• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • TWITTER INDIA COMPLAINT FILED AGAINST TWITTER INDIA HEAD FOR SPREADING COMMUNAL HATRED SANJ

Twitter India : ফের বিপাকে ট্যুইটার! 'সাম্প্রদায়িক হিংসা' ছড়ানোর অভিযোগ ট্যুইটার কর্তাদের বিরুদ্ধে

ফের চাপে ট্যুইটার

ট্যুইটার ইন্ডিয়ার (Twitter India) ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মনীশ মাহেশ্বরী, ট্যুইটার ইন্ডিয়ার নীতি নির্ধারক সৌগুফত কামরানের বিরুদ্ধে এফআইআর করতে চেয়ে দিল্লির সাইবার সেলের ডিসিপিকে ইমেল করেছেন আইনজীবী আদিত্য সিং।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি : কেন্দ্রের রক্ষাকবচ না থাকতেই কি বার বার অভিযোগের মুখে পড়তে হচ্ছে ট্যুইটারকে (Twitter India)? এবার সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ (Spreading Communal Hatred) ছড়ানোর অভিযোগ উঠল ট্যুইটার ইন্ডিয়ার (Twitter) একাধিক কর্তার বিরুদ্ধে। যার দরুন দিল্লি পুলিশের সাইবার সেলে অভিযোগ দায়ের করেছেন এক আইনজীবী। তাঁর কথায়, এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার তরফে হিন্দু দেবী কালীর একটি ‘অশ্লীল’ ছবি পোস্ট করা হয়েছিল। ট্যুইটারে তা ছড়িয়ে পড়ে। এর ফলেই হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে বলে দাবি ওই আইনজীবীর। ট্যুইটার ইন্ডিয়ার (Twitter India) ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মনীশ মাহেশ্বরী, ট্যুইটার ইন্ডিয়ার নীতি নির্ধারক সৌগুফত কামরানের বিরুদ্ধে এফআইআর করতে চেয়ে দিল্লির সাইবার সেলের ডিসিপিকে ইমেল করেছেন আইনজীবী আদিত্য সিং। এর পাশাপাশি, হিন্দু দেবীর বিতর্কিত ছবি পোস্ট করায় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা Republic Atheist-এর প্রতিষ্ঠাতা আরমিন নভাবি এবং সিইও সুসানা ম্যাসিনত্রির বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

    আইনজীবীর কথায়, ওই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার ট্যুইটার হ্যান্ডেলে হিন্দু ধর্মের দেবীর অশ্লীল ছবি পোস্ট করা হয়। শুধু তাই নয়, ছবি পোস্ট করার কারণও যথেষ্ট 'বিপজ্জনক', 'অবমাননাসূচক', 'বিদ্বেষমূলক' বলে দাবি করেছেন আইনজীবী আদিত্য সিং। তিনি আরও জানিয়েছেন, এ ধরনের ছবি হিন্দু ভাবাবেগকে আঘাত শুধু করেনি সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষে ছড়াতেও উস্কানি দিয়েছে।

    এই মর্মে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইআর করার দাবি জানিয়েছেন তিনি। এর আগেও টুইটারের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের অভিযোগে উত্তরপ্রদেশের থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছিল। যদিও হাজিরা এড়াতে কর্ণাটক আদালত থেকে আগাম জামিন নেন ট্যুইটার ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মনীশ মাহেশ্বরী। এবার ফেরে দিল্লির সাইবার সেলে তাঁর নামে অভিযোগ দায়ের হল।

    কেন্দ্রের নয়া আইন অমান্য করায় সম্প্রতিই ট্যুইটারের কাছ থেকে আইনি রক্ষাকবচ তুলে নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। আর এরপরই প্রথমবার ভারতে ট্যুইটারের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ দায়ের হতে থাকে। এর মধ্যে রয়েছে উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদের ঘটনাটিও। সেখানে এক মুসলিম বৃদ্ধকে নিগ্রহের ঘটনার যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে, তা অসত্য বা বিকৃত বলে চিহ্নিত না করায় বেশ কয়েকজন সাংবাদিকের পাশাপাশি এই সোশ্যাল মিডিয়া জায়েন্টের বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের হয়। কেন্দ্রের তরফেও সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, আইনি সুরক্ষা না থাকায় এ বার থেকে এই ধরনের বিষয়বস্তুর ক্ষেত্রে ট্যুইটারেকে জবাবদিহি করতে হবে এবং শাস্তির মুখেও পড়তে হতে পারে।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: