শিবসেনার দাবি মানা সম্ভব নয়, জানালেন অমিত শাহ

শিবসেনার দাবি মানা সম্ভব নয়, জানালেন অমিত শাহ
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ

মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন নিয়ে রাজ্যপালের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে দাঁড়িয়ে অমিত শাহ বলেন, রাজ্যপাল সংবিধান মেনেই কাজ করেছেন। এনসিপি চিঠি লিখে জানিয়ে দিয়েছিল রাত সাড়ে আটটার মধ্যে সংখ্যা গরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারবে না। তা হলে আর কেন রাজ্যপাল রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রপতি শাসনের পরের দিন মহারাষ্ট্রের সাংবিধানিক সংকট নিয়ে মুখ খুললেন অমিত শাহ। পাশে দাঁড়ালেন রাজ্যপালের। সরকার গড়তে না পারাদ দায় চাপালেন শিবসেনা-সহ বিরোধীদের ঘাড়ে। সংখ্যা জোগাড়ের জন্য বিজেপিকে দু’দিন, বাকিদের একদিন কেন? এনসিপিকে দেওয়া সময়সীমা পার হওয়ার অনেক আগেই রাষ্ট্রপতি শাসনের সুপারিশ কেন? এই সব প্রশ্ন তুলেই মহারাষ্ট্রের রাজ্যপালকে নিশানা করছে বিজেপি বিরোধীরা। পালটা এবার বিরোধী শিবিরকে নিশানা করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন নিয়ে রাজ্যপালের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে দাঁড়িয়ে অমিত শাহ বলেন, রাজ্যপাল সংবিধান মেনেই কাজ করেছেন। এনসিপি চিঠি লিখে জানিয়ে দিয়েছিল রাত সাড়ে আটটার মধ্যে সংখ্যা গরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারবে না। তা হলে আর কেন রাজ্যপাল রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন?

সবাইকে সময় দিলেন রাজ্যপাল৷ এই প্রসঙ্গে অমিত শাহের বক্তব্য, রাজ্যপাল তাড়াহুড়ো করেননি। ১৮ দিন সময় দিয়েছেন৷ অনেকে বলছেন, একে একদিন, ওকে দুদিন কেন? আরে সবাইকেই সময় দিয়েছেন। এখনও সময় আছে। আজও কারও কাছে সংখ্যা থাকলে রাজ্যপালের কাছে দাবি করতে পারেন৷

মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির জন্য বিরোধীদের দায়ী করেছেন বিজেপি তথা মোদি সরকারের নম্বর টু অমিত শাহ৷ তাঁর দাবি, এই ইস্যুতে বিরোধীরা রাজনীতি করছে। সাংবিধানিক পদকে এরকম রাজনীতিতে টানা গণতন্ত্রের পক্ষে ভাল না৷ বিরোধীরা চাইছে, মানুষকে বিভ্রান্ত করে সহানুভুতি আদায় করতে৷ সংখ্যা থাকলে প্রমাণ করুক।

সবচেয়ে পুরোন জোটসঙ্গী শিবসেনার সঙ্গে হাত মিলিয়েই এবারের ভোটে লড়েছিল বিজেপি। কিন্তু, ভোট শেষের পরেই দুই শিবিরের মধ্যে চরম সংঘাত তৈরি হয়। শিবসেনা দাবি করে, বিজেপি তাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, সরকার গড়লে, আড়াই বছর করে দুই দলের মুখ্যমন্ত্রী থাকবেন। যদিও অমিত শাহ এই দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন।

First published: 09:52:58 AM Nov 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com