Home /News /national /

Tripura: মজিবর ইস্যুতে সুর চড়াচ্ছে তৃণমূল, ত্রিপুরা নিয়ে সরব ঘাসফুল নেতৃত্ব

Tripura: মজিবর ইস্যুতে সুর চড়াচ্ছে তৃণমূল, ত্রিপুরা নিয়ে সরব ঘাসফুল নেতৃত্ব

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

TMC: সেদিন ঠিক কি ঘটেছিল জানালেন শান্তনু সেন ও কুণাল ঘোষ 

  • Share this:

#আগরতলা: ত্রিপুরায় কর্মসূচী পালন করতে গিয়ে মৃত্যু হওয়া নেতা মজিবর ইসলাম মজুমদারের পরিবারের পাশে দাঁড়াবে তৃণমূল কংগ্রেস৷ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার বিমানে তার দেহ নিয়ে আসা হবে ত্রিপুরায়। আগামীকাল তার গ্রামের বাড়িতে শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হবে। গত ২৮শে আগস্ট বাঁধারঘাটে, তৃণমূল কংগ্রেসের একটি যোগদান কর্মসূচি ছিল। সেখানেই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল। মজিবর ইসলাম মজুমদারের বাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়৷ ভেঙে দেওয়া হয় তাঁর হাত। তাঁকে রড দিয়ে আঘাত করা হয়েছিল বলেও অভিযোগ করেছে তৃণমূল। তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে সেদিন আহত হয়েছিলেন শুভঙ্কর। সেদিনের ঘটনার কথা জানিয়েছেন, সাংসদ শান্তনু সেন ও কুণাল ঘোষ।

তাঁরা জানান, সেদিন আগরতলার মিছিল শেষ করেই ঘটনাস্থলে যান কুণাল ঘোষ, শান্তনু সেন ও মামুন খান। পুলিশের উপস্থিতিতেই উদ্ধার করা হয় দু'জনকে। অভিযোগ তাঁরা ঘটনাস্থলে পৌছনোর আগেই পুলিশ কন্ট্রোল রুমে জানিয়েছিলেন মামুন খান। তাঁরা পৌছে দেখেন, পুলিশ বেশ কয়েকজনকে তাড়া করছে। কাউকেই আটক করছে না। সঙ্গে সঙ্গেই আহতদের নিয়ে আসা হয় আগরতলা জিবি হাসপাতালে। সেখানেই শুরু হয়ে চিকিৎসা। তবে দু'জনের আঘাত অনেকটাই বেশি থাকায় পরেরদিন সকালেই উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয় কলকাতায়। বাঁধারঘাটে সেদিন ছিল একটা যোগদান পর্ব। সেখানেই হামলার অভিযোগ এনেছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন - ত্রিপুরায় আজই নিয়ে আসা হবে নিহত তৃণমূলকর্মী মজিবর ইসলাম মজুমদারের দেহ, আসছেন ব্রাত্য-শান্তনুও...

কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, মইদুলের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেল গোটা বাড়ি তছনছ করা হয়েছে। ভাঙচুর চালানো হয়েছে তাঁদের ঘরে ঢুকে। লণ্ডভণ্ড অবস্থায় পড়ে ছিল ঘরের জিনিসপত্র। যোগদান পর্বকে ঘিরে যে আয়োজন হয়েছিল। সেখানেও ভাঙচুর চালানো হয়েছিল৷ ভাঙা হয়েছিল একাধিক চেয়ার, টেবিল।  তৃণমূল কংগ্রেস নেতা সুবল ভৌমিক বলেন, "বাড়ির মহিলাদের ওপরেও আক্রমণ করা হয়েছিল। মারধর করা হয়েছিল। ওরা কাউকে ছাড়ছে না।" সাংসদ শান্তনু সেন জানিয়েছেন, " বাঁধারঘাটে যাওয়ার সময় আমাদের পুলিশ বাধা দিয়েছিল৷ কিন্তু অপরাধীদের গ্রেফতার করেনি।"  কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, "যারা অত্যাচার করছে। যারা প্রতিদিন মারধর করছে। আমাদের কর্মীদের ভয় দেখাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না পুলিশ। আমাদের শুধু বাধা দেওয়া হচ্ছে। মানুষ এর জবাব দেবে।"

আরও পড়ুন: ভয়াবহ! একলাফে ৯১ হাজার ছুঁই ছুঁই দৈনিক সংক্রমণ! করোনা-কম্পে কাঁপছে গোটা দেশ...

সাংসদ শান্তনু সেন জানিয়েছেন, "আমাদের কর্মীদের প্রতি একের পর এক হামলা হয়ে যাচ্ছে। প্রশাসন চুপ করে বসে আছে।" ত্রিপুরার ঘটনা নিয়ে  কলকাতা থেকেই সরব হয়েছেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, ত্রিপুরা প্রদেশ নেতৃত্ব ও কর্মীদের তিনি জানিয়েছেন, "বিজেপি ১০-০ গোলে হেরে গেছে। আজ সবাই আমাদের বক্তব্য শুনছেন। ত্রিপুরাকে আশ্বস্ত করছি। আমরা পাশে আছি। আগামী দিনে আমাদের লড়াই অনেক বড়। বাংলায় সীমাবদ্ধ নই। ত্রিপুরায় আমরা সংগঠন শুরু করেছি। তাতে বিজেপির পায়ের তলায় মাটি সরে গেছেজীবন যাবে, প্রাণ যাবে। যা পারবে করে নাও। ত্রিপুরায় ঢুকেছি। ওখানে সরকার গড়ব। অক্ষরে অক্ষরে পালন করব। কোনও দাদাগিরি ত্রিপুরায় চলবে না। তৈরি থাকুন। মমতা যেদিন পা রাখবেন, বুঝবেন ভূমিকম্প হবে।"

Abir Ghosal

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: AITMC, Tripura

পরবর্তী খবর