Home /News /national /
Woman beheads husband in Tripura: স্বামীর মাথা কেটে খুন, কাটা মুণ্ডু নিয়ে মন্দিরে রেখে এল স্ত্রী!

Woman beheads husband in Tripura: স্বামীর মাথা কেটে খুন, কাটা মুণ্ডু নিয়ে মন্দিরে রেখে এল স্ত্রী!

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

ঘটনার পরই ৪২ বছর বয়সি অভিযুক্ত মহিলাকে ইন্দিরা কলোনির বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ (Woman beheads husband in Tripura)৷

  • Share this:

    #আগরতলা: স্বামীকে খুন (Murder) করে মুণ্ডচ্ছেদ করল স্ত্রী৷ তার পরে স্বামীর সেই কাটা মাথা প্লাস্টিক ব্যাগে ভরে বাড়ির মন্দিরে রেখে দিল অভিযুক্ত৷ শনিবার ভোররাতে এমনই চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে ত্রিপুরার (Tripura) খোয়াই জেলায়৷

    টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, নিহত ব্যক্তির বয়স ৫০ বছর৷ খোয়াই জেলার পুলিশ সুপার ভানুপদ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, খুনের কারণ এখনও পরিষ্কার নয়৷ যদিও অভিযুক্তের ছেলের দাবি, তাঁর মায়ের বেশ কিছু দিন ধরেই মানসিক কিছু সমস্যা দেখা দিচ্ছিল৷ চিকিৎসার জন্য তাকে স্থানীয় একজন ওঝার কাছেও নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে অভিযুক্ত৷

    আরও পড়ুন: মধুচন্দ্রিমায় মারণ 'সেলফি', হিমাচলের সুইসাইড পয়েন্টে খাদে পড়ে মৃত্যু দমদমের নববধূর

    ঘটনার পরই ৪২ বছর বয়সি অভিযুক্ত মহিলাকে ইন্দিরা কলোনির বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ পেশায় দিন মজুর রবীন্দ্র তাঁতি এবং দুই নাবালক ছেলেকে নিয়ে থাকত ওই মহিলা৷

    আরও পড়ুন: গ্রেফতার আরও দুই, হরিদেবপুরের নৃশংস হত্যার রহস্য ফাঁস

    অভিযুক্তের বড় ছেলে জানিয়েছে, 'আমার মা বরাবর নিরামিষাসী ছিল৷ কিন্তু গতকাল রাতে হঠাৎই মুরগির মাংস খায় মা৷ এর পর আমরা সবাই ঘুমোতে চলে যাই৷ হঠাৎ ঘুম ভেঙে দেখি আমার বাবা মাথা কাটা অবস্থায় পড়ে রয়েছে৷ তখনই মার হাতে রক্তে ভেজা দা দেখতে পাই আমি৷ আমরা চিৎকার করতেই মা ঘর থেকে ছুটে গিয়ে বাবা মাথা মন্দিরের ভিতরে রেখে দেয়৷'

    এর পর থেকেই ওই মহিলা নিজেকে একটি ঘরে বন্দি করে রাখে৷ পরে পুলিশ এসে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে৷

    জেলার পুলিশ সুপার সংবাদসংস্থা পিটিআই-কে জানায়, 'আমরা দেহ উদ্ধার করেছি এবং মহিলাকে গ্রেফতার করেছি৷ তদন্ত শুরু হয়েছে৷' ঘটনাস্থলে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা৷ যদিও মহিলার সত্যিই মানসিক বিকৃতি ঘটেছিল কি না, ডাক্তারি পরীক্ষা ছাড়া সে বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি পুলিশ সুপার৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: Murder, Tripura

    পরবর্তী খবর