রাজ্যসভায় পেশ করা হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, আলোচনার জন্য বরাদ্দ ৬ ঘণ্টা

রাজ্যসভায় পেশ করা হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, আলোচনার জন্য বরাদ্দ ৬ ঘণ্টা

রাজ্যসভায় বিজেপি এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠ নয়। অঙ্ক বলছে, সংসদের উচ্চকক্ষেও এগিয়ে বিজেপি।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: বুধবার রাজ্যসভায় পেশ করা হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। আলোচনার জন্য বরাদ্দ ৬ ঘণ্টা। রাজ্যসভায় বিজেপি এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠ নয়। অঙ্ক বলছে, সংসদের উচ্চকক্ষেও এগিয়ে বিজেপি।

রাজ্যসভায় মোট আসন ২৪৫। ফাঁকা রয়েছে ৫টি আসন। ফলে বিল পাস করাতে বিজেপির দরকার ১২১। এর মধ্যে রাজ্যসভায় বিজেপির সাংসদ ৮৩। কিন্তু, এনডিএর ভিতরের ও বাইরের বেশ কয়েকটি দল বিজেপির পাশে। সেই হিসেবে বিজেপির হাতে রায়েছে ১২৯। উল্টো দিকে বিরোধীদের দিকে ১০৫ জন সাংসদ।

কিন্তু, এ সবই খাতায় কলমে। খেলা যে কোনও মুহূর্তে ঘুরেও যেতে পারে। মঙ্গলবার যেমন রাহুল গান্ধির ট্যুইটের পরে  সুর বদলায় শিবসেনা। ট্যুইটারে কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি লেখেন,‘নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ভারতীয় সংবিধানের উপর আক্রমণ। যাঁরাই এই বিলকে সমর্থন করছেন তাঁরা দেশের ভিত্তিকে আক্রমণ করছেন এবং ধ্বংস করার চেষ্টা করছেন৷’

কংগ্রেস ও এনসিপির সমর্থনে মহারাষ্ট্রের মসনদে শিবসেনা। সেই দুই শরিক দলই মোদি সরকারের বিলের বিরোধিতায় সরব। তা সত্ত্বেও শিবসেনা লোকসভায় বিলের সমর্থনে ভোট দেয়। কিন্তু, এ দিন রাহুল সুর চড়ানোর পরেই উদ্ধব ঠাকরেরও সুর বদল। এনডিএর শরিক জেডিইউয়ের মধ্যেও শোনা যাচ্ছে দুরকম সুর।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে শ্রীলঙ্কা থেকে আসা তামিল শরণার্থীদের কোনও উল্লেখ নেই। এতে তামিল ভোটব্যাঙ্কের কীরকম প্রতিক্রিয়া হবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন বিজেপির আরেক জোটসঙ্গী এআইএডিএমকে। তাই অঙ্কে বিজেপি এগিয়ে থাকলেও, রসায়ন প্রশ্ন তুলে দিচ্ছে। কারণ, রাজ্যসভায় এআিএডিএমকের ১১ জন সাংসদ জেডিইউয়ের ৬ জন

এবং শিবসেনার তিনজন

এই তিন দল বেঁকে বসলেই কিন্তু রাজ্যসভায় খেলা ঘুরে যেতে পারে।

First published: December 11, 2019, 9:57 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर