• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • সচেতনতা বৃদ্ধিতে অভিনব পদক্ষেপ, যমরাজের সাজে করোনা টিকা নিল মধ্যপ্রদেশ পুলিশ!

সচেতনতা বৃদ্ধিতে অভিনব পদক্ষেপ, যমরাজের সাজে করোনা টিকা নিল মধ্যপ্রদেশ পুলিশ!

তবে যমরাজের বেশ যে দেশের পুলিশ এই প্রথম ধারণ করল, এমনটা কিন্তু নয়। দেখা গিয়েছে যে করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে এই সাজে মাঝে মাঝেই দেশের ইতিউতি টহল দিচ্ছেন পুলিশকর্মীরা।

তবে যমরাজের বেশ যে দেশের পুলিশ এই প্রথম ধারণ করল, এমনটা কিন্তু নয়। দেখা গিয়েছে যে করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে এই সাজে মাঝে মাঝেই দেশের ইতিউতি টহল দিচ্ছেন পুলিশকর্মীরা।

তবে যমরাজের বেশ যে দেশের পুলিশ এই প্রথম ধারণ করল, এমনটা কিন্তু নয়। দেখা গিয়েছে যে করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে এই সাজে মাঝে মাঝেই দেশের ইতিউতি টহল দিচ্ছেন পুলিশকর্মীরা।

  • Share this:

#ভোপাল: বাঘে ছুঁলে আঠেরো ঘা আর পুলিশে ছুঁলে ছত্রিশ! এই প্রবাদই প্রমাণ করে দেয় যে সাধারণ মানুষের কাছে পুলিশ আর যমদূতের মধ্যে বড় একটা তফাত নেই! উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিকদের যে জনতা যমরাজের মতো ডরায়, তা-ও বড় অজানা তথ্য নয়!

কিন্তু এই ছোঁওয়ার হিসেবে হালফিলে আরও একটা ঘটনাকে যোগ না করলেই নয়, তা হল মারণ ভাইরাস করোনা! এ যদি শরীর ছুঁয়ে দেয়, তা হলে কত ঘা, সেটা হিসেব করা যাবে না! কিন্তু করোনার টিকা নিয়ে সাধারণ মানুষের বিভ্রান্তি এখনও কাটেনি। অনেকেই টিকা নিতে নারাজ! তাঁদের ধারণা, টিকা নিলে সুস্থ শরীর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ঠেলায় ব্যস্ত হয়ে পড়বে! এবার জনতাকে সেই ভুল ধারণা থেকে মুক্তি দিতে, করোনা থেকে মুক্তি দিতে, সচেতনতা বৃদ্ধিতে এগিয়ে এল সে-ই যমের মতোই ভয়ানক পুলিশ! যমরাজের সাজে করোনা টিকা নিয়ে প্রমাণ দিল যে দক্ষিণ দুয়ারে কাঁটা ফেলতে হলে আদতে কী করা উচিৎ!

ANI সংবাদমাধ্যমের একটি ট্যুইট সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশের ইনদওরের এই ঘটনাটি সম্পর্কে আমাদের অবহিত করেছে। পোস্টের সঙ্গের ছবিতে দেখা যাচ্ছে যে এক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে কালো-সোনালি জরিদার কস্টিউমে, মাথায় শিংওয়ালা মুকুট আর কাঁধে গদা নিয়ে, চোখে গগলস পরে এক পুলিশকর্মী যমরাজের সাজে বসে রয়েছেন। তাঁকে করোনার টিকা দিচ্ছেন এক স্বাস্থ্যকর্মী। তবে এটি কোন পুলিশ স্টেশনের উদ্যোগ, টিকা নেওয়া ওই পুলিশকর্মীর নাম কী, সেই সব তথ্য প্রকাশ করা হয়নি!

তবে যমরাজের বেশ যে দেশের পুলিশ এই প্রথম ধারণ করল, এমনটা কিন্তু নয়। দেখা গিয়েছে যে করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে এই সাজে মাঝে মাঝেই দেশের ইতিউতি টহল দিচ্ছেন পুলিশকর্মীরা। এর প্রথম নজির প্রকাশ্যে আসে গত বছরের এপ্রিল মাসে। সেই সময়ে সারা দেশে চলছে কঠিন লকডাউন। সবে শুরু হওয়ায় তার সঙ্গে ধাতস্থ হতে সমস্যা হচ্ছে দেশের মানুষের। এই পরিস্থিতিতে যমরাজ এবং যমদূতের সাজে পুলিশকর্মীদের বেঙ্গালুরুতে একটি ভ্যানে করে টহল দিতে দেখা গিয়েছিল। বক্তব্য অত্যন্ত সাফ- নিয়ম ভেঙে পথে বেরোলে যমরাজের খপ্পরে পড়তে হবে!

Published by:Pooja Basu
First published: