corona virus btn
corona virus btn
Loading

Ram Mandir| অযোধ্যার একমাত্র প্রাচীন দর্জির দোকান যাঁরা 'ভগবান রাম'-এর বস্ত্র তৈরি করেন

Ram Mandir| অযোধ্যার একমাত্র প্রাচীন দর্জির দোকান যাঁরা 'ভগবান রাম'-এর বস্ত্র তৈরি করেন

রামলালা বিগ্রহের পোশাক তৈরি করতে এখন নাওয়া-খাওয়া ভুলেছেন বাবুলাল টেলার্স-এর বর্তমান মালিক দুই ভাই শঙ্করলাল শ্রীবাস্তব ও ভগবত্‍ প্রসাদ পাহাড়ি৷ বংশের পরম্পরা বহন করে আসছেন এঁরা৷ রাম মন্দিরের বিগ্রহের পোশাক এঁরা ৪ পুরুষ ধরে বানিয়ে আসছেন৷

  • Share this:

#অযোধ্যা: অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের গ্র্যান্ড ইভেন্টের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে দেশজুড়ে তামাম ভক্তকূল৷ ৫ অগাস্ট প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন৷ দেশের বিভিন্ন মহলের তাবড় ব্যক্তিত্বদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে অনুষ্ঠানে৷ দম ফেলার সময় নেই অযোধ্যায় বহু পুরনো বাবুলাল টেলার্স-এর৷ এটিই একমাত্র টেলারিং শপ, যারা রামলালার পোশাক তৈরি করার অনুমতিপ্রাপ্ত৷ রামলালা বিগ্রহের পোশাক তৈরি করতে এখন নাওয়া-খাওয়া ভুলেছেন বাবুলাল টেলার্স-এর বর্তমান মালিক দুই ভাই শঙ্করলাল শ্রীবাস্তব ও ভগবত্‍ প্রসাদ পাহাড়ি৷ বংশের পরম্পরা বহন করে আসছেন এঁরা৷ রাম মন্দিরের বিগ্রহের পোশাক এঁরা ৪ পুরুষ ধরে বানিয়ে আসছেন৷

রামলালার পোশাক তৈরিতে ব্যস্ত দুই ভাই -- News18 রামলালার পোশাক তৈরিতে ব্যস্ত দুই ভাই -- News18

৫ অগাস্ট অযোধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসছেন বলে বড়ভাই ভগবত্‍ প্রসাদ খুবই খুশি৷ তাঁর কথায়, 'খুব পবিত্র দিনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী৷ বহু অপেক্ষার পরে আসছে সেই দিন৷ রাম মন্দিরের এই বিবাদ যখন শুরু হয়েছিল, তখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্মও হয়নি৷'

তৈরি হচ্ছে রামলালার পোশাক-- News18 তৈরি হচ্ছে রামলালার পোশাক-- News18

আট বাই ছয় ফুটের ছোট দোকান অযোধ্যা শহরের বড়ি কুটিয়া এলাকায়৷ ভগবত্‍ প্রসাদের ছোটভাই শঙ্কর লালের কথায়, 'চার পুরুষ ধরে আমাদের পরিবার ভগবান রামের পোশাক তৈরি করে আসছে৷ আমাদের তৈরি পোশাক পরানো হবে রামলালাকে৷ দূরদর্শনে সেই ছবি লাইভ সম্প্রচার করা হবে৷'

দুই ভাই জানালেন, কী ভাবে তাঁদের বাবা বাবুলাল রামজন্মভূমিতে বসে বসে কাপড় সেলাই করতেন এক সময়৷ তখন রাম জন্মভূমিতে বসেই রামলালার পোশাক বুনতেন তিনি৷ বিগ্রহের পোশাক তৈরির জন্য ঠিক কতটা কাপড় লাগে, কতটা মাপ, একমাত্র এই বাবুলাল টেলার্স-ই জানে৷ ১৯৯৪ সালে বাবুলালের মৃত্যুর পরে তাঁর ছেলেরা হাল ধরেন টেলার শপের৷

ভগবত্‍-এর কথায়, 'আমরা শুধু ঠাকুরজি ও সাধুদের জন্য পোশাক বানাই৷ সবই ঠাকুরের কৃপা৷ অযোধ্যায় কেউ ভুখা থাকে না৷ এখানে মানুষের ঘুম ভাঙে খালি পেটে, কিন্তু শুতে যায় ভরা পেটে৷'

দু হাত জড়ো করে ঈশ্বর স্মরণ করে ফের কাজে মন দিলেন দুই ভাই৷

কাজি ফরাজ আহমেদ

Published by: Arindam Gupta
First published: July 28, 2020, 12:42 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर