উত্তরাখণ্ড বিপর্যয়: যে বিষয়গুলি আপনার জানা প্রয়োজন

উত্তরাখণ্ড বিপর্যয়: যে বিষয়গুলি আপনার জানা প্রয়োজন

Things You Need to Know About Uttarakhand Flood

উত্তরাখণ্ডে চামোলি জেলায় মেঘভাঙা বৃষ্টিতে অলকানন্দ নদীর উপর শুরু হয়েছে প্রবল তুষারধস। রবিবার সকাল পৌনে এগারোটা নাগাদ ধৌলিগঙ্গা নদীতে ভয়ঙ্কর বন্যা হয়েছে৷

  • Share this:

    #দেহরাদুন: উত্তরাখণ্ডে চামোলি জেলায় মেঘভাঙা বৃষ্টিতে অলকানন্দ নদীর উপর শুরু হয়েছে প্রবল তুষারধস। রবিবার সকাল পৌনে এগারোটা নাগাদ ধৌলিগঙ্গা নদীতে ভয়ঙ্কর বন্যা হয়েছে৷ আট বছর আগের কেদারনাথের স্মূতি ফিরিয়েছে উত্তরাখণ্ডের বিপর্যয়৷

    এই  ঘটনায় যে বিষয়গুলি আপনার জানা প্রয়োজন:

    ১) ১৫০ জনের ওপর শ্রমিক নিখোঁজ৷ যাঁরা ঋষিগঙ্গা নদীর উপর তৈরি হওয়া বিদ্যুৎ প্রকল্পে কাজ করছিলেন৷ রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর (State Disaster Response Force, SDRF) ডিআইজি ঋদ্ধিম আগরওয়াল জানিয়েছেন যে, বিদ্যুৎ প্রকল্পে কর্মরত নিখোঁজ শ্রমিকদের সঙ্গে কোনও ভাবে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না৷

    ২) পাউরি, তেহরি, রুদ্রপ্রয়াগ, হরিদ্ধার ও দেহরাদুনের মতো উত্তারখণ্ডের একাধিক জেতা ক্ষতিগ্রস্থ৷ সেখানে জারি করা হয়েছে হাই অ্যালার্ট৷ রাফটিং বন্ধ করা হয়েছে ঋষিকেশে৷ উত্তরাখণ্ড পুলিশকে উদ্ধৃত করে দৈনিক ভাস্কর জানিয়েছে যে, শ্রীনগর, ঋষিকেশ ও হরিদ্বারে জলের স্তর বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে৷

    ৩) দৈনিক ভাস্কর আরও বলেছে যে, তপোবন ব্যরেজ, শ্রীনগর ও ঋষিকেশ বাঁধেরও ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে৷

    ৪) উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী তিবেন্দ্র সিং রাওয়াত মানুষকে পুরনো বন্যার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে গুজব ছড়ানো থেকে বিরত থাকতে বলেছেন৷ তিনি মানুষকে গঙ্গার কাছে আসতে বারণ করেছেন৷ সব জেলায় সতর্কতা জারি করেছেন৷ রাওয়াত এদিন নিজের যাবতীয় কর্মসূচি বাতিল করে দিয়েছেন৷

    ৫) আকস্মিক এই বন্যার কথা ভেবে উত্তরাখণ্ড সরকার সকল জেলাশাসককে সতর্ক থাকতে বলেছেন৷ তাঁদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে গঙ্গা নদীতে যেন হাই অ্যালার্ট জারি করে ২৪ ঘণ্টা জলের স্তরের ওপর নজর রাখা হয়৷

    ৬) উদ্ধার কাজে রয়েছে ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশ (Indo Tibetan Border Police, ITBP) জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী (National Disaster Response Force, NDRF) ও রাজ্য বিপর্যয় রেসপন্স ফান্ড (State Disaster Response Fund, SDRF)৷ এয়ারলিফ্টের ব্যবস্থার জন্য ইতিমধ্যে তিনটি হেলিকপ্টার পৌঁছে গিয়েছে৷ দুটি এমআই ১৭এস (Mi-17s) ও একটি ধ্রুব (ALH Dhruv) কাজ করছে৷ প্রয়োজনে আরও হেলিকপ্টার কাজে লাগাবে ভারতীয় সেনা৷ ইতিমধ্যে বন্যা বিধ্বস্ত এলাকায় দেশের ৬০০ সেনা উদ্ধারকার্যে রয়েছেন৷

    Published by:Subhapam Saha
    First published: