Dibyendu Adhikari Meets Modi: মাঝরাতে মোদির দরজায় দিব্যেন্দু, এবার যাচ্ছেন শুভেন্দু! দিল্লিতে মহারহস্য

দিল্লিতে হলটা কী?

Dibyendu Adhikari Meets Modi: দিল্লি বিমানবন্দরে নামার পর দিব্যেন্দু অধিকারী যান বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের অতিথি নিবাসে। সেখান থেকে ৭, লোক কল্যাণ মার্গে, নরেন্দ্র মোদির বাসভবনে।

  • Share this:

#‌‌নয়াদিল্লি: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সচরাচর রাত ১০টার পর কারও সঙ্গে দেখা করেন না। করোনা অতিমারির আবহে তো নয়ই। কিন্তু, মঙ্গলবার মাঝরাতে তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারীর গোপন দিল্লি সফরে মাঝরাতে দরজা খোলা ছিল প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের। ৭, লোককল্যাণ মার্গে দিব্যেন্দু যখন ঢোকেন, তখন রাত সাড়ে ১১টা। মিনিট চল্লিশ প্রধানমন্ত্রীর আবাসে ছিলেন তিনি। বৈঠক মিনিট দশেকের। বিশেষ সূত্রে রাতেই এই খবর পায় নিউজ এইট্টিন বাংলা। রাত ৮টা ৪০ মিনিটের বিমানে দিল্লি যান তৃণমূল সাংসদ। ফেরেন গভীর রাতের বিমানে। দিল্লি বিমানবন্দরে নামার পর দিব্যেন্দু যান বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের অতিথি নিবাসে। সেখান থেকে ৭, লোক কল্যাণ মার্গে, নরেন্দ্র মোদির বাসভবনে।

রাতেই দিব্যন্দু অধিকারীকে টেলিফোনে এই বৈঠক নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দেননি। তবে, ঘনিষ্ঠমহলে দিল্লি যাত্রার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন দিব্যেন্দু। বলেছেন, বাংলায় করোনা টিকাকরণ প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন তিনি। সেইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

এরই মধ্যে শুভেন্দু অধিকারী দেখা করতে চাইছেন বিজেপি সভাপতি জগৎপ্রকাশ নাড্ডা এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে। এই ঘটনায় রাজ্য-রাজনীতিতে নতুন করে জল্পনা শুরু হয়েছে। জল্পনার যথেষ্ট কারণও রয়েছে। কারণ, দিব্যেন্দুর দাদার নাম শুভেন্দু অধিকারী। তিনি রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারিয়ে নন্দীগ্রামের বিধায়ক। এমনিতেই শুভেন্দু বিজেপি’‌তে যোগ দেওয়ার পর থেকেই অধিকারী পরিবারের সঙ্গে দূরত্ব বেড়েছে তৃণমূল তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। একদিকে যেমন রাজনৈতিক ভাবে রাজ্য সরকার ও মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে চলেছেন শুভেন্দু, অন্যদিকে, শুভেন্দুর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রুজু হয়েছে রাজ্যে। শুভেন্দু-দিব্যেন্দুর বাবা প্রবীণ রাজনীতিক তথা কাঁথির তৃণমূল সাংসদ শিশির অধিকারীর বিরুদ্ধে দলত্যাগ বিরোধী আইনে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়ে লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠিও লিখেছেন তৃণমূলের লোকসভার দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত, শুভেন্দু বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার পর বিজেপি-তে যোগ দেন শুভেন্দু-দিব্যেন্দুর ছোট ভাই সৌম্যেন্দু। অধিকারীর পরিবাবের কর্তা শিশিরও কাঁথিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সভায় গিয়ে হাজির হয়েছিলেন। দিব্যেন্দু বিজেপি’‌র সভায় যাননি। তবে, দলের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলেছেন তিনিও। এই আবহে মাঝরাতে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দিব্যেন্দুর সাক্ষাৎ নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে।

Published by:Suman Biswas
First published: