corona virus btn
corona virus btn
Loading

NEP–এর সমর্থনে দেশজুড়ে প্রচারে নামছে বিদ্যা ভারতী অখিল ভারতীয় শিক্ষা সংস্থা

NEP–এর সমর্থনে দেশজুড়ে প্রচারে নামছে বিদ্যা ভারতী অখিল ভারতীয় শিক্ষা সংস্থা
প্রতীকী ছবি

এই প্রচার তারা শুরু করবে ১১ সেপ্টেম্বর থেকে। তাদের দাবি তাদের এই প্রচার ভারতেকেন্দ্রিক শিক্ষার বিভিন্ন দিক তুলে ধরবে।

  • Share this:

#‌নয়াদিল্লি:‌ সাম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে ঘোষিত হয়েছে নয়া জাতীয় শিক্ষানীতি (NEP )। এবার এই শিক্ষানীতির সমর্থনে সাড়া দেশব্যাপী প্রচারে নামতে চলেছে আরএসএস সমর্থিত বিদ্যা ভারতী অখিল ভারতীয় শিক্ষা সংস্থা। দেশজুড়ে সফলভাবে বাস্তবায়নের জন্য সচেতনতামূলক প্রচার করবে তারা।

এই প্রচার তারা শুরু করবে ১১ সেপ্টেম্বর থেকে। তাদের দাবি তাদের এই প্রচার ভারতেকেন্দ্রিক শিক্ষার বিভিন্ন দিক তুলে ধরবে। সঙ্গে শ্রমের মর্যাদা, বিভিন্ন দক্ষতা এবং মাতৃভাষার বিষয়ে উৎসাহিত করবে ছাত্র সমাজকে। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শ্রীরাম আরাওকার বলেছেন, “দীর্ঘ সময়ের পরে আমাদের একটি নতুন শিক্ষানীতি আসতে চলেছে এবং এর বাস্তবায়ন তখনই সম্ভব যখন সমাজের সবাই এই নীতি সঠিকভাবে বুঝতে পারে। সরকার সচেতনতা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য তাদের কাজ করবে সঙ্গে আমাদেরও সরকারকে সাহায্য করতে হবে। তবে আমরা আমাদের উপজাতীয় অঞ্চলে ১৩,০০০ স্কুল এবং ১১,০০০ একক-শিক্ষক স্কুল এবং সংস্কার কেন্দ্রগুলি সহ আমাদের শক্তি প্রয়োগ করব। আমাদের সংস্থাটি বড় এবং এর নেটওয়ার্কের সহায়তায় আমরা এই নয়া শিক্ষানীতি বাস্তবায়নের জন্য কাজ করব ”। তিনি আরও বলেছেন এটি একটি ভারতকেন্দ্রিক নীতি এবং এটি দেশের প্রতিটি কোণায় পৌঁছানো উচিত। এখানে ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে ছাত্রসমাজ সুযোগ পাবে নিজেদের দক্ষতা প্রমাণের। যা আগের শিক্ষানীতির থেকে অনেকটাই আলাদা।

এই নয়া শিক্ষানীতির অধীনে সংস্কারের সুযোগ, সীমাবদ্ধতা এবং প্রভাব নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি “মাই এনইপি” প্রতিযোগিতা এবং অন্যান্য এনইপি-থিমযুক্ত জনপ্রিয় প্রতিযোগিতা থাকবে। মাই এনপিই প্রতিযোগিতা ১৩ টি ভাষায় হবে, পাশাপাশি চারটি সাব-থিম থাকবে। সেগুলি হল - ভারত কেন্দ্রিক শিক্ষা, সামগ্রিক শিক্ষা, জ্ঞান ভিত্তিক সোসাইটি এবং কোয়ালিটি শিক্ষা। আর এগুলি ১৩ টি আঞ্চলিক ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি ও হিন্দিতেও হবে, যাতে ছাত্র সমাজ তাদের ভাষা জ্ঞানের বিকাশ ঘটাতে পারে। ইন্টারেক্টিভ কুইজ প্রতিযোগিতা হবে অনলাইনে এবং বিজয়ীদের নাম ৫ই অক্টোবরের মধ্যে ঘোষণা করা হবে।

উল্লেখ্য এই শিক্ষানীতির বিরোধিতায় গোটা দেশজুড়ে বিরোধিতায় সরব হয়েছে বিরোধী দলগুলো। দলগুলোর পাশাপাশি বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনগুলি রাস্তায় নেমে এর প্রতিবাদ জানাচ্ছে। আঞ্চলিক ভাষার মধ্যে বাংলা জায়গা না পাওয়ায় এই প্রতিবাদের আগুনের আঁচ পশ্চিমবঙ্গেও ছড়িয়ে পড়েছে। বঙ্গে শাসক থেকে বিরোধী সবাই সোচ্চার হয়েছে এই নিয়ে।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: September 9, 2020, 12:09 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर