• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • পদ ভুলে যান, পৌঁছন মানুষের ঘরে, পাড়ার মহিলার জন্মদিনে জানান শুভেচ্ছা, অভিষেককে ঠেকাতে হোম ওয়ার্ক করতে দিলেন বিপ্লব দেব

পদ ভুলে যান, পৌঁছন মানুষের ঘরে, পাড়ার মহিলার জন্মদিনে জানান শুভেচ্ছা, অভিষেককে ঠেকাতে হোম ওয়ার্ক করতে দিলেন বিপ্লব দেব

tripura chief minister biplab deb become proactive during abhishek banerjee's tour of tripura

tripura chief minister biplab deb become proactive during abhishek banerjee's tour of tripura

তৃণমূলকে দাঁত ফোটাতে দেওয়া যাবে না, পাড়ার মহিলার জন্মদিন থেকে স্কুল -কলেজের পড়ুয়া- খবর রাখতে হবে সকলেরই- বিপ্লব দেবের নয়া নিদান৷

  • Share this:

#আগরতলা: অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের সফর। আর তার পরেই রাজনৈতিক ঘুঁটি সাজাতে ময়দানে নেমে পড়লেন খোদ বিপ্লব দেব। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী একগুচ্ছ পদক্ষেপ গ্রহণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন তার দলের সদস্যদের। সোমবার ত্রিপুরা সফর করেছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে গিয়ে দলের কর্মীদের উদ্দেশ্যে একগুচ্ছ টোটকা দিয়ে এসেছিলেন। বিশেষ করে দলের কর্মীদের প্রতি তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, সব বুথের খোঁজ রাখতে হবে। প্রতি ব্লকের সব পরিবারের সঙ্গে গিয়ে তাদের সমস্যা জানতে বলেছেন।

এর পরেই বিজেপির মহিলা সংগঠনের নেতাদের উদ্দেশ্যে বিপ্লব দেবের নির্দেশ ঘরে ঘরে যান। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, "মহিলা মোর্চার মা বোনদের আমি বলি যে আপনারা যাঁর যাঁর পাড়ায়, প্রত্যেক মহিলার জন্মদিনে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করবেন৷ এতে সম্পর্ক সুদৃঢ হবে।" প্রসঙ্গত, তৃণমূল কংগ্রেসের টার্গেট ত্রিপুরার মহিলা ভোট। প্রায় ৪৭% ভোট রয়েছে ত্রিপুরায়। পশ্চিমবঙ্গে মহিলাদের জন্যে একাধিক প্রকল্প রয়েছে। সেই প্রকল্পের সুফল বোঝাতে ইতিমধ্যেই ঘরে ঘরে গিয়ে প্রচার করার নির্দেশ দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এর পরেই বিপ্লব দেবের আদেশ দলীয় নেতাদের, "যাঁরা বিভিন্ন পদে আছেন, আপনারা শুধু পদ নিয়ে বসে থাকলে হবে না। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজীর বিভিন্ন জনমুখী কাজগুলির প্রচার করতে হবে।" অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির সরকারকে আক্রমণ করে বলেছিলেন, ত্রিপুরার ঐতিহ্য, গৌরব সব নষ্ট হয়েছে। গত সাড়ে তিন বছর ধরে রাজ্যে যে কিছুই কাজ হয়নি, তা নিয়েও আক্রমণ শানিয়েছিলেন তিনি। এমনকি রাজ্যে বাইক বাহিনীর গুণ্ডামি নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিয়ে গিয়েছিলেন অভিষেক।

রাজ্যে কাজ হয়নি, এই যুক্তি খণ্ডন করতে গিয়ে বিপ্লব দেবের বক্তব্য, "বিভিন্ন মোর্চাকে গগতানুগতিক ধারার বাইরে গিয়ে কাজ করতে হবে। বামফ্রন্ট বলতো তাদের সময় নাকি স্বর্ণযুগ ছিল। কিন্তু তাঁরা দেখাতে পারবেনা তাদের কোনও বিশেষ উপলব্ধি গত ২৫ বছরে।" তিনি তার সময়ে সরকার কি কি কাজ করেছে সেটার ব্যাপক প্রচার চালাতে বলেছেন। এই প্রসঙ্গে তিনি কর্মীদের বলেছেন, "আমরা বলতে পারবো যে আমাদের সরকার গত তিন বছরে বহু এমন কাজ করেছে যেগুলি অভূতপূর্ব।" অভিষেকের সফরের দিন পতাকা লাগানোকে কেন্দ্র করে বিক্ষিপ্ত অশান্তি হয় ত্রিপুরার বেশ কয়েকটি জেলায়। সেদিন পথে নেমে আন্দোলন করেন সুদীপ-দেবাংশু-জয়া সহ ত্রিপুরার যুব-ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা। যেভাবে আগরতলার রাস্তায় ছাত্র-যুব সংগঠন বিজেপি বিরোধীতায় রাস্তায় নেমে সরব হয়েছিল, তার পরিপ্রেক্ষিতেই বিপ্লব দেবের বক্তব্য, "যুব মোর্চার ভাইদের উদ্দেশ্যে বলি যে ৯ম শ্রেণী থেকে কলেজের ২য় বর্ষ পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক স্থাপন করতে হবে। শুধু রাজনীতি নয় বরং পড়াশোনা ও বিভিন্ন সমস্যার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে হবে।" ত্রিপুরায় জমে উঠেছে রাজনৈতিক লড়াই। ত্রিপুরা সফরে গিয়েই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন, এক ইঞ্চি জমি ছাড়া হবে না। পাখির চোখ ত্রিপুরা তৃণমূল বুঝিয়ে দিয়েছে। যে কৌশল তারা নিয়েছে, তার জন্যেই বিপ্লব দেবের এই কৌশল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

ABIR GHOSHAL

Published by:Debalina Datta
First published: