দৌড় শুরু থ্রি টায়ার ইকনমিক ক্লাস কোচের ট্রেনের,জেনে নিন ঝকঝকে নতুন ফিচার্সগুলি

দৌড় শুরু থ্রি টায়ার ইকনমিক ক্লাস কোচের ট্রেনের,জেনে নিন ঝকঝকে নতুন ফিচার্সগুলি

কম পয়সায় বেশি যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্য দেওয়ার লক্ষ্যে নয়া কদম ভারতীয় রেলের৷

কম পয়সায় বেশি যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্য দেওয়ার লক্ষ্যে নয়া কদম ভারতীয় রেলের৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: প্রথমবার থ্রি-‌টায়ার ইকনমিক ক্লাস কোচ চালু করল ভারতীয় রেল। যা এয়ার কন্ডিশনার দিয়ে সজ্জিত হয়েছে। ট্রেনটি প্রথম যাত্রা করেছিল রেল কোচ ফ্যাক্টরি কাপুরতলা থেকে লখনউ পর্যন্ত। মন্ত্রকের মতে, এই ট্রেনটি সস্তার পরিষেবাগুলির পাশাপাশি বিশ্বমানের ভ্রমণের অভিজ্ঞতা দেয়। রেলমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, এই ট্রেন বিশ্বমানের ভ্রমণের অভিজ্ঞতা দেবে যাত্রীদের। এই অর্থনৈতিক এসি ট্রেনের কোচগুলি বর্তমান এসি থ্রি-‌টায়ার এবং নন এসি স্লিপার ক্লাস ট্রেনগুলির মধ্যে অবস্থান করবে।

আরসিএফ গত বছরের অক্টোবরে এই ট্রেনের ধারণা এবং নকশা নিয়ে কাজ শুরু করে। সস্তা এবং সর্বোত্তম ভ্রমণের অভিজ্ঞতা সরবরাহ করতে, এতে অনেকগুলি নতুনত্ব রাখা হয়েছে।

দেখে নেওয়া যাক এই ট্রেনের বিশেষ সুবিধাগুলি:‌১)‌ বার্থের সংখ্যা ৭২ থেকে ৮৩ করা হয়েছে।২)‌ উচ্চ ভোল্টেজ বৈদ্যুতিক সুইচ গিয়ার স্থানান্তরিত করার কারণে আরও ১১ টি বার্থ যুক্ত করা সম্ভব হয়েছে।৩)‌ প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশেষত তৈরি একটি টয়লেট চালু করেছেন। উভয় ভারতীয় এবং পাশ্চাত্য ধাঁচের টয়লেটগুলির নকশাগুলি আপগ্রেড করা হয়েছে। চওড়া করা হয়েছে সেগুলি।৪)‌ এসি-‌র নকশা পরিবর্তন করা হয়েছে এবং প্রতিটি বার্থকে শীতলকরণের উন্নতির জন্য একটি ভেন্ট দেওয়া হয়েছে।৫)‌ জখম এড়াতে সিট এবং বার্থের নকশাগুলি, ফোল্ডেবল স্ন্যাক টেবিলগুলি পরিবর্তিত হয়েছে। ৬)‌ একটি সাধারণ সকেটের পাশাপাশি প্রতিটি বার্থে পৃথক চার্জিং পয়েন্ট এবং রিডিং লাইট থাকছে।৭)‌ মাঝের এবং উপরের বার্থের মধ্যে স্থান বৃদ্ধি করা হয়েছে। সঙ্গে উন্নত মই লাগানো হয়েছে।৮)‌ ইনফরমেশন সিস্টেম প্রযুক্তির মাধ্যমে যাত্রী স্বাচ্ছন্দের দিকে নজর দেওয়া হয়েছে। ৯)‌ অগ্নি নির্বাপক ব্যবস্থা আরও উন্নত করা হয়েছে। ১০)‌ এসি সহ বিভিন্ন উন্নত ব্যবস্থা ট্রেনটিকে আরও সুন্দর করে তুলেছে।এই ট্রেনের কোচগুলির উৎপাদন আগামী মাস থেকে শুরু হবে। আরসিএফ চলতি অর্থবছরে ২৪৮টি এই ধরনের ট্রেন তৈরির পরিকল্পনা করেছে। বিলাসবহুল এই ট্রেনটি মন কাড়বে যাত্রীদের এমনটাই মনে করছে রেল কর্তৃপক্ষ।

ABIR GHOSHAL

Published by:Debalina Datta
First published: