• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • VENETIA K WARSHIONG FROM MEGHALAYA SANG AE MERE PYARE VATAN FOR COVID WARRIORS GOES VIRAL RC

Meghalaya Girl Viral: মেঘালয়ের পাহাড় থেকে দেশের যোদ্ধাদের জন্য গান তরুণীর, নিমেষে ভাইরাল!

ভেনেশিয়া কে ওয়ারশিয়ং

কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রীর গলায় 'অ্যায় মেরে পেয়ারে ওয়াতন' গানটি আপাতত মন কেড়েছে নেটিজেনের (Meghalaya Girl Viral)।

  • Share this:

    #শিলং: স্বাধীনতা দিবসে উত্তর-পূর্বের তরুণীর গান ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। গায়িকা ১৯ বছরের কলেজ পড়ুয়া ভেনেশিয়া কে ওয়ারশিয়ং। কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রীর গলায় 'অ্যায় মেরে পেয়ারে ওয়াতন' গানটি আপাতত মন কেড়েছে নেটিজেনের (Meghalaya Girl Viral)। সঙ্গীত নিয়েই পড়াশোনা করা ছাত্রী এই প্রথম হিন্দি গান গাইলেন। এবং সেটি ইউটিউবে পোস্ট করতেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে নিমেষে।

    বাবা-মা ভেনেশিয়াকে আদর করে নিনি বলে ডাকেন। এই মুহূর্তে নিনির দেশাত্মবোধন গান 'অ্যায় মেরে পেয়ারে ওয়াতন' স্বাধীনতা দিবসে দারুণ ভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। নিউজ ১৮-কে দেওয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে নিনি জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের কালবেলায় লাগাতার চলা লকডাউনের সময় ছকভাঙা কিছু একটা করার পরিকল্পনা করেছিলেন। সেই সময়ই ভেবেছিলেন দেশের জন্য কিছু করবেন।

    গায়িকার রূপে। গায়িকার রূপে।

    ভেনেশিয়ার কথায়, 'লকডাউনের সময় খালি খারাপ খবর শুনতাম। সেই সময় চিকিৎসক ও সসস্ত্র বাহিনী সামনে থেকে দাঁড়িয়ে দেশকে রক্ষা করার কাজ করেছেন। আমি তাঁদেরকে সম্মান জানাতেই এই গানটি গেয়েছি। এটা খুবই কঠিন একটা গান। তবে আমার বন্ধুরা আমাকে সাহায্য করেছে এবং আমি গেয়েছি। বাবা আমাকে খুঁজে দিয়েছিলেন এই গানটি। গতকাল রাতেই এটি পোস্ট করা হয়েছে।'

    ১০ বছর বয়স থেকে গান শিখছেন ভেনেশিয়া। পরবর্তীকে ফিলিপিন্সে গিয়ে সঙ্গীত নিয়ে আরও চর্চা করতে চান তিনি। ভেনেশিয়া মনে করেন, উত্তর-পূর্বের মেয়ে হয়ে তিনি যেভাবে হিন্দি গানটি গেয়েছেন, তাতে দেশের যোদ্ধারা খুশি হবেন। তাঁর বাবা মেঘালয়ের একটি সিভিল হাসপাতালে রিসেপশনিস্টের কাজ করেন। মা বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন শিশুদের নিয়ে কাজ করেন। ভবিষ্যতে গানের মাধ্যমে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে চান ভেনেশিয়া।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: