Home /News /national /
Prayagraj Murder Case: প্রয়াগরাজ নিয়ে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে তৃণমূল, পুলিশের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ

Prayagraj Murder Case: প্রয়াগরাজ নিয়ে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে তৃণমূল, পুলিশের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ

প্রয়াগরাজ কাণ্ড নিয়ে যোগী সরকারের উপরে চাপ বাড়াচ্ছে তৃণমূল৷

প্রয়াগরাজ কাণ্ড নিয়ে যোগী সরকারের উপরে চাপ বাড়াচ্ছে তৃণমূল৷

  • Share this:

# নয়াদিল্লি :  প্রয়াগরাজের খেবরাজপুরের ঘটনা নিয়ে যোগী প্রশাসনের উপরে আরও চাপ বাড়াতে তৎপর তৃণমূল কংগ্রেস। খেবরাজপুরে একই পরিবারের পাঁচজনকে খুন করে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়ার ঘটনা নিয়ে এবার জাতীয় মানবধিকার কমিশনের কাছে সময় চাইল তৃণমূলের সত্যসন্ধানী কমিটি।

আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কোনও সময় দেওয়ার আবেদন জানিয়েছে দোলা সেনের নেতৃত্বাধীন কমিটি। মানবধিকার কমিশনে লেখা চিঠিতে প্রয়াগরাজের পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তোলা হয়েছে।  নিহতের ছেলের লিখিত বয়ানের ভিত্তিতে এফআইআর করা হয়েছে বলে দাবি করেছিল পুলিশ। যদিও তৃণমূলের দাবি, এফআইআর-এর কপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, তাঁর মৌখিক বয়ান রেকর্ড করে এফআইআর করা হয়েছে। তৃণমূলের দাবি, রাজ্য পুলিশের উপর আস্থা হারিয়েছেন ওই পরিবারের জীবিত সদস্য এবং সিবিআই তদন্তের দাবি করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: কেন এতটা এগিয়েও কংগ্রেসে যোগ দিলেন না প্রশান্ত কিশোর? দলকেই খোঁচা পিকে'র ট্যুইটে

তৃণমূলের আবেদনে উল্লেখ, নিহত পরিবারের সদস্য তাঁদের জানিয়েছেন, তাঁর স্ত্রী এবং বিশেষভাবে সক্ষম বোনের নগ্ন দেহ উদ্ধার হয়েছে। তাঁদের যৌনাঙ্গ থেকে রক্তপাত হয়েছে। সুনীলের দাবি, তাঁদের ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। যদিও বারবার বলা সত্ত্বেও পুলিশ ধর্ষণের অভিযোগ নেয়নি বলে অভিযোগ সুনীল যাদবের।

দোলা সেনের নেতৃত্বধীন কমিটির দাবি, খেবরাজপুরের ওই পরিবারের সঙ্গে যে ঘটনা ঘটেছে, তা কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। গত একমাসে ৩১টি খুনের ঘটেছে প্রয়াগরাজে। ফলে রাজ্য পুলিশ, প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে বলে অভিযোগ তৃণমূলের।

আরও পড়ুন: মমতার সঙ্গে আন্দোলনে নামতেও তৈরি! বিজেপি-র মাথাব্যথা বাড়িয়ে দিলেন অর্জুন

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য,  খেবরাজপুরে গিয়ে নিহতদের পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছিল তৃণমূলের পাঁচ সদস্যের সত্যসন্ধানী দল। সাংসদ দোলা সেনের নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দলে ছিলেন সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর, সাকেত গোখলে, রাজ্যের মন্ত্রী জ্যোৎস্না মাণ্ডি এবং উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন বিজেপি নেতা ললিতেশ ত্রিপাঠী।

বীরভূমের রামপুরহাটের বগটুই এবং নদিয়ার হাঁসখালির ঘটনার পর সেখানে তথ্যসন্ধানী দল পাঠিয়েছি বিজেপি। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ৩৫৫, ৩৫৬ ধারা প্রয়োগের দাবি তোলা হয়। জাহাঙ্গিরপুরী এবং প্রয়াগরাজের খেবরাজপুরে দল পাঠিয়ে বিজেপিকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল তৃণমূল। সে রাজ্যের পরিস্থিতি দেশবাসীর সামনে আনা হবে বলে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন সাংসদ দোলা সেন।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: TMC, Uttar Pradesh

পরবর্তী খবর