কেন আইঙ্গার ব্রাক্ষণ হওয়া সত্ত্বেও সমাধিস্থ করা হল জয়ললিতাকে ?

কিন্তু সবার মনে এখন একটাই প্রশ্ন ৷ কেন সমাধিস্থ করা হল আম্মা কে ?

কিন্তু সবার মনে এখন একটাই প্রশ্ন ৷ কেন সমাধিস্থ করা হল আম্মা কে ?

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #চেন্নাই: আড়াই মাসের লড়াই শেষ হল সোমবার রাতে।  প্রয়াত তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতা। বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। ২২ সেপ্টেম্বর চেন্নাইয়ের হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। এতোদিন ধরে যে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই চলছিল তাঁর, তাতে হার মানলেন জয় আম্মা। সোমবার রাত সাড়ে এগোরটা নাগাদ প্রয়াত হলেন জয়ললিতা। সোয়া বারোটায় তার মৃত্যু সংবাদ জানানো হয়। মঙ্গলবার MGR মেমোরিয়ালে সমাধিস্থ করা হল আম্মা-কে ৷ চেন্নাইয়ের মারিনা বিচে গান স্যালুটে অন্তিম বিদায় তামিলনাড়ুর প্রিয় ‘আম্মা’কে। প্রিয় নেত্রীকে শেষ দেখা দেখতে উপচে পড়ে মানুষের ভিড়। এর আগে চেন্নাইয়ের রাজাজি হলে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয় ৷

    কিন্তু সবার মনে এখন একটাই প্রশ্ন ৷ কেন সমাধিস্থ করা হল আম্মা কে ? জন্মসূত্রে দ্রাবিড় আইঙ্গার ব্রাক্ষণ জয়ললিতা ৷ তবে কেন হিন্দু মতে দাহ করে শেষকৃত্য না করে কবর দেওয়া হল তাঁকে ? চেন্নাইয়ের মারিনা বিচে, এমজিআরের পাশেই চিরঘুমে আম্মা। শেষশ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং অন্য বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

    জয়ললিতা মানুষের কাছে সমস্ত জাতি-ধর্মের উর্ধ্বে ছিলেন ৷ দ্রাবিড় আন্দোলনের অন্যতম নেত্রী ছিলেন তিনি ৷ এই আন্দোলনের নেতাদের দেহ জ্বালিয়ে দেওয়ার রীতি নেই ৷ জয়ললিতা নিজে ব্রাক্ষণ পরিবারে জন্মালেও তার দল ব্রাক্ষণ সমাজের রীতি ও নিয়মে বিশ্বাস করেন না ৷ দ্রাবিড়ীয় রীতিতে সমাজের মহান ব্যক্তি হিসেবে সমাধিস্থ করা হল আম্মাকে। তাই আন্না দুরাই ও এমজিআর-এর মতো তাকেও সমাধিস্থ করা হয় ৷ মনে করা হয় দ্রাবিড় নেতা বা নেত্রীর মৃত্যু হয় না কখনও ৷ ওই কবরেই তারা সব সময় রয়েছেন ৷

    First published: