রাতে চুরি করেছিল, বাক্সে কোভিড ভ্যাকসিন দেখে সকালে ফিরিয়ে দিয়ে গেল চোর !

রাতে চুরি করেছিল, বাক্সে কোভিড ভ্যাকসিন দেখে সকালে ফিরিয়ে দিয়ে গেল চোর !

রাতে চুরি করেছিল, বাক্সে কোভিড ভ্যাকসিন দেখে সকালে ফিরিয়ে দিয়ে গেল চোর !

বাক্সটিতে ভ্যাকসিন আছে দেখে তা ফেরত দিয়ে যায় চোর। এই ছোট্ট ঘটনাটি যেন অনেক কথা বলে দেয়। বর্তমান পরিস্থিতির ভয়াবহতা বুঝিয়ে দেয়।

  • Share this:

#গুরুগ্রাম: বাড়ির বাইরে সাইকেল পড়ে রয়েছে। দেখতে পেয়ে চুরি করে নিয়ে গিয়েছিল এক চোর। কিন্তু তা এতটাই জরাজীর্ণ ছিল যে, দু'দিন পর সাইকেলটি যথাস্থানে ফেরত দিয়ে যায় ওই চোর। পরে জানা যায়, আশপাশের সাইকেল দোকানে ঘুরে সাইকেলটি বিক্রি করার চেষ্টা করেছিল সে, কিন্তু তা বিক্রি হয়নি। তাই শেষমেশ সাইকেলটি ফেরত দিতে বাধ্য হয়। খানিকটা একইরকম ঘটনার সাক্ষী থাকল হরিয়ানা। তবে এখানে অনেকটা মানবিক ভূমিকায় দেখা গেল চোরকে। করোনা যে মারাত্মক ভয় ধরিয়েছে, আরও একবার সেই বিষয়টিরও প্রমাণ মিলল। হাসপাতাল থেকে মূল্যবান জিনিস ভেবে যে জিনিসটি চুরি করে নিয়ে গিয়েছিল চোর, তা আদতে ছিল কোভিডের টিকা। ফলে ভুল হয়েছে বার্তা দিয়ে তা আবার ফিরিয়ে দিয়ে যায় সে।

হরিয়ানার জিন্দ জেলার জিন্দ হাসপাতাল থেকে কোভিড টিকার ৭০০ ডোজ চুরি যায়। গতকাল সকালে হাসপাতালে এসে স্বাস্থ্যকর্মীরা দেখেন, যে লকারে ভ্যাকসিনের ডোজগুলি রাখা ছিল, তা ভেঙে দেওয়া হয়েছে। লকারের মধ্যে ভ্যাকসিনের একটিও বাক্স নেই। বোঝা যায়, বুধবার রাতেই স্টোররুমের ডিপফ্রিজ ভেঙে কেউ সেই বাক্স চুরি করেছে। উল্লেখ্য, চুরি যাওয়া বাক্সে ১৮২ টি কোভিশিল্ড ও ৪৪০ টি কোভ্যাক্সিনের ডোজ ছিল।

কিছুক্ষণ পর জিন্দ পুলিশ স্টেশন সংলগ্ন একটি চায়ের দোকানে একটি বাক্স পাওয়া যায়। বাক্সের উপরে লেখা, মাপ করবেন- আমি বুঝতে পারিনি এটা করোনার ভ্যাকসিন। আসলে বাক্সটিতে ভ্যাকসিন আছে দেখে তা ফেরত দিয়ে যায় চোর। এই ছোট্ট ঘটনাটি যেন অনেক কথা বলে দেয়। বর্তমান পরিস্থিতির ভয়াবহতা বুঝিয়ে দেয়।

দেশে যেখানে প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আমেরিকাকে পিছনে ফেলে ইতিমধ্যেই বিশ্বে দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে শীর্ষে ভারত। সেখানে টিকা নেওয়ার জন্য প্রায় সব হাসপাতালের সামনেই পড়ছে লম্বা লাইন। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে ভ্যাকসিনের পর্যাপ্ত ডোজ নেই। ফলে ফিরে আসতে হচ্ছে সকলকে। এই পরিস্থিতিতে জিন্দে ৭০০ ডোজ চুরি যাওয়ার পর রীতিমতো মাথায় হাত পড়ে কর্তৃপক্ষের। কারণ ওই ৭০০ ডোজই ছিল ওই দিনের মতো হাসপাতালের ভরসা। গোটা জেলার মানুষ সেদিন টিকা নিতে পারতেন না। তবে চোরের এই পদক্ষেপ সেই সমস্যা দূর করে দিল।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্ত ৩ লাখ ৩৬ হাজার। এই পরিস্থিতিতে বেশিরভাগ রাজ্যেই নেই অক্সিজেনের সরবরাহ বা বেডের ব্যবস্থা। দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আজ ফের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

লেটেস্ট খবর