corona virus btn
corona virus btn
Loading

'পরিযায়ী শ্রমিকরা অত্যন্ত কষ্টে আছেন, ওদের আর কষ্ট দেবেন না' বরেলির ঘটনায় ট্যুইট প্রিয়াঙ্কার

'পরিযায়ী শ্রমিকরা অত্যন্ত কষ্টে আছেন, ওদের আর কষ্ট দেবেন না' বরেলির ঘটনায় ট্যুইট প্রিয়াঙ্কার

উত্তরপ্রদেশে শ্রমিকদের জলকামান দিয়ে গায়ে 'রাসায়নিক' স্প্রের অভিযোগ। বরেলি পৌঁছতেই ভিন রাজ্য থেকে ঘরেফেরা শ্রমিকদের পুলিশের সামনেই রাস্তায় বসিয়ে গায়ে 'রাসায়নিক' স্প্রে করা হয় বলে অভিযোগ

  • Share this:

#বরেলি: উত্তরপ্রদেশে শ্রমিকদের জলকামান দিয়ে গায়ে  'রাসায়নিক' স্প্রের অভিযোগ। বরেলি পৌঁছতেই  ভিন রাজ্য থেকে ঘরেফেরা শ্রমিকদের পুলিশের সামনেই রাস্তায় বসিয়ে গায়ে 'রাসায়নিক' স্প্রে করা হয় বলে অভিযোগ। উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনায় দেশজুড়ে শোরগোল।

সরব হন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি  বঢড়াও। ট্যুইটারে তিনি উত্তরপ্রদেশ সরকারের কাছে আর্জি জানান, 'পরিযায়ী শ্রমিকরা অত্যন্ত কষ্টে আছেন, ওদের আর কষ্ট দেবেন না। শ্রমিকদের গায়ে কেমিক্যাল স্প্রে করলে ওদের উপকার কিছু হবে না, বরং ওদের স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি হবে।'

যোগীরাজ্যে করোনা স্প্রে! লকডাউনের জেরে ভারতের বিভিন্ন শহরে আটকে পড়েছেন ভীনরাজ্য থেকে কাজ করতে আসা পরিযায়ী শ্রমিকরা। তাঁদের মধ্যে অনেকেই শহর ছেড়ে ফিরে যাচ্ছেন নিজেদের বাড়ি। বরেলিতে তেমনই নিদেজের বাড়িতে ফিরছিলেন একদল শ্রমিক। বরেলি প্রশাসন সেই সমস্ত শ্রমিকদের জেলায় ঢুকতে দেওয়ার আগে, দলে দলে রাস্তায় বসিয়ে, প্রকাশ্যে 'রাসায়নিক' স্প্রে করে।

শ্রমিকদের উপর স্প্রে করার ভিডিও ভাইরাল হয়। দেখা যায়, বরেলির কাছে একটি চেকপয়েন্টে রাস্তায় হাঁটু গেড়ে বসে রয়েছেন একদল পরিযায়ী শ্রমিক। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন মহিলাও। সম্পূর্ণ সতর্কতায় মোড়া প্রশাসনিক আধিকারিকা শ্রমিকদের গায়ে হোস পাইপ দিয়ে স্প্রে করছেন। অভিযোগ শ্রমিকদের গায়ে রাসায়নিক স্পরে করা হয়। শ্রমিকদের গায়ে স্বাভাবিকভাবেই পোশাক রয়েছে, রয়েছে দু-হাত দিয়ে আঁকড়ে ধরে রাখা ব্যাগ... জলে সবকিছুই তখন ভিজে চুপচুপে।

যদিও, বরেলির COVID-19 মোকাবিলার ভারপ্রাপ্ত নোডাল অফিসার অশোক গৌতম নিশ্চিত করেন, '' প্রশাসন শ্রমিকদের স্যানিটাইজার আর ক্লোরিন মিশ্রিত জলে স্নান করিয়েছে। কিন্তু কোনওভাবেই তা কেমিক্যাল সলিউশন ছিল না!' তিনি আরও বলেন, '' আমরা শ্রমিকদের নিরাপদ রাখতেই এমন পদক্ষেপ করেছি। তাঁদের চোখ বন্ধ রাখতেও বলা হয়। এটা খুব স্বাভাবিক যে তাঁরা ভিজে যাবে। এই মুহূর্তে এই বিষয়টি দেখার থেকে তাঁদের সুরক্ষিত রাখাটাই বেশি জরুরি!''

First published: March 30, 2020, 6:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर