• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • EXCLUSIVE: তৃণমূলকে না হারালে বিজেপিকে হারানো সম্ভব নয়, বললেন সীতারাম ইয়েচুরি

EXCLUSIVE: তৃণমূলকে না হারালে বিজেপিকে হারানো সম্ভব নয়, বললেন সীতারাম ইয়েচুরি

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপালকে নিয়ে যা বলছেন তাতে কী সমর্থন করছে বাম দল? প্রশ্নের উত্তরে যা বললেন সীতারাম ইয়েচুরি..

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপালকে নিয়ে যা বলছেন তাতে কী সমর্থন করছে বাম দল? প্রশ্নের উত্তরে যা বললেন সীতারাম ইয়েচুরি..

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপালকে নিয়ে যা বলছেন তাতে কী সমর্থন করছে বাম দল? প্রশ্নের উত্তরে যা বললেন সীতারাম ইয়েচুরি..

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনা আবহের মধ্যেই বিধানসভা ভোটের দামামা ৷ করোনা পরিস্থিতি প্রথম বিধানসভা ভোট পর্ব চলছে বিহারে ৷ ২৮ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া তিন দফার ভোট পর্বে মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফা ৷ একইসঙ্গে বাংলার আসন্ন নির্বাচনও ঝড় তুলেছে জাতীয় রাজনীতির ময়দানে ৷ মোদি শাহের পদ্ম রথের অশ্বমেধ ঘোড়ার মোকাবিলায় বিহারে হোক পশ্চিমবঙ্গ হাত শিবিরের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে লড়ার কৌশলী পন্থা নিয়েছে বাম শিবির ৷ বিহারে নীতীশ-এনডিএ-এর মোকাবিলায় সমানে সমানে টক্কর কংগ্রেস, আরজেডি ও বামেদের মহাজোটের ৷ বাম শিবিরের ভোট কৌশল, দলের স্ট্র্যাটেজি নিয়েই NEWS18-এর প্রশ্নের মুখোমুখি ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ৷ জানালেন রাজ্য রাজনীতিতে কোন কৌশলে নিয়ে ভোট ময়দানে বামেরা ৷

    NEWS18 প্র: প্রথমবার সর্বোচ্চ স্তরে কেন্দ্রীয় কমিটি কংগ্রেসের সঙ্গে বামদলের জোটকে অনুমোদন দিয়েছে ৷ এই ভোট কৌশলের পিছনে কী কোনও বাধ্যবাধকতা কাজ করছে? গতবারের ভরাডুবির পর এবার কোন আলাদা এ্যাজেন্ডা নিয়ে চলছে বামেরা?

    সীতারাম ইয়েচুরি: এই জোটের পিছনে অনেক কারণই রয়েছে ৷ বিশেষত শেষ একবছর ধরে জাতীয় রাজনীতিতে যে পরিস্থিতি চলছে! নীতিহীন একনায়কতন্ত্র ধ্বংস করে ফেলছে দেশের সংবিধান ও সাবিধানিক রীতিনীতি ৷ বিজেপিকে ক্ষমতা থেকে সরাতে না পারলে আরও গভীর সঙ্কটের দিকে এগিয়ে যাবে ভারত ৷ সেই কারণেই এখন বিজেপিকে সরানোই মূল উদ্দেশ্য ৷ সেই লক্ষ্যেই কংগ্রেসের সঙ্গে বামেদের জোট ৷ এই জোটের লক্ষ্য বিজেপির হার ৷ বাংলার ক্ষেত্রে তৃণমূলের কাজের প্রচুর বিরুদ্ধ মত তৈরি হয়েছে ৷ যেকারণে বিরোধীরা ঠিক মতো একজোট হতে না পারায় শেষ লোকসভা নির্বাচনে লাভ লুটেছে বিজেপি ৷ সেই পয়েন্ট থেকেই আমরা সিদ্ধান্ত নিই বিরোধীরা একজোট না হতে পারলে অ্যান্টি বিজেপি, অ্যান্টি তৃণমূল ভোট একদিকে আনা যাবে না ৷ ভোট ভাগ রুখতেই বাংলায় এক হয়ে লড়ার সিদ্ধান্ত ৷ রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতায় যাবে বামদল এবং সিপিআইএম ৷

    NEWS18 প্র: এর অর্থ আপনাদের মূল প্রতিপক্ষ এখন তৃণমূল নয় বিজেপি ৷ তাই তো?

    সীতারাম ইয়েচুরি: প্রাথমিকভাবে অবশ্যই মূল টার্গেট বিজেপি, কিন্তু তৃণমূল না হারালে তো বিজেপিকে হারানো সম্ভব নয় ৷ তাই তৃণমূলও প্রতিপক্ষ ৷ তৃণমূলের ঘাড়ে ভর করেই বাংলায় ঢুকেছে বিজেপি ৷ গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আগেও বিভিন্ন উপলক্ষে দেখা গিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলকে ৷ দলনেত্রী নিজে এনডিএ সরকারের আমলে ক্যাবিনেট মন্ত্রী ছিলেন ৷ সুতরাং বিজেপিকে মুছে ফেলতে হলে তৃণমূলকে হারানো অত্যন্ত জরুরি ৷

    NEWS18 প্র: বাংলায় এই জোটের জন্য কি কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের সবুজ সংকেত রয়েছে?

    সীতারাম ইয়েচুরি: এই প্রশ্নের উত্তরটা তো ওনারাই দিতে পারবেন ৷ তবে রাজ্যের রাজনৈতিক ময়দানে বর্তমান পরিস্থিতিতে অ্যান্টি বিজেপি, অ্যান্টি তৃণমূল কংগ্রেস ভোটকে একত্রিত করেই বিজেপিকে হারানো সম্ভব ৷

    NEWS18 প্র: পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে নির্বাচনে বিজেপির তরফে মুখ হিসেবে রয়েছেন অমিত শাহ যিনি এখানে বারবার প্রচারে আসেন, তৃণমূলের তো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রয়েছেনই ৷ সেখানে চ্যালেঞ্জ জানাতে এই জোটের মুখ কে হবেন?

    সীতারাম ইয়েচুরি: প্রথমত এটা বিধানসভা নির্বাচন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নয় ৷ একজন ব্যক্তিত্বকে মুখপত্র বানিয়ে ভোটের তাস খেলার প্রবণতা ভীষণ ভুল ৷ এটা নির্বাচনের সাংবিধানিক ভিত্তিকেই নষ্ট করে দিচ্ছে ৷ দ্বিতীয়ত, ভোট স্ট্র্যাটেজির অংশ এই বিষয়গুলি নিয়ে আমরা লোকাল স্তরে আলোচনা করব ৷ আমাদের একার নয় এখানে কংগ্রেস দল কী বলবে সেটাও গুরুত্বপূর্ণ ৷

    NEWS18 প্র: বাংলায় তৃণমূল রাজ্যপালের কাজ নিয়ে অনেক অভিযোগ ও প্রশ্ন তুলেছে ৷ তাদের মতে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের ভূমিকা সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক ৷ এ ব্যাপারে আপনার বা দলের কী মত?

    সীতারাম ইয়েচুরি: রাজ্যপালের রাজনৈতিক নেতার মতো সমস্ত ব্যাপারে নাক গলানোর প্রশ্ন একটাই কথা বলতে পারি সিপিএম এর তীব্র বিরোধিতা করছে ৷ রাজ্যপাল একটা সাংবিধানিক পদ, তাকে আজ নোংরা রাজনীতির খেলায় রাজনৈতিক নেতার পদে নামিয়ে আনা হয়েছে, যা একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয় ৷ এ সংবিধানের অবমাননা ৷ শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয় বিভিন্ন রাজ্যেই রাজ্যপালের পদটি রাজনৈতিক নেতার পদে পরিণত হয়েছে ৷

    NEWS18 প্র: তাহলে এ বিষয়ে কি আপনারা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা বলেছেন তাকেই সমর্থন করছেন?

    সীতারাম ইয়েচুরি: দেখুন, একটি নির্বাচিত সরকারকে ফেলে দেওয়ার জন্য কোনও সংবিধান বিরোধী কাজ বা আর্টিক্যাল ৩৫৬-এর অপপ্রয়োগ করা হলে অবশ্যই সবসময় সিপিএম তাঁর বিরোধিতা করবে ৷ সেখানে যেই থাকুক না কেন, এমন অগণতান্ত্রিক পদক্ষেপের সবসময় সম্পূর্ণ বিরোধিতা করে এসেছে বামেরা, ভবিষ্যতেও দরকার পড়লে করবে৷

    NEWS18 প্র: বিহার নির্বাচনের ক্ষেত্রে মহাজোটে বামেদের লক্ষ্য কী? সেখানে বামেদের জন্য কী রয়েছে?

    সীতারাম ইয়েচুরি: মহাজোটের অ্যাজেন্ডা তো আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন ৷ আমাদের লক্ষ্য বিহারে সামাজিক ন্যায় বা সমানাধিকারই নয়, আমাদের লক্ষ্য অর্থনৈতিক ন্যায় বা সমানাধিকার ৷ এই লক্ষ্য মহাজোট হওয়ার আগে থেকেই বামদলের এ্যাজেন্ডা ছিল ৷ আমার বিশ্বাস মহাজোট তা করে দেখাবে ৷ এ প্রসঙ্গে তেজস্বীর কথা না বললেই নয় ৷ মহাজোটের সাফল্যের লক্ষ্যে দিনে গড়ে ১৬ টা করে মিটিং করেন উনি ৷ লালু প্রসাদের যাদবেরও রেকর্ড ভেঙে ফেলেছে ও ৷ আমি ও লালুজি একসঙ্গে হেলিকপ্টারে যেতাম তবে দিনে গড়ে ১২টার বেশি মিটিং করতে পারিনি ৷ তেজস্বী অনেক বেশি জনতার কাছে পৌঁছেছে ৷

    NEWS18 প্র: আসন নিয়ে মহাজোটে বামেদের কি অঙ্ক রয়েছে?

    সীতারাম ইয়েচুরি: দেখুন, তার জন্য একটু অপেক্ষা করতে হবে ৷ এখানে অনেক ফ্যাক্টর কাজ করছে ৷ বিজেপি টাকার শক্তি কাজে লাগিয়ে অনেক কিছুকে পরিচালনা করছে ৷ অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তো প্রচারে ধর্মীয় মেরুকরণেই জোর দিয়েছেন ৷ সবকিছুর শেষে বিহারবাসীর বক্তব্যই প্রধান ৷ তার পর নয়, বাকি কিছু নির্ধারণ হবে ৷ তবে আমরা যে প্রতিক্রিয়া পেয়েছি জনতার, তাতে এটা স্পষ্ট এখানে ধর্মীয় মেরুকরণে মানুষ ভুলছে না ৷

    Published by:Elina Datta
    First published: