corona virus btn
corona virus btn
Loading

এক দিন দু'দিন নয়, রামমন্দির দেখবেন বলে ২৮ বছর না খেয়ে ছিলেন এই বৃ্দ্ধা

এক দিন দু'দিন নয়, রামমন্দির দেখবেন বলে ২৮ বছর না খেয়ে ছিলেন এই বৃ্দ্ধা
নিজের ঠাকুরঘরে বৃদ্ধা ঊর্মিলাদেবী।

৮৭ বছর বয়সি এই বৃদ্ধার বাড়ি জব্বলপুরের বিজয়নগরে।

  • Share this:

#জব্বলপুর: একদিন দু'দিন নয়। ২৮ বছর কোনও রকম কোনও তৈরি করা খাবার ছুঁয়ে দেখেননি ঊর্মিলাদেবী। বয়েস ৮৭। শরীর নুয়ে পড়েছ, তবু মন টলেনি। শুধুই ফলমূল আর দুধ খেয়ে কাটিয়ে দিয়েছেন। কারণ? রামভক্তি।

হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও নির্জলা সত্যি এটাই। ২৮ বছর আগে রামের নামেই শপথ নেন প্রৌঢ়ত্বে পৌঁছনো ঊর্মিলা যে যতদিন না রামমন্দির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হচ্ছে ততদিন খাবার ছোঁবেন না, যেমন কথা তেমন কাজ। ভারতের রাজনীতিতে বারবার পালাবদল হয়েছে, রামমন্দির হবে কি হবে না তাই নিয়ে নানা দোলাচল তৈরি হয়েছে, অটল থেকেছেন ঊর্মিলা। আজ যখন এতকিছুর পরে শিলান্যাসের প্রস্তুতি চলছে, ঊর্মিলার চোখে স্বপ্নপূরণের হাসি।

২৮ বছর আগে সে এক উত্তাল সময়। করসেবকরা অযোধ্যার বিতর্কিত কাঠামোটি যখন ভাঙেন, তা নিয়ে দেশে আগুন জ্বলে যায়। রামভক্ত ঊর্মিলা সবটাই খবরের কাগজে পড়েন। তখনই ঊর্মিলা সিদ্ধান্ত নেন যে, এর সমাধান না হওয়া পর্যন্ত অন্নগ্রহণ করবেন না। শুধু জীবত থাকতে দু'বেলা সামান্য ফলাহার আর দুধ খাওয়া এই ছিল তাঁর রুটিন।

৮৭ বছর বয়সি এই বৃদ্ধার বাড়ি জব্বলপুরের বিজয়নগরে। গত ২৮ বছর তাঁর পরিবার তাঁর সংকল্প পূরণে সাহায্য করেছে, স্বাস্থ্যের খোঁজ রেখেছে প্রতিনিয়ত, কিন্তু কখনও জোর করে তাঁর উপর পাল্টামতও চাপিয়ে দেয়নি।

আগামী ৫ অগাস্ট অযোধ্যার রামমন্দিরের শিলান্যাস। খুব ছোট পর্যায়ের অনুষ্ঠান করে এই শিলান্যাস হচ্ছে করোনার আবহে। ঊর্মিলাদেবী সর্বন্তকরণে চেয়েছিলেন এই অনুষ্ঠানে পৌঁছতে কিন্তু পরিবারের তরফে তাঁকে পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝিয়ে নিবৃত্ত করা হয়েছে। আপাতত ভিডিও কনফারেন্সে গোটা অনুষ্ঠানটি যাতে তিনি দেখতে পারেন তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে, উর্মিলাদেবী শুধু প্রহর গুণছেন, সবুরের মিঠে ফল আজ তাঁর হাতে।

Published by: Arka Deb
First published: August 2, 2020, 4:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर