corona virus btn
corona virus btn
Loading

মেডিক্যাল বিল নিয়ে বিতর্ক, এই বিল আইনে পরিণত কী কী হবে জেনে নিন

মেডিক্যাল বিল নিয়ে বিতর্ক, এই বিল আইনে পরিণত কী কী হবে জেনে নিন

জাতীয় মেডিক্যাল কমিশন বিল। সোমবার এই বিলটি সংখ্যার জোরে লোকসভায় পাস করায় মোদি সরকার। এই বিল ঘিরেও তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ফের মোদি সরকারের বিল নিয়ে বিতর্ক। এবার বিতর্ক মেডিক্যাল বিল নিয়ে। যার প্রতিবাদে সরব চিকিৎসকদের একটা বড় অংশ।

জাতীয় মেডিক্যাল কমিশন বিল। সোমবার এই বিলটি সংখ্যার জোরে লোকসভায় পাস করায় মোদি সরকার। এই বিল ঘিরেও তৈরি হয়েছে বিতর্ক। বিল পাসের প্রতিবাদে দেশ জুড়ে কর্মবিরতিতে চিকিৎসকরা। কী আছে এই বিলে?

বিলে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, মেডিক্যাল কলেজে ভরতি প্রক্রিয়া থেকে শুরু করে মেডিক্যাল শিক্ষার মানোন্নয়নের ক্ষেত্রে নিয়ামক সংস্থা মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া তুলে দেওয়া হবে। তার জায়গা নেবে জাতীয় মেডিক্যাল কমিশন।

কেন্দ্রীয় সরকারের যে কোনও পরামর্শ বিনা প্রশ্নে মানতে বাধ্য থাকবে এই জাতীয় মেডিক্যাল কমিশন। মোদি সরকারের দাবি, চিকিৎসাকে স্বার্থাণ্বেষী মানুষের হাত থেকে মুক্ত করতে এই বিল একটা বড় সংস্কার। যা একেবারেই মানতে নারাজ বিরোধীরা। তাদের দাবি, সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বেশ কিছু সুপারিশ উপেক্ষা করে এমন একটি বিল পাস করানো হয়েছে যার মাধ্যমে চিকিৎসা ক্ষেত্রেরও রাশ নিজেদের হাতে রাখতে চাইছে মোদি সরকার।

মোদি সরকারের দাবি, তারা গ্রামের প্রান্তিক মানুষের কাছে চিকিৎসা পরিষেবা পৌঁছে দিতে চায়। তাই বিলে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, সাড়ে তিন লক্ষ জনস্বাস্থ্য কর্মীকে অ্যালোপ্যাথি ওষুধ দেওয়ার অধিকার দেওয়া হবে ৷ বিরোধীরা কটাক্ষের সুরে বলছে, এ তো হাতুড়েদের বৈধতা দেওয়ার চেষ্টা।

রাজ্যসভায় পাস হয়ে এই বিল আইনে পরিণত হলে-

স্নাতকোত্তর স্তরে পড়াশোনা করতে অথবা লাইসেন্স নিয়ে চিকিৎসা করাতে এমবিবিএসের ফাইনাল ইয়ারে ন্যাশনাল এক্সিট টেস্ট পাস করতে হবে

এইমসের মতো জায়গায় সুযোগ পেতে ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি কাম এন্ট্রান্স টেস্ট বা NEET এবং NEXT দুই’ই পাস করতে হবে

মোদি সরকারের দাবি, এতে চিকিৎসা শিক্ষার মানোন্নয়ন হবে। যদিও চিকিৎসা মহলের অনেকেরই অভিযোগ, এনইইটির আগে এনইএক্সটি বাধ্যতামূলক করায় গরিব পড়ুয়াদের ডাক্তার হওয়ার স্বপ্নের পথে নতুন বাধা তৈরি হবে। এই সব বিতর্ক সত্ত্বেও লোকসভায় পাস হয়ে গিয়েছে মেডিক্যাল-বিল। এবার পেশ হবে রাজ্যসভায়।

First published: August 1, 2019, 2:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर