• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • TRIPURA POLITICS ALL OPPOSITION PARTIES CELEBRATING MAHARAJAS BIRTHDAY SANJ

Tripura Politics : মহারাজার জন্মদিন পালনে তুমুল 'উৎসাহ' ত্রিপুরায়! 'রাজবাড়ি'কে কাছে টানার চেষ্টা? 

মহারাজার জন্মদিন পালন

Tripura Politics : একক লড়াই না জোট জল্পনা অবশ্য জিইয়ে রাখলেন প্রদ্যোত কিশোর মাণিক্য। 

  • Share this:

#ত্রিপুরা : লক্ষ্য উপজাতি,আদিবাসী ভোট। মহারাজার জন্মদিন পালনে তৎপর হতে দেখা গেল দুই যুযুধান রাজনৈতিক দলকেই। ত্রিপুরার রাজনৈতিক সমীকরণে ক্রমশ গুরুত্ব বাড়ছে রাজবাড়ির। বর্তমান রাজ পরিবারের অন্যতম রাজনৈতিক মুখ প্রদ্যোত মাণিক্যকে কাছে টানাই কি আসল লক্ষ্য? রাজনৈতিক মহলে ঘোরা ফেরা করছে একাধিক প্রশ্ন। বৃহস্পতিবার দিনভর চর্চা ছিল মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মাণিক্যের ১১৩ তম জন্মদিন। আর সেই জন্মদিন পালনে উৎসাহ দেখা গেল সব রাজনৈতিক দলের মধ্যেই৷

ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব যেমন জানিয়েছেন, "আধুনিকতর ত্রিপুরা গড়ার ভাবনায় অনুপ্রাণিত, দূরদৃষ্টিসম্পন্ন এই বিচক্ষণ ব্যক্তিত্ব-র নেতৃত্বে অল্প সময়ে ত্রিপুরার সর্বাঙ্গীন বিকাশের লক্ষ্যে গৃহীত নানান বলিষ্ঠ পদক্ষেপ ত্রিপুরাকে শিক্ষা সহ অন্যান্য ক্ষেত্রেও প্রভুত উন্নতির শিখড়ে পৌঁছে দেয়।আত্মপ্রচার বিমুখ এক মহান প্রাণ মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্য বাহাদুর দেববর্মণ তাঁর অবদানের মাধ্যমে মানুষের হৃদয়ে নিজের নাম লিখে গেছেন। আজ তথ্য ও সংস্কৃতি দফতর আয়োজিত মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্যের ১১৩ তম জন্মজয়ন্তীতে আমার শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করি। মহারাজার নির্দেশিত পথে হাঁটলে আরও আগেই শ্রেষ্ঠ ত্রিপুরা নির্মাণ করা সম্ভব হত। তবে আমরা রাজ্যের কল্যানে মহারাজার অবদানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। জন্মদিনে সরকারী ছুটি ঘোষণা, সরকারীভাবে জন্মদিন পালনের উদ্যোগ ও মহারাজার নামাঙ্কিত বিমান বন্দরের মাধ্যমে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করি। ভারতীয় বা ত্রিপুরার সংস্কৃতির সঙ্গে সম্পর্কিত নয়, এমন একটি ভিন্ন মানসিকতাকে বিগত দিনে রাজ্যে অধিক গুরুত্ব দেওয়ার মাধ্যমে ত্রিপুরার প্রকৃত ইতিহাস বা রাজাদের অবদান সম্পর্কে জানার সুযোগ থেকে মুখ ঘুরিয়ে দেওয়ার একটা প্রচেষ্টা লক্ষ্য করা গিয়েছিল।"

মুখ্যমন্ত্রীর কথায় আসলে আক্রমণ যে বাম-তৃণমূল জোট সেটা একপ্রকার স্পষ্ট। মহারাজার জন্মদিন নিয়ে ট্যুইট করেছিল তৃণমূল নেতৃত্ব। সেখানে উল্লেখ ছিল, "মহারাজার দেখানো পথেই আগামী দিনে ত্রিপুরার উন্নয়ন হবে। তিনি যে কাজ করে গেছেন তা আজও সাহস ও উৎসাহ জোগায় ত্রিপুরার মানুষকে।"  বাকি দুই রাজনৈতিক দলও শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে৷

তবে রাজনৈতিক মহলের মতে, চলতি বছরে মহারাজার জন্মদিন পালন আসলে রাজনৈতিক ভাবেও ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল। কারণ ত্রিপুরার স্বশাসিত পার্বত্য পরিষদের ভোটে ব্যাপক ফল করেছে প্রদ্যোত কিশোর মাণিক্যের তিপ্রামোথা। কার্যত ত্রিপুরার ১৬ আসন সরকার গঠনে মস্ত বড় ভূমিকা গ্রহণ করতে পারে৷ আর এই সব আসনেই দখল রয়েছে প্রদ্যোত কিশোর মাণিক্যের দলের।

তাই সকলেই চাইছেন তার সাথে সুসম্পর্ক রেখে চলতে। সেই কারণেই চলতি বছরে মহারাজার জন্মদিন পালন অধিক গুরুত্বপূর্ণ লেগেছে সব রাজনৈতিক দলের কাছেই৷ তবে যাকে ঘিরে এত উন্মাদনা তিনি তার ঠোঁটে হাসি ঝুলিয়ে রেখেছেন। তার একটাই কথা, "সকলেই আমার বন্ধু"। রাজনৈতিক মহলের মতে ২০২৩ এর আগে, ক্রমশই প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠছে রাজ পরিবার।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published: