‘মোদির জনসভার কারণেই কি রাত ১০টা পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য অপেক্ষা কমিশনের?’ প্রশ্ন ইয়েচুরির– News18 Bengali

‘মোদির জনসভার কারণেই কি রাত ১০টা পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য অপেক্ষা কমিশনের?’ প্রশ্ন ইয়েচুরির

News18 Bangla
Updated:May 15, 2019 09:30 PM IST
‘মোদির জনসভার কারণেই কি রাত ১০টা পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য অপেক্ষা কমিশনের?’ প্রশ্ন ইয়েচুরির
News18 Bangla
Updated:May 15, 2019 09:30 PM IST

#কলকাতা: অন্তিম পর্বের আগে রাজ্যে এখনও বাকি মোদির প্রচার ৷ ‘শেষ পর্বে প্রধানমন্ত্রী যাতে নিজের জনসভাগুলি নির্বিঘ্নে করতে পারে তার জন্যই কি রাত ১০টা অবধি অপেক্ষা করে তারপর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা?’ এমনই বিস্ফোরক প্রশ্ন তুললেন সীতারাম ইয়েচুরি ৷ নির্বাচন কমিশন রাজ্যে নির্বাচনে প্রচারের সময়সীমা কমানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করার পর প্রশ্ন বাম নেতার ৷

সপ্তম দফা ও লোকসভা নির্বাচনের অন্তিম পর্বের আগেই নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নির্বাচন কমিশনের ৷ বাংলায় কমিয়ে দেওয়া হল রাজনৈতিক দলের প্রচারের সময়সীমা ৷ আগামিকাল রাত ১০ টায় প্রচার পর্ব শেষের নির্দেশ নির্বাচন কমিশনের ৷ গণতন্ত্রের ইতিহাসে এই প্রথম এমন সিদ্ধান্ত ৷ অবাধ, নির্বিঘ্ন ভোটের জন্যই এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন উপ-নির্বাচন কমিশনার চন্দ্রভূষণ কুমার ৷

আগামিকাল রাত ১০ টার পর সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রচারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিশন ৷ এরপরই সমালোচনায় সরব হন বিরোধীরা ৷ ট্যুইট করে বাম নেতা সীতারাম ইয়েচুরির প্রশ্ন, ‘যদি ভোটের ৭২ ঘণ্টা আগে থেকেই নিষেধাজ্ঞা জারি করার উদ্দেশ্য থাকে, তাহলে কাল রাত ১০টা পর্যন্ত অপেক্ষা কেন? শুধু মাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যাতে রাজ্যে নিজের প্রচার কর্মসূচি সম্পন্ন করতে পারেন সেইজন্য?’

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্য ঘটেছে হিংসাত্মক ঘটনা ৷  অমিত শাহের রোড শো-কে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে কলেজ স্ট্রিট চত্বর ৷ ভাঙচুর চালানো হয় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ও বিদ্যাসাগর কলেজে ৷ ভেঙে দেওয়া হয় মণীষী বিদ্যাসাগরের মূর্তি ৷ এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই রাজনৈতিক দলের প্রচারে কাঁটছাঁটের নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত কমিশনের ৷ ১৯ মে রাজ্য সপ্তম দফা ভোট ৷

First published: 09:24:15 PM May 15, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर