যোগীরাজ্যে মৃত শিশুকন্যার দেহ খুবলে খুবলে খাচ্ছে রাস্তার কুকুর, হাসপাতালের ভিডিও ভাইরাল

Photo Courtesy- Twitter/ Video Grab

হায় ভগবান! ২০ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে কুকুর কামড়ে ছিঁড়ে শিশু কন্যার মৃতদেহ খেয়ে নিচ্ছে৷

  • Share this:

    #কানপুর: উত্তরপ্রদেশের   (Uttar Pradesh)  সম্ভলের ঘটনায় লজ্জায় মুখ ঢাকবে মানবিকতা৷ সম্ভলের একটি হাসপাতালে ঘটা নক্কারজনক ভিডিও এই মুহূ্র্তে সারা দেশে ভাইরাল৷ ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে স্ট্রেচারের ওপর একটি চাদর ঢাকা মৃতদেহ কামড়ে কামড়ে খাচ্ছে রাস্তার কুকুর!সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিও এই মুহূর্তে সুপার ভাইরাল৷

    এই ভিডিও জেলা হাসপাতালের সংবেদনশীলতাহীণ মনোভাবের তীব্র সমালোচনা করেছেন৷ এদিকে এই ভিডিওটি নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছে উত্তরপ্রদেশের প্রধান বিরোধী দল সমাজবাদী পার্টি (Samajwadi Party)৷ ভিডিওটি নিজেদের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে শেয়ার করে সমাজবাদী পার্টি মৃতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন৷ এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পক সম্ভল জেলা প্রশাসনে প্রচণ্ড উত্তেজনা ও চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে৷

    ওয়ার্ড বয় ও সুপারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ ও চিকিৎসকের থেকে জবাব তলব-

    প্রাপ্ত খবর অনুযায়ি বৃহস্পতিবার দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় ওই শিশু কন্যার৷ এরপর হাসাপাতালের এলাকার মধ্যেই সেই শবদেহ স্ট্রেচরে রাখা হয়েছিল৷ এই ঘটনার জেরে সিএমও এক ওয়ার্ডবয় ও সুপারকে সাসপেন্ড করেছে৷ পাশাপাশি চিকিৎসক ও ফার্মাসিস্ট জবাবদিহির জন্য ডেকেছে৷ ঘটনার পূর্নাঙ্গ তদন্তের জন্য কমিটি তৈরি করেছে৷

    সমাজবাদী পার্টির ট্যুইট-

    এই ঘটনায় সমাজবাদী পার্টি  ট্যুইট করে বলেছে, ‘संभल में स्वास्थ्य सेवाओं की रोंगटे खड़े कर देने वाली खौफनाक तस्वीर आई सामने।जिला अस्पताल में स्वास्थ्य कर्मियों की लापरवाही की वजह से स्ट्रेचर पर रखे बच्ची के शव को कुत्तों ने नोच कर खाया। जांच करा लापवाही बरतने वालों के खिलाफ हो सख्त कार्रवाई। शोकाकुल परिवार के प्रति संवेदना!’- অর্থাৎ  ‘সম্ভলে স্বাস্থ্য পরিষেবা রোম খাড়া করে দেবে, অত্যন্ত ভয়ের ছবি সামনে এসেছে৷ জেলা হাসপাতালে কর্মীদের অযোগ্যতায় স্ট্রেচারে রাখা বাচ্চার শবদেহ কামড়ে ছিঁড়ে খাচ্ছে কুকুর৷ তদন্তে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে শক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হোক, শোকাকুল পরিবারের প্রতি সমবেদনা৷ ’

    ২০ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে কুকুর কামড়ে ছিঁড়ে শিশু কন্যার মৃতদেহ খেয়ে নিচ্ছে৷ মনকে একেবারে রক্তাক্ত করে দেওয়া এই ভিডিও ভাইরাল হতেই সম্ভল হাসপাতালের পরিস্থিতি নিয়ে গম্ভীর প্রশ্ন উঠে গেছে৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: