• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • Burdwan: চোখ রাঙাচ্ছে ওমিক্রন, মঙ্গল কামনায় বছরের প্রথম দিন দর্শনার্থীদের ভিড় সর্বমঙ্গলা মন্দিরে

Burdwan: চোখ রাঙাচ্ছে ওমিক্রন, মঙ্গল কামনায় বছরের প্রথম দিন দর্শনার্থীদের ভিড় সর্বমঙ্গলা মন্দিরে

কোনও শুভ কাজ শুরু করার আগে বর্ধমানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সর্বমঙ্গলার মন্দিরে পুজো দেন বাসিন্দারা। সকাল সকাল স্নান সেরে শুদ্ধ পোশাক পরে পুজোর ডালি হাতে নিয়ে প্রতিদিন মন্দিরে উপস্থিত হন অনেকেই

কোনও শুভ কাজ শুরু করার আগে বর্ধমানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সর্বমঙ্গলার মন্দিরে পুজো দেন বাসিন্দারা। সকাল সকাল স্নান সেরে শুদ্ধ পোশাক পরে পুজোর ডালি হাতে নিয়ে প্রতিদিন মন্দিরে উপস্থিত হন অনেকেই

কোনও শুভ কাজ শুরু করার আগে বর্ধমানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সর্বমঙ্গলার মন্দিরে পুজো দেন বাসিন্দারা। সকাল সকাল স্নান সেরে শুদ্ধ পোশাক পরে পুজোর ডালি হাতে নিয়ে প্রতিদিন মন্দিরে উপস্থিত হন অনেকেই

  • Share this:

বর্ধমান: কোনও শুভ কাজ শুরু করার আগে বর্ধমানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সর্বমঙ্গলার মন্দিরে পুজো দেন বাসিন্দারা। সকাল সকাল স্নান সেরে শুদ্ধ পোশাক পরে পুজোর ডালি হাতে নিয়ে প্রতিদিন মন্দিরে উপস্থিত হন অনেকেই। তবে শনিবার ইংরেজি বছরের প্রথম দিনে মন্দিরে ভিড়টা ছিল অনেক বেশি। সারা বছর পরিবারের সকলের মঙ্গল কামনায় পুজো দিলেন অনেকেই। পুজো দিয়ে মালসা ভোগ সংগ্রহ করে বাড়ি ফিরলেন দর্শনার্থীরা।

আরও পড়ুন: বর্ষবরণে দিঘায় কড়া পুলিশ-প্রশাসন! করোনাবিধি লঙ্ঘন ও মাত্রাতিরিক্ত মদ্যপানে গ্রেফতার ৪০

মন্দিরে পুজো দিতে আসা বাসিন্দারা বলছেন, '' গত দু  বছর করোনার কারণে উদ্বেগে উৎকণ্ঠায় দিন কেটেছে। এখন আবার চোখ রাঙাচ্ছে ওমিক্রন। লকডাউনের সেই দিনগুলি যাতে আর না ফিরে আসে সেই কামনা করছি মায়ের কাছে। কর্মহীন দিনগুলি পিছনে ফেলে বাসিন্দারা যাতে নতুন করে নিশ্চিন্ত জীবন যাপনের দিশা খুঁজে পায় সেই প্রার্থনাই করা হচ্ছে মায়ের কাছে। ফেলে আসা বছরে প্রাকৃতিক দুর্যোগ, করোনা সংক্রমণ ও লকডাউনের কারণে বহু পরিবারে বিপর্যয় নেমে এসেছিল। কাজ হারিয়েছেন বহু মানুষ।' তাই এবার যাতে প্রকৃতি অনুকূলে থাকে সেই কামনাই করছেন সকলে।

আরও পড়ুন: করুণ পরিণতি... ১ মাসের শিশুকন্যা ও দুই ছেলেকে নিয়ে নদীতে ঝাঁপ দিলেন মা

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাসিন্দারা যাতে পুজো দিতে পারেন তা নিশ্চিত করতে সব রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে সর্বমঙ্গলা মন্দির কর্তৃপক্ষ। রাজ আমলে প্রতিষ্ঠিত বর্ধমানের দেবী সর্বমঙ্গলা মন্দির। মা সর্বমঙ্গলাকে রাঢ়বঙ্গের দেবী বলা হয়। তাই তাঁর আর এক নাম রাঢ়েশ্বরী। বর্ধমানে তিনি অধিষ্ঠাত্রী। যে কোনও শুভ কাজে বর্ধমানের বাসিন্দারা মা সর্বমঙ্গলা মন্দির এসে পুজো দেন। মায়ের আশীর্বাদ প্রার্থনা করেন। প্রতি বছর ইংরেজি বছরের প্রথম দিনটিতে অগণিত ভক্ত এই মন্দিরে পুজোর ডালি নিয়ে ভিড় করেন। ভিড় সামলাতে অন্যান্যবার প্রচুর সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা হয়।উপস্থিত থাকে পুলিশও। এবারও সেই ছবি ধরা পড়ল। গত দু বছরের তুলনায় এবার দর্শনার্থীদের ভিড় বেশি ছিল। দূর দূরান্ত থেকেও এসেছিলেন পুন্যার্থীদের অনেকে।

Published by:Rukmini Mazumder
First published: