Nandigram: ভোট মিটলেও নন্দীগ্রামে অশান্তির আশঙ্কা? কমিশনকে দিব্যেন্দুর চিঠি ঘিরে নতুন জল্পনা

Nandigram: ভোট মিটলেও নন্দীগ্রামে অশান্তির আশঙ্কা? কমিশনকে দিব্যেন্দুর চিঠি ঘিরে নতুন জল্পনা

ভোট মিটেছে নন্দীগ্রামে, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে এবার কমিশনকে চিঠি তৃণমূল সাংসদের

আগামী দিনে যাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি কোনও ভাবেই ব্যহত না হয় তা দেখতেই কমিশনকে তাঁর এই চিঠি বলে জানিয়েছেন দিব্যেন্দু অধিকারী।

  • Share this:

#নন্দীগ্রাম: নন্দীগ্রামে ভোট পর্ব মিটলেও শান্তি, সম্প্রীতি যাতে বজায় থাকে তার জন্য কমিশনকে চিঠি দিয়ে জানালেন তমলুকের তৃণমূল সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী। নন্দীগ্রাম নিয়ে বিশেষ নজর ছিল নির্বাচন কমিশনের। ভোটের দিন বিক্ষিপ্ত কিছু অশান্তি ছাড়া মোটামুটি শান্তিপূর্ণ ছিল ভোট। কিন্তু আগামী দিনে যাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি কোনও ভাবেই ব্যহত না হয় তা দেখতেই কমিশনকে তাঁর এই চিঠি বলে জানিয়েছেন দিব্যেন্দু অধিকারী।

প্রসঙ্গত, নন্দীগ্রাম বিধানসভা তমলুক লোকসভার মধ্যেই পড়ে। ফলে একজন সাংসদের এই চিঠি যথেষ্ট অর্থবহ বলে মত রাজনৈতিক মহলের। কমিশনকে লেখা চিঠিতে দিব্যেন্দু অধিকারী ভোট শান্তিপূর্ণ হওয়ার জন্যে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে এও বলেছেন, ভোট পরবর্তীতে নন্দীগ্রাম বিধানসভা এলাকার যা রাজনৈতিক পরিস্থিতি তাতে যে কোনও সময় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ব্যাহত হতে পারে।

রাজনৈতিক মহলের মতে, একজন নির্বাচিত সাংসদ যদি সাম্প্রদায়িক হানাহানির আশঙ্কা প্রকাশ করেন তাহলে বুঝতে হবে ওই নির্দিষ্ট এলাকার পরিস্থিতি ঠিক কতটা গুরুতর। আবার তিনি যখন চিঠি লিখছেন, তখনও তিনি খাতায় কলমে বাংলার শাসকদলের সাংসদ। যদিও অধিকারী পরিবারের সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্ক এখন সাপে নেউলের মতো। নন্দীগ্রামে যে মেরুকরণ তীব্র হয়েছে তা ভোট প্রচারের সময় থেকেই পরিষ্কার হয়েছে। ভোটের দিন দুই আগে থেকেই তা টের পাওয়া গিয়েছে।

ভোট মিটলেও এই উত্তেজনা যাতে আগামীদিনে এই জনপদের মধ্যে কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি করতে না পারে সেই ব্যপারেই কমিশনকে সতর্ক করে এই চিঠি শান্তিকুঞ্জের সেজো ছেলের। বিগত দিনগুলিতে একাধিক জায়গায় এমন অশান্তির খবর মিলেছে। কখনও বাদুড়িয়া, বসিরহাট। কখনও ধূলাগড়। কখনও ভাটপাড়া, ভদ্রেশ্বর। বাংলার একাধিক জনপদে সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষ দেখা গিয়েছে বহুবার। নন্দীগ্রামে যাতে সেই পরিস্থিতি তৈরি না হয় সে ব্যাপারেই আগাম চিঠি লিখে কমিশনকে জানালেন দিব্যেন্দু অধিকারী। কারণ এখন রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব কমিশনের।

Abir Ghoshal

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: