১৪ জনের খুনি হাসনয়ন বোনের উপর চালাতেন যৌন নির্যাতন

১৪ জনের খুনি হাসনয়ন বোনের উপর চালাতেন যৌন নির্যাতন

মহারাষ্ট্রের থানেতে নিজের পরিবারের ১৪ জনকে খুন করে আত্মঘাতী হাসনয়ন ওয়াড়েকর সম্বন্ধে চাঞ্চল্যকর একটি তথ্য সামনে আনলেন তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিকরা ৷ নিজের মানসিক প্রতিবন্ধী বোনের উপর নিয়মিত যৌন নির্যাতন চালাতেন হাসনয়ন ৷ এই চাঞ্চল্যকর তথ্য পুলিশকে জানিয়েছেন ওয়াড়েকর পরিবারের একমাত্র জীবিত সদস্য, হাসনয়নের বোন সুবিয়া বারমার ৷

মহারাষ্ট্রের থানেতে নিজের পরিবারের ১৪ জনকে খুন করে আত্মঘাতী হাসনয়ন ওয়াড়েকর সম্বন্ধে চাঞ্চল্যকর একটি তথ্য সামনে আনলেন তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিকরা ৷ নিজের মানসিক প্রতিবন্ধী বোনের উপর নিয়মিত যৌন নির্যাতন চালাতেন হাসনয়ন ৷ এই চাঞ্চল্যকর তথ্য পুলিশকে জানিয়েছেন ওয়াড়েকর পরিবারের একমাত্র জীবিত সদস্য, হাসনয়নের বোন সুবিয়া বারমার ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #থানে: মহারাষ্ট্রের থানেতে নিজের পরিবারের ১৪ জনকে খুন করে আত্মঘাতী হাসনয়ন ওয়াড়েকর সম্বন্ধে চাঞ্চল্যকর একটি তথ্য সামনে আনলেন তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিকরা ৷ নিজের মানসিক প্রতিবন্ধী বোনের উপর নিয়মিত যৌন নির্যাতন চালাতেন হাসনয়ন ৷ এই চাঞ্চল্যকর তথ্য পুলিশকে জানিয়েছেন ওয়াড়েকর পরিবারের একমাত্র জীবিত সদস্য, হাসনয়নের বোন সুবিয়া বারমার ৷

    কাসরওয়াড়ির বাসিন্দা বছর ৩৫-এর হাসনয়ন ওয়াড়েকর গত ২৮ ফেব্রুয়ারি নিজের বাবা, মা, স্ত্রী, সন্তান-সহ পরিবারের ১৪ জনকে নৃশংসভাবে খুন করে আত্মঘাতী হন ৷ হাসনয়নের আক্রমণ থেকে কোনওক্রমে নিজেকে বাঁচাতে সক্ষম হন সুবিয়া ৷ হত্যাকাণ্ডের একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী সুবিয়া সেদিনই পুলিশকে বয়ানে জানিয়েছিলেন, হাসনয়নই তাঁর পরিবারের সবাইকে গলার নলি কেটে খুন করেছে ৷ সুবিয়ার বয়ানে স্পষ্ট হয়েছে হত্যাকাণ্ডের মোটিভ ৷ পুলিশকে সুবিয়া জানিয়েছেন, হাসনয়ন তাদের আরেক বোন বাতুল ওয়াড়েকরের উপর নিয়মিত শারীরিক নির্যাতন চালাত ৷ মাত্রা ছাড়া অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে মানসিক প্রতিবন্ধী বাতুল চলতি বছরের জানুয়ারিতে তাঁর বাকি বোনদের ঘটনাটি জানান ৷ বোনেরা ঘটনার প্রতিবাদ জানালে হাসনয়ন মেজাজ হারিয়ে সবাইকে খুন করার সিদ্ধান্ত নেয় বলে মনে করছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা ৷

    জয়েন্ট কমিশনার আশুতোষ দামরে রবিবার সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, হাসনয়ন গত দু’বছর ধরে বেকার ছিলেন ৷ মাঝে মাঝেই আত্মীয়-বন্ধুদের থেকে ধার নিয়ে শেয়ারে টাকা খাটানোই ছিল তাঁর নেশা ৷ এইভাবে আত্মীয়দের কাছ থেকে প্রায় ৬৭ লাখ টাকা ধার করেছিলেন তিনি ৷ তদন্তে উঠে এসেছে, কয়েকমাস আগে মাঝিওয়াডা এলাকায় একটি ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন হাসনয়ন ৷ তবে কী কারণে তা জানা যায়নি ৷ হাসনয়নের বাড়ি থেকে মানসিক রোগের বেশ কিছু ওষুধ পাওয়া গিয়েছে ৷ সম্ভবত ‘স্প্লিট পার্সোনাল ডিসঅর্ডার’-এর সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি ৷

    First published: