রাজনীতি থেকে ব্যক্তিগত জীবন, Network 18-এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে খোলামেলা মোদি

রাজনীতি থেকে ব্যক্তিগত জীবন, Network 18-এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে খোলামেলা মোদি

Network 18-এর গ্রুপ এডিটর রাহুল জোশীকে দেওয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে কালো টাকা থেকে দলিত ইস্যু, ব্যক্তিগত অপছন্দ-পছন্দ থেকে মৃত্যুর আগের ইচ্ছা সবই জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৷ তাঁর দীর্ঘ ৭৫ মিনিটের সাক্ষাৎকারে উঠে এল একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ‘যাঁরা স্বঘোষিত অভিভাবক তাঁরাই উত্তেজনা তৈরি করছেন। এই দেশ তা পছন্দ করছে না। দলিতদের পাশেই রয়েছেন মোদি। উপজাতিদের জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছে মোদি। দেশে যে কালো টাকা রয়েছে তার রমরমা কমাতে আমরা যথেষ্ট আইন সংশোধন করেছি। ’ Network 18-এর গ্রুপ এডিটর রাহুল জোশীকে দেওয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে কালো টাকা থেকে দলিত ইস্যু, ব্যক্তিগত অপছন্দ-পছন্দ থেকে মৃত্যুর আগের ইচ্ছা সবই জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৷ তাঁর দীর্ঘ ৭৫ মিনিটের সাক্ষাৎকারে উঠে এল একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ৷

প্রসঙ্গ উত্তরপ্রদেশে মেরুকরণ: জাতিভেদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিষ আমাদের দেশের যথেষ্ট ক্ষতি করেছে। গণতন্ত্রকে আরও শক্তিশালী করায় সবচেয়ে বড় বাধা ভোট ব্যাঙ্ক রাজনীতি। গত লোকসভায় ভোট ব্যাঙ্ক রাজনীতির কোনও সুযোগই ছিল না। উন্নয়ন ইস্যুতেই ভোট হয়েছিল। ৩০ বছর পর সমাজের বড় অংশের মানুষ এক হয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার গঠনের লক্ষ্যে ভোট দেন। উত্তরপ্রদেশেও একই ঘটনা ঘটতে পারে। উন্নয়নের কথা মনে রেখেই মানুষ পরিবর্তন আনতে পারেন।

প্রসঙ্গ কাশ্মীর : জম্মু, কাশ্মীর উপত্যকা ও লাদাখের কথা মাথায় রেখেই জম্মু-কাশ্মীরের কথা বলা উচিত। আমার বিশ্বাস, কাশ্মীরের যুবকরা বিচ্ছিন্ন হবেন না। আমরা শান্তি, ঐক্য ও সদিচ্ছা বজায় রেখেই একসঙ্গে সে পথে এগবো। তাতে ভূস্বর্গ ভূস্বর্গই থাকবে। সমস্যার সমাধান হবে। কাশ্মীরের মানুষের শান্তি ও বিশ্বাস চাই। লাখ লাখ ভারতীয় উন্নয়নে প্রতিজ্ঞ‍াবদ্ধ। তাঁরা বিশ্বাসের প্রতিজ্ঞা থেকেও দূরে সরে যাননি।

প্রসঙ্গ দুর্নীতি : আপনারা দেখেছেন, দুর্নীতি দমনে আমরা একাধিক পদক্ষেপ করেছি। যেমন, গ্যাসে ভরতুকিতে ডিরেক্ট বেনিফিট স্কিম চালু করেছি। অনেকেই বেআইনি পথে ভিতুরি ব্যবহার করতেন। তা এখন আর সম্ভব নয়। চণ্ডীগড়ে একসময় ৩০ লক্ষ লিটার কেরোসিন সরবরাহ করা হতো। যেসব বাড়িতে গ্যাস ও বিদ্যুৎ রয়েছে সেখানে কেরোসিন সরবরাহ বন্ধ হল। যাদের ছিল না তাঁদের নতুন গ্যাস সংযোগ দেওয়া হল। এভাবেই চণ্ডীগড় কেরোসিন ফ্রি হয়ে উঠল। এখন কালো বাজারে ৩০ লক্ষ লিটার কেরোসিন বিক্রি করা বন্ধ করা গিয়েছে। ইদানীং ইউরিয়া বাড়ন্ত হয় না। চাষিরা ইউরিয়ার জন্য লাইন দেন না। লাঠিচার্জ বা কালো বাজারে বিক্রির মতো ঘটনাও ঘটে না। আমরা ইউরিয়ায় নিম কোটিং দেওয়া শুরু করেছি। ফলে রাসায়নিক কারখানাগুলি আর এক দানাও ইউরিয়া পায় না। এখন ১০০‍ শতাংশ ইউরিয়াই চাষিদের হাতে পৌঁছয়। আমরা অতিরিক্ত ২০ লক্ষ টন ইউরিয়া উৎপাদন করছি।

আরও পড়ুন

Loading...

ইতিহাসের পাতায় মোদির নাম হারিয়ে গেলেও কোনও দুঃখ থাকবে না: মোদি

প্রসঙ্গ দিল্লি : দিল্লিতে ক্ষমতার অলিন্দে এমন কিছু মানুষ রয়েছেন যাঁরা মুষ্টিমেয় কিছু ব্যক্তির অনুগামী। ব্যক্তিগত স্বার্থসিদ্ধির জন্যই তাঁরা এমন করেন। এটা শুধু মোদিকে নিয়ে প্রশ্ন নয়। ইতিহাসের দিকে তাকান, সর্দার প্যাটেলের কী হয়েছিল? সর্দার প্যাটেলের সারল্য দেখে সেই গোষ্ঠীই তখন তাঁকে গ্রামের লোক বলেছিল। মোরারজি দেশাইয়ের কাজ, প্রাপ্তি নিয়ে একটা কথা বলেনি ওই গোষ্ঠী। উলটে তিনি কী পান করতেন তা নিয়ে কথা চালাচালি হতো। দেবগৌড়ার কী হয়েছিল? চাষির ছেলে প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। তাও বলা হত, তিনি খালি ঘুমোন। অম্বেদকর এখন প্রশংসা পেলেও একসময় উপহাসের পাত্র ছিলেন তিনি। চৌধুরী চরণ সিংয়ের ক্ষেত্রেও তাই হয়েছিল। দেশের শিকড়ের সঙ্গে যাঁদের যোগাযোগ নিবিড়, তাঁদের কিছুতেই মেনে নেবে না এই দলের লোকেরা।

প্রসঙ্গ সংবাদমাধ্যম : আজ আমি যা হয়েছি তাতে সংবাদমাধ্যমের বিশাল অবদান রয়েছে। আমি যেখানে সেখানে ‘বাইট’ দিই না। সংবাদমাধ্যম অভিযোগ করে, আমি মশলাদার, বিতর্কিত মন্তব্য করি না। সংবাদমাধ্যম বড় বড় ব্যক্তিত্বকেই প্রধানমন্ত্রীর চেয়ার বসতে দেখেছে। আমার মতো বন্ধুস্থানীয় কাউকে প্রধানমন্ত্রী পদে এর আগে তারা পায়নি। আমার বিশ্বাস, সংবাদমাধ্যমের উচিত সরকারের কাজকর্মের কড়া সমালোচনা করা। নাহলে গণতন্ত্র নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। কিন্তু, টিআরপির দৌড়ে সংবাদমাধ্যমের সেই গবেষণার সুযোগ বড় কম। গবেষণা ছাড়া সমালোচনা করা যায় না। সংবাদমাধ্যমের সমালোচনা ভয় পায় সরকারও। কিন্তু, তা হচ্ছে না। আমার মনে হয়, ঘটনার ওপর ভিত্তি করেই সমালোচনা করা উচিত সংবাদমাধ্যমের। তাতে দেশও উপকৃত হয়। সংবাদমাধ্যমেরও কিছু বাধ্যবাধকতা রয়েছে। টিআরপি দৌড়ে তাকে জিততে হবে। আমি খুশি, আমি অন্তত তাঁদের কাজে আসছি। আমার মিছিল দেখানোর চেয়ে আমাকে গালাগালি দিলে টিআরপি বেশি আসে।

আরও পড়ুন

‘‘ আমি যে দলিতদের পাশে আছি সেটা অনেকেই পছন্দ করেন না ’’: PM Modi to Network18

প্রসঙ্গ বিচারব্যবস্থা : বিচারব্যবস্থার সঙ্গে আমার সম্পর্ক নিয়ে কিছু ভুল ধারণা রয়েছে। সরকার আইনকানুন মেনে চলে। কোনও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দ্বন্দ্বের কোনও সুযোগই নেই। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে সম্পর্ক ভালো হওয়া উচিত। আমি সেই প্রথা মেনে চলার চেষ্টা করি।

শেষে আসল মোদি কোনটা? এই প্রশ্নের উত্তরে নরেন্দ্র মোদির জবাব, ‘নরেন্দ্র মোদি একজন মানুষ। আমার ভিতরে যা আছে তা লুকিয়ে রাখব কেন? আমি যা তাই। মানুষ যা দেখতে পায় তাই দেখুক। আমার দায়িত্ব-কর্তব্য অনুযায়ী, সাধারণ মানুষকে আমার সর্বোচ্চটাই দিতে হবে। যদি দেশের প্রয়োজনে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হয় তাহলে তা করতে হবে। এগুলো আমার বৈশিষ্ট্য নয়, কর্তব্য। আসল বা নকল মোদি বলে কিছু নেই। যদি রাজনীতির চশমা খুলে দেখেন তাহলে আসল মোদিকে দেখতে পাবেন। কিন্তু, আপনার রাজনৈতিক ধারণা দিয়ে বিচার করলে ভুল করবেন।’

First published: 09:45:03 AM Sep 03, 2016
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर