দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

গাজিয়াবাদে আন্দোলনরত কৃষকের আত্মহত্যা! শৌচাগার থেকে উদ্ধার করা হল দেহ

গাজিয়াবাদে আন্দোলনরত কৃষকের আত্মহত্যা! শৌচাগার থেকে উদ্ধার করা হল দেহ
প্রতীকী ছবি

আন্দোলন স্থানের শৌচাগার থেকে কৃষকের মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁর মৃত দেহের পাশে একটি সুইসাইড নোট পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

  • Share this:

#গাজিপুর: দিল্লি ও উত্তরপ্রদেশের সংযোগস্থল গাজিপুর সীমান্তে আরও এক আন্দোলনরত কৃষকের আত্মহত্যায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। কৃষকের নাম কাশ্মীর সিং লাদি এবং তাঁর বয়স ৭৫। কৃষকদের মধ্যে কাশ্মীর পরিচিত ছিলেন 'বাপু' নামে। সূত্রের খবর, আন্দোলন স্থানের একটি শৌচাগার থেকে ওই কৃষকের মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁর মৃত দেহের পাশে একটি সুইসাইড নোটও পাওয়া যায় বলে কিসান কমিটির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। সেই চিঠিতে কাশ্মীর উল্লেখ করেছেন, জীবন শেষ করে দেওয়ার মতন চরম পদক্ষেপ নিতে বাধ্য করছে তাঁকে কেন্দ্রীয় সরকার। তাঁর এই চিঠি সামনে আসায় কৃষকেরা আরও ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন। পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত করছে এবং ওই সুইসাইড নোট সত্যিই কাশ্মীর লিখেছেন কি না সেই বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কাশ্মীরের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ভারতীয় কিসান ইউনিয়নের (বিকেইউ) তরফে জানানো হয়েছে, ওই সুইসাইড নোট সহ কাশ্মীরের ঝুলন্ত দেহ তাঁরা শৌচাগার থেকে বের করে আনে। চিঠিতে কাশ্মীর সরকারকে জিজ্ঞাসা করেছেন, "থান্ডায় তাঁরা আর কত দিন অপেক্ষা করবেন? সরকার তাঁদের দাবি মেনে নিচ্ছে না তাই তিনি এই পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হলেন"। এ ছাড়াও ওই চিঠিতে তিনি লিখেছেন, মৃত্যুর পর তাঁর শেষকৃত্য যেন আন্দোলন স্থানেই করা হয়। বিকেইউ-র এক মুখপাত্র ধর্মেন্দ্র মল্লিক জানিয়েছেন, কাশ্মীর আত্মহত্যার পূর্বে প্রতিবাদী কৃষক ও তাঁর পরিবারের সকলকে খাবার পরিবেশন করেছিলেন।

কৃষি আন্দোলনে কৃষকের আত্মহত্যার ঘটনা এটা প্রথম নয়। এখনও পর্যন্ত প্রায় ৩০ জন কৃষকের আত্মহত্যায় মৃত্যু হয়েছে। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে, দিল্লির-সিঙ্ঘু সীমান্তের হরিয়ানার কর্নালের এক পুরোহিত আত্মহত্যা করে মারা গিয়েছিলেন। তার সুইসাইড নোট অনুসারে, তিনি নতুন তিনটি খামার আইনের বিরোধিতা করে কৃষকদের সংহতি জানিয়ে নিজেকে গুলি করেছিলেন। আজ প্রায় এক মাসের উপর হতে চলল, নয়া কৃষিবিল প্রত্যাহারের দাবিতে দিল্লি-সিঙ্ঘু সীমান্তে কৃষকেরা তাঁদের আন্দোলন জারি রেখেছে। এ ছাড়াও উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, পাঞ্জাব, উত্তরাখণ্ড থেকেও কৃষকেরা তাঁদের প্রতিবাদ জানাচ্ছে। দফায় দফায় বৈঠক হয়েও এই সমস্যার কোনও সমাধান হয়নি। কৃষকরা তাঁদের শর্ত থেকে নড়বে না, অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে এখনও কোনও সমাধান করা হয়নি। এত সব কিছুর পরেও দেশের পরিস্থিতি এখন খুবই উদ্বেগজনক।

Published by: Somosree Das
First published: January 2, 2021, 9:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर