চোখে জল দুঃখ-দুর্দশা ভুলে বৃদ্ধাশ্রমে গানের সঙ্গে জমিয়ে নাচ বৃদ্ধা মায়েদের, চোখ ছলছলে দৃশ্য

জীবনের অনেক না পাওয়ার যন্ত্রণার মাঝে কোথাও যেন কিছুটা পাওয়ার স্বস্তি

Arjun Neogi | News18 Bangla
Updated:Oct 15, 2019 11:20 AM IST
চোখে জল দুঃখ-দুর্দশা ভুলে বৃদ্ধাশ্রমে গানের সঙ্গে জমিয়ে নাচ বৃদ্ধা মায়েদের, চোখ ছলছলে দৃশ্য
Arjun Neogi | News18 Bangla
Updated:Oct 15, 2019 11:20 AM IST

#গুয়াহাটি: নচিকেতার সেই বিখ্যাত গান বৃদ্ধাশ্রম ৷ এই গান শোনেনি এমন কেউ আছেন বলে মনে হয়না ৷ যে সন্তানকে নিজের জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে মানুষ করেন বাবা-মা ৷ সময়ের সঙ্গে লড়ে স্রোতের বিপরীতে হাঁটেন তাঁরা ৷ জীবনের প্রতিটি সময় ও দিনরাত এক করে জীবন সংগ্রামে প্রতিনিয়তই কাটে ৷ সব সময়েই মা-বাবার একই লক্ষ্য থাকে তাঁদের সন্তান যেন মানুষের মত মানুষ হয় থাকে দুধেভাতে ৷

জীবনের নানা রঙের দিনগুলি এই বাবে সেজে ওঠে ৷ সন্তানকে জীবনের সব কিছু দিয়ে যখন মানুষের মত মানুষ করেন বাবা-মা তখন একটি কথাই বারেবারে মনে আসে বড় হয়ে সন্তান এই বাবা মায়েরই মুখ রাখবে তো ? প্রবল চাপ নিয়ে চলা বিনিময়ে কোনও কিছুই দাবি না করা পৃথিবীর প্রায় প্রতিটি বাবা-মায়েরই এমন স্বার্থত্যাগ ভুলে গিয়ে সেই সন্তানরাই বাবা মাকে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠিয়ে দেন সেই বাবা-মায়ের কাছে কি কোনও উত্তর থাকে ৷

বাবা সংসারের জন্মদাতা ঘমা-রক্ত এক করে সংসারকে দাঁড় করান ৷ সংসার নামক গাছকে বড় করেন ৷ নিজে রোদে পুড়ে রক্ষা করেন সংসারকে সব রকমের তাপ থেকে ৷ একদিন যখন তিনি জীবনের সঙ্গে লড়তে ক্লান্ত হবেন তখন এই গাছই যদি একটু ছায়া দেয় বদলে যাবে জীবন ৷ মা সংসারের শেকড়, শেকড় ছাড়া কোনও গাছই বাঁচেনা ৷ তবুও বয়স বাড়লে সন্তানের সংসারের বোঝা হয়ে ওঠা মাকেও যেতে হয় বৃদ্ধাশ্রমে ৷

সেখানে জীবনের বাকি দিনগুলি সম্বল হয়ে ওঠে চোখের জল ও নানান দুঃখ তারই মাঝে তাঁদেরও একটু আনন্দ করতে ইচ্ছা করে ৷ সেই বৃদ্ধাশ্রমেই বশ কিছু মায়ের নানান দুঃখের মাঝে একটু আনন্দ, নাচগান যেন জীবনকে বিভিন্ন ভাবে রঙিন করে তোলে ৷

First published: 10:16:35 AM Oct 12, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर