• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • লকডাউনে আটকে পড়া ছেলেকে আনতে ১৪০০ কিমি বাইকে পাড়ি মায়ের

লকডাউনে আটকে পড়া ছেলেকে আনতে ১৪০০ কিমি বাইকে পাড়ি মায়ের

Twitter

Twitter

‘‌ছেলে হঠাৎই আটকে পড়েছিল নেল্লোরে। এক বন্ধুকে ছাড়তে গিয়েছিল। ওখানে ক’‌দিন থাকার কথা ছিল। তার মাঝে হঠাৎ লকডাউন ঘোষণা করা হয়।

  • Share this:

    #‌তেলঙ্গানা:‌ স্বামী ১৫ বছর আগে প্রয়াত হয়েছেন। আছে দুই ছেলে। বড় ছেলে বাড়িতেই ছিল। আটকে পড়েছিল ছোট ছেলে। বাড়ি থেকে প্রায় ১৪০০ কিমি দূরে। তাই অসাধ্য সাধন করতে লড়াইয়ে নামলেন ‌মা, রাজিয়া বেগম। পেশায় শিক্ষিকা এই ৪৮ বছরের মহিলা চললেন হায়দরাবাদ থেকে নেল্লোর।

    প্রথমে ভেবেছিলেন বড় ছেলেক বলবেন ভাইকে নিয়ে আসতে। কিন্তু পরে ভেবে দেখলেন তাতে মুশকিল হবে। বড় ছেলের রাস্তায় গাড়ি নিয়ে দেখে পুলিশ ভাবতে পারে, ছেলে বুঝি ঘুরতে বেরিয়েছে। তাই পুলিশের ঝামেলা এড়াতে নিজেই যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

    রাজিয়া জানিয়েছেন, ‘‌ছেলে হঠাৎই আটকে পড়েছিল নেল্লোরে। এক বন্ধুকে ছাড়তে গিয়েছিল। ওখানে ক’‌দিন থাকার কথা ছিল। তার মাঝে হঠাৎ লকডাউন ঘোষণা করা হয়। ফিরতে পারেনি সে। কিন্তু যেভাবে আতঙ্ক বাড়তে শুরু করেছে, তাতে ছেলে অস্থির হয়ে পড়েছিল বাড়িতে ফেরার জন্য। আমারও টেনশন হচ্ছিল খুব। তাই শেষ পর্যন্ত ঠিক করলাম আমিই যাব। প্রথমে ভেবেছিলাম গাড়িতে যাবো। তারপর বাইকেই যাওয়া স্থির করলাম।’‌

    এই দীর্ঘপথ পাড়ি দিতে নিজের সঙ্গে রুটি বেঁধে নিয়েছিলেন রাজিয়া। এতটা পথ যাত্র তো সহজ নয়। সোমবার সকালে পুলিশের অনুমতি নিয়ে হায়দরাবাদ তেকে নেল্লোরের উদ্দেশ্যে পাড়ি দেন তিনি। বুধবার ছেলেকে নিয়ে ফিরে আসেন। পথে বেশ কয়েকবার গাড়িতে তেল ভরার জন্য তাঁকে দাঁড়াতে হয়েছে। মাঝে জল তেষ্টা পেয়েছে। তখনও দাঁড়িয়েছেন, খেয়েছেন। কিন্তু ছেলে নিজামুদ্দিনকে নিয়ে তাঁর বাড়ির ফেরার ঘটনাটা যেন রূপকথার মতো।

    ছেলে বড় হয়ে ডাক্তার হতে চায়। মন দিয়ে পড়াশোনা করছে এখন। আর একার সংসারে রাজিয়াই এক আগলে রাখছেন ছেলেদের। তিনদিন ধরে জনশূন্য রাস্তায় এই অবাক যাত্রা তাই উদাহরণ মাতৃ স্নেহেরও।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published: