিল, তাতে ১৫০০ পদ খালি ছিল এবং ২০১৯-এ ছিল ২৫০০ পদ। ২০১৮ সালে তাদের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী মেয়েদের জন্য ৩৩% পদ সংরক্ষিত ছিল যা ২০১৯-এ বাতিল করা হয়। সব থেকে হতাশাজনক, সংস্থাগুলি মেয়েদের অন্য বিভাগেও পরীক্ষায় বসার অনুমতি দিচ্ছে না।

    ANTARA DEY

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published: