Home /News /national /
Babul Supriyo: তৃণমূলে ফের বড় দায়িত্বে বাবুল, সঙ্গে এই দুই নেতা! সিদ্ধান্তের পিছনে কী বার্তা?

Babul Supriyo: তৃণমূলে ফের বড় দায়িত্বে বাবুল, সঙ্গে এই দুই নেতা! সিদ্ধান্তের পিছনে কী বার্তা?

নতুন দায়িত্ব পাচ্ছেন বাবুল৷

নতুন দায়িত্ব পাচ্ছেন বাবুল৷

গত বছরই তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন কীর্তি আজাদ। ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপ জয়ী প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার কীর্তি।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: জাতীয় স্তরে ক্রমশ সংগঠন বৃদ্ধি করছে তৃণমূল।তথাকথিত বড় দলগুলি ভেঙে নেতারা যোগ দিচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলে। তৃণমূলের এক নেতা এ দিন দিল্লিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় দাবি করেছেন, 'লোকসভার তিনজন কংগ্রেস সাংসদ তৃণমূলের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন। একইভাবে যোগাযোগ রাখছেন কংগ্রেসের প্রাক্তন রাজ্যসভার তিন সাংসদ।'

এই আবহে অন্য দল থেকে তৃণমূলে যোগ দেওয়া তিন নেতাকে দলের জাতীয় মুখপাত্রের তালিকায় নতুন করে সংযোজন করতে চলেছে তৃণমূল। এই নেতারা হলেন - বাবুল সুপ্রিয়, কীর্তি আজাদ এবং মুকুল সাংমা।

গতবছর ১৮ সেপ্টেম্বরের দুপুরে আচমকাই তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা মোদি সরকারের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে তিনি বাংলার শাসক দলের পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন। পরে বালিগঞ্জ বিধানসভা থেকে বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: একটিও ভোট নষ্ট করা যাবে না! দিল্লিতে দলীয় সাংসদদের শাহি ক্লাস নেবে বিজেপি

গত বছরই তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন কীর্তি আজাদ। ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপ জয়ী প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার কীর্তি। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে লোকসভা ভোটের ঠিক আগে বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন। এর পর নয়াদিল্লিতে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেন। তৃণমূলে যোগ দেয়ার পর কীর্তি আজাদ বলেছিলেন, ‘‘বিভাজনের বিরুদ্ধে লড়াই করব। দেশে এখন মমতার মতোই নেত্রী চাই। ওঁর নেতৃত্বে মানুষের জন্য কাজ করব।’’

আরও পড়ুন: ভোট চাইতে প্রচারে বাংলায় আসবেন না যশবন্ত, কেন ?

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন কীর্তি। একইভাবে আচমকা তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন মেঘালয়ের তৎকালীন বিরোধী দলনেতা মুকুল সাংমা-সহ কংগ্রেসের ১২ বিধায়ক। মেঘালয়ে কংগ্রেসের বিধায়ক সংখ্যা ছিল ১৮। ১২ বিধায়ক যোগ দেওয়ায় রাজ্যে প্রধান বিরোধীদল হল তৃণমূল। ৬০ আসনের মেঘালয় বিধানসভায় এনডিএ-র ৪০ বিধায়ক।

তৃণমূল সূত্রের খবর, এই তিন নেতাকে দলের জাতীয় মুখপাত্রদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। খুব শীঘ্রই এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করবে দল। তৃণমূলে যোগ দিয়ে ইতিমধ্যেই সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন শত্রুঘ্ন সিনহাও৷ ফলে অন্য দল থেকে আসা জাতীয় স্তরের নেতাদেরও যে তৃণমূল যথাযথ মর্যাদা ও গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে, প্রকারন্তরে সেই বার্তাই দিতে চাইছে ঘাসফুল শিবির৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Babul supriyo, TMC

পরবর্তী খবর