দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

EXCLUSIVE: তৃণমূলকে না হারালে বিজেপিকে হারানো সম্ভব নয়, বললেন সীতারাম ইয়েচুরি

EXCLUSIVE: তৃণমূলকে না হারালে বিজেপিকে হারানো সম্ভব নয়, বললেন সীতারাম ইয়েচুরি

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপালকে নিয়ে যা বলছেন তাতে কী সমর্থন করছে বাম দল? প্রশ্নের উত্তরে যা বললেন সীতারাম ইয়েচুরি..

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: করোনা আবহের মধ্যেই বিধানসভা ভোটের দামামা ৷ করোনা পরিস্থিতি প্রথম বিধানসভা ভোট পর্ব চলছে বিহারে ৷ ২৮ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া তিন দফার ভোট পর্বে মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফা ৷ একইসঙ্গে বাংলার আসন্ন নির্বাচনও ঝড় তুলেছে জাতীয় রাজনীতির ময়দানে ৷ মোদি শাহের পদ্ম রথের অশ্বমেধ ঘোড়ার মোকাবিলায় বিহারে হোক পশ্চিমবঙ্গ হাত শিবিরের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে লড়ার কৌশলী পন্থা নিয়েছে বাম শিবির ৷ বিহারে নীতীশ-এনডিএ-এর মোকাবিলায় সমানে সমানে টক্কর কংগ্রেস, আরজেডি ও বামেদের মহাজোটের ৷ বাম শিবিরের ভোট কৌশল, দলের স্ট্র্যাটেজি নিয়েই NEWS18-এর প্রশ্নের মুখোমুখি ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ৷ জানালেন রাজ্য রাজনীতিতে কোন কৌশলে নিয়ে ভোট ময়দানে বামেরা ৷

NEWS18 প্র: প্রথমবার সর্বোচ্চ স্তরে কেন্দ্রীয় কমিটি কংগ্রেসের সঙ্গে বামদলের জোটকে অনুমোদন দিয়েছে ৷ এই ভোট কৌশলের পিছনে কী কোনও বাধ্যবাধকতা কাজ করছে? গতবারের ভরাডুবির পর এবার কোন আলাদা এ্যাজেন্ডা নিয়ে চলছে বামেরা?

সীতারাম ইয়েচুরি: এই জোটের পিছনে অনেক কারণই রয়েছে ৷ বিশেষত শেষ একবছর ধরে জাতীয় রাজনীতিতে যে পরিস্থিতি চলছে! নীতিহীন একনায়কতন্ত্র ধ্বংস করে ফেলছে দেশের সংবিধান ও সাবিধানিক রীতিনীতি ৷ বিজেপিকে ক্ষমতা থেকে সরাতে না পারলে আরও গভীর সঙ্কটের দিকে এগিয়ে যাবে ভারত ৷ সেই কারণেই এখন বিজেপিকে সরানোই মূল উদ্দেশ্য ৷ সেই লক্ষ্যেই কংগ্রেসের সঙ্গে বামেদের জোট ৷ এই জোটের লক্ষ্য বিজেপির হার ৷ বাংলার ক্ষেত্রে তৃণমূলের কাজের প্রচুর বিরুদ্ধ মত তৈরি হয়েছে ৷ যেকারণে বিরোধীরা ঠিক মতো একজোট হতে না পারায় শেষ লোকসভা নির্বাচনে লাভ লুটেছে বিজেপি ৷ সেই পয়েন্ট থেকেই আমরা সিদ্ধান্ত নিই বিরোধীরা একজোট না হতে পারলে অ্যান্টি বিজেপি, অ্যান্টি তৃণমূল ভোট একদিকে আনা যাবে না ৷ ভোট ভাগ রুখতেই বাংলায় এক হয়ে লড়ার সিদ্ধান্ত ৷ রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতায় যাবে বামদল এবং সিপিআইএম ৷

NEWS18 প্র: এর অর্থ আপনাদের মূল প্রতিপক্ষ এখন তৃণমূল নয় বিজেপি ৷ তাই তো?

সীতারাম ইয়েচুরি: প্রাথমিকভাবে অবশ্যই মূল টার্গেট বিজেপি, কিন্তু তৃণমূল না হারালে তো বিজেপিকে হারানো সম্ভব নয় ৷ তাই তৃণমূলও প্রতিপক্ষ ৷ তৃণমূলের ঘাড়ে ভর করেই বাংলায় ঢুকেছে বিজেপি ৷ গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আগেও বিভিন্ন উপলক্ষে দেখা গিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলকে ৷ দলনেত্রী নিজে এনডিএ সরকারের আমলে ক্যাবিনেট মন্ত্রী ছিলেন ৷ সুতরাং বিজেপিকে মুছে ফেলতে হলে তৃণমূলকে হারানো অত্যন্ত জরুরি ৷

NEWS18 প্র: বাংলায় এই জোটের জন্য কি কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের সবুজ সংকেত রয়েছে?

সীতারাম ইয়েচুরি: এই প্রশ্নের উত্তরটা তো ওনারাই দিতে পারবেন ৷ তবে রাজ্যের রাজনৈতিক ময়দানে বর্তমান পরিস্থিতিতে অ্যান্টি বিজেপি, অ্যান্টি তৃণমূল কংগ্রেস ভোটকে একত্রিত করেই বিজেপিকে হারানো সম্ভব ৷

NEWS18 প্র: পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে নির্বাচনে বিজেপির তরফে মুখ হিসেবে রয়েছেন অমিত শাহ যিনি এখানে বারবার প্রচারে আসেন, তৃণমূলের তো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রয়েছেনই ৷ সেখানে চ্যালেঞ্জ জানাতে এই জোটের মুখ কে হবেন?

সীতারাম ইয়েচুরি: প্রথমত এটা বিধানসভা নির্বাচন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নয় ৷ একজন ব্যক্তিত্বকে মুখপত্র বানিয়ে ভোটের তাস খেলার প্রবণতা ভীষণ ভুল ৷ এটা নির্বাচনের সাংবিধানিক ভিত্তিকেই নষ্ট করে দিচ্ছে ৷ দ্বিতীয়ত, ভোট স্ট্র্যাটেজির অংশ এই বিষয়গুলি নিয়ে আমরা লোকাল স্তরে আলোচনা করব ৷ আমাদের একার নয় এখানে কংগ্রেস দল কী বলবে সেটাও গুরুত্বপূর্ণ ৷

NEWS18 প্র: বাংলায় তৃণমূল রাজ্যপালের কাজ নিয়ে অনেক অভিযোগ ও প্রশ্ন তুলেছে ৷ তাদের মতে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের ভূমিকা সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক ৷ এ ব্যাপারে আপনার বা দলের কী মত?

সীতারাম ইয়েচুরি: রাজ্যপালের রাজনৈতিক নেতার মতো সমস্ত ব্যাপারে নাক গলানোর প্রশ্ন একটাই কথা বলতে পারি সিপিএম এর তীব্র বিরোধিতা করছে ৷ রাজ্যপাল একটা সাংবিধানিক পদ, তাকে আজ নোংরা রাজনীতির খেলায় রাজনৈতিক নেতার পদে নামিয়ে আনা হয়েছে, যা একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয় ৷ এ সংবিধানের অবমাননা ৷ শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয় বিভিন্ন রাজ্যেই রাজ্যপালের পদটি রাজনৈতিক নেতার পদে পরিণত হয়েছে ৷

NEWS18 প্র: তাহলে এ বিষয়ে কি আপনারা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা বলেছেন তাকেই সমর্থন করছেন?

সীতারাম ইয়েচুরি: দেখুন, একটি নির্বাচিত সরকারকে ফেলে দেওয়ার জন্য কোনও সংবিধান বিরোধী কাজ বা আর্টিক্যাল ৩৫৬-এর অপপ্রয়োগ করা হলে অবশ্যই সবসময় সিপিএম তাঁর বিরোধিতা করবে ৷ সেখানে যেই থাকুক না কেন, এমন অগণতান্ত্রিক পদক্ষেপের সবসময় সম্পূর্ণ বিরোধিতা করে এসেছে বামেরা, ভবিষ্যতেও দরকার পড়লে করবে৷

NEWS18 প্র: বিহার নির্বাচনের ক্ষেত্রে মহাজোটে বামেদের লক্ষ্য কী? সেখানে বামেদের জন্য কী রয়েছে?

সীতারাম ইয়েচুরি: মহাজোটের অ্যাজেন্ডা তো আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন ৷ আমাদের লক্ষ্য বিহারে সামাজিক ন্যায় বা সমানাধিকারই নয়, আমাদের লক্ষ্য অর্থনৈতিক ন্যায় বা সমানাধিকার ৷ এই লক্ষ্য মহাজোট হওয়ার আগে থেকেই বামদলের এ্যাজেন্ডা ছিল ৷ আমার বিশ্বাস মহাজোট তা করে দেখাবে ৷ এ প্রসঙ্গে তেজস্বীর কথা না বললেই নয় ৷ মহাজোটের সাফল্যের লক্ষ্যে দিনে গড়ে ১৬ টা করে মিটিং করেন উনি ৷ লালু প্রসাদের যাদবেরও রেকর্ড ভেঙে ফেলেছে ও ৷ আমি ও লালুজি একসঙ্গে হেলিকপ্টারে যেতাম তবে দিনে গড়ে ১২টার বেশি মিটিং করতে পারিনি ৷ তেজস্বী অনেক বেশি জনতার কাছে পৌঁছেছে ৷

NEWS18 প্র: আসন নিয়ে মহাজোটে বামেদের কি অঙ্ক রয়েছে?

সীতারাম ইয়েচুরি: দেখুন, তার জন্য একটু অপেক্ষা করতে হবে ৷ এখানে অনেক ফ্যাক্টর কাজ করছে ৷ বিজেপি টাকার শক্তি কাজে লাগিয়ে অনেক কিছুকে পরিচালনা করছে ৷ অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তো প্রচারে ধর্মীয় মেরুকরণেই জোর দিয়েছেন ৷ সবকিছুর শেষে বিহারবাসীর বক্তব্যই প্রধান ৷ তার পর নয়, বাকি কিছু নির্ধারণ হবে ৷ তবে আমরা যে প্রতিক্রিয়া পেয়েছি জনতার, তাতে এটা স্পষ্ট এখানে ধর্মীয় মেরুকরণে মানুষ ভুলছে না ৷

Published by: Elina Datta
First published: November 2, 2020, 7:36 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर