Twitter on Center Notice: ভারতে সরকারি বিধিনিষেধ মানতে তৈরি ট্যুইটার, সমস্যা সমাধানে সাতদিন চাইল সংস্থা

সরকারি বিধিনিষেধ মানতে তৈরি ট্যুইটার

সরকারি বিধিনিষেধ মানার জন্য যা যা করণীয় তাই করবে ট্যুইটার (Twitter on Center Notice)।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: সরকারি বিধিনিষেধ মানার জন্য যা যা করণীয় তাই করবে ট্যুইটার (Twitter on Center Notice)। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবেন সংস্থা। বুধবার এমনটাই বিবৃতি দিল ট্যুইটার কর্তৃপক্ষ। সংস্থার তরফে এ দিন একটি বিবৃতি জারি করে স্পষ্ট বলা হয়েছে, ভারতের প্রতি ট্যুইটার দায়বদ্ধ। এবং ভারতের বিভিন্ন পরিষেবার ক্ষেত্রে কথাবার্তার একটি মঞ্চ তৈরি করে আসছে ট্যুইটার। ভারত সরকারকে তারা জানাতে চায়, সরকারের নতুন গাইডলাইন মেনে চলতে তারা সর্বান্তকরণে চেষ্টা করবে। সংস্থার বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে ভারত সরকারকে। সরকারের সঙ্গে ট্যুইটার পাকাপাকি সমঝোতায় যেতে চায়।

    সংস্থার পক্ষ থেকে আরও জানানো হচ্ছে ইতিমধ্যে গাইডলাইন অনুযায়ী একজন ভারতীয় নোডাল কন্টাক্ট পারসন এবং একজন রেসিডেন্ট চুক্তির ভিত্তিতে নিয়োগ করা হয়েছে। চিপ কমপ্লেন অফিসার নিয়োগের ক্ষেত্রেও চূড়ান্ত পর্যায়ে আলোচনা চলছে। ট্যুইটার কতৃপক্ষ লিখছে, 'বিধিবদ্ধতার প্রয়োজনীয়তা আমরা অনুধাবন করতে পেরেছি। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি এই বিষয়ে গাইডলাইন জারি হয় কিন্তু করোনা পরিস্থিতির মধ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া এত অল্প সময়ে সম্ভব হয়নি। আমরা আগামী ৭ দিনের মধ্যে এই বিষয় জানানো হবে।'

    গত ৫ জুন, শনিবার কেন্দ্রের তরফে ট্যুইটারকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, নয়া নির্দেশিকা মানতে হবে নয়তো কেন্দ্রের তরফে নেওয়া আইনানুগ ব্যবস্থার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। শনিবারের সরকারি বিবৃতিতে স্পষ্ট বলা হয়েছে, এটাই ট্যুইটারের জন্য শেষ নোটিস। মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে ভারতে জারি হওয়া আইটি আইন ২০০০-এর ৭৯ নম্বর ধারায় গাইডলাইন আইন অবমাননার যাবতীয় ফল বর্ণনা করা আছে। ফলে গাইডলাইন মানতে ট্যুইটার বাধ্য, না মানলে তারা এই আইনেই শাস্তির আওতায় পড়বে। ভারতের উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু, আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত-সহ সঙ্ঘ ঘনিষ্ঠ অনেকের ট্যুইটার থেকে ব্লু টিক সরিয়ে নিয়েছে সংস্থা। এই নিয়ে চূড়ান্ত শোরগোল শুরু হয়েছে দেশজুড়ে। তার মধ্যেই ট্যুইটারকে নোটিশ ধরায় কেন্দ্র।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: