• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • দেশ
  • »
  • TC AOH UNEASY ON GOVERNMENTS VACCINE PURCHASE PLAN THAT DEFOCUSES PRIVATE HOSPITALS ACCESS TO PROCUREMENT SS

সরকার ভ্যাকসিন জোগাড়ে ব্যস্ত, চূড়ান্ত অবহেলায় পড়েছেন হাসপাতালে ভর্তি করোনা-রোগীরা; বলছে হসপিটাল অ্যাসোসিয়েশন

Representational Image

ভ্যাকসিন কেনার জটিলতার মধ্যে রোগীদের সঠিক যত্ন নিতে পারছে না হাসপাতালগুলি।

  • Share this:

#মুম্বই: এক দিকে করোনার মারণ কামড়, অন্য দিকে ভ্যাকসিন নিয়ে উদাসীনতা! মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা কাকে বলে, এ যেনও তারই প্রমাণ দিচ্ছে। আর এর নেপথ্যে রয়েছে কেন্দ্রীয় টিকা-নীতি। করোনার টিকা সংগ্রহের ক্ষেত্রে বেসরকারি হাসপাতালগুলির জন্য নয়া নির্দেশিকা জারি করেছিল কেন্দ্র সরকার। কিন্তু সেই নীতি মাফিক চলতে গিয়ে একাধিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে।

এবার বেসরকারি হাসপাতালের জন্য সরকার গৃহীত বর্তমান ভ্যাকসিন সংগ্রহ নীতি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করল অ্যাসোসিয়েশন অফ হসপিটালসের (AOH) ম্যানেজিং কমিটি। AOH উল্লেখ করেছে, কেন্দ্রীয় সরকারের বর্তমান ভ্যাকসিন ক্রয়ের পরিকল্পনার ফলে প্রতিটি ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থার সঙ্গে স্বতন্ত্র ভাবে বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে আলোচনা করতে হচ্ছে। এমনকি ভ্যাকসিন কেনার জটিলতার মধ্যে রোগীদের সঠিক যত্ন নিতে পারছে না হাসপাতালগুলি।

অ্যাসোসিয়েশন অফ হসপিটালস ১৯৮৬ সালে একটি সমিতি হিসাবে গঠিত হয়। মুম্বই ও পুণেতে এর আওতায় ৫৩টি আস্থাভাজন হাসপাতাল রয়েছে। হাসপাতাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এবং পিডি হিন্দুজা হাসপাতালের সিইও গৌতম খান্না জানিয়েছিলেন যে, প্রতিটি হাসপাতালের পার্শ্ববর্তী বাসিন্দাদের আশা এই হাসপাতালগুলিই ভ্যাকসিন প্রদানের প্রাথমিক কেন্দ্রবিন্দু হবে। কিন্তু তা হচ্ছে না।

তিনি বলেন, "ভ্যাকসিন ক্রয়ের নীতিমালায় পরিবর্তন, হাসপাতাল-সহ সকল সংস্থাকে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারীদের থেকে সরাসরি টিকা কিনতে বলার ফলে ভ্যাকসিন সরবরাহ প্রভাবিত হচ্ছে এবং এই সিদ্ধান্ত কয়েক হাজার রোগীকে ঝুঁকিতে ফেলছে।"

প্রথমেই খান্না উল্লেখ করেন যে, ছোট বা মাঝারি আকারের কোনও হাসপাতালের পক্ষে তাদের রোগীদের জন্য প্রস্তুতকারী সংস্থার সঙ্গে ভ্যাকসিনের পরিমাণ নিয়ে দরদাম করা থেকে শুরু করে ভ্যাকসিন বিতরণ প্রায় অসম্ভব।

তিনি আরও বলেন, "করোনার বিরুদ্ধে যদি লড়াই করতে হয় তবে সমস্ত সংস্থা বিশেষত হাসপাতালগুলির মতো স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলিকে অবশ্যই রাজ্য সরকারগুলির মাধ্যমে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে হবে, যেমনটি আগে করা হয়েছিল।"

খান্না আরও বলেন, “সরকার যদি এর জন্য নির্দিষ্ট মূল্য নির্ধারণ করে তবে আমরাও তাতে রাজি, কারণ এই টিকাটিকে আমরা মুনাফা অর্জনের জন্য নয়, বরং জাতীয় স্বাস্থ্য জরুরি পরিষেবা হিসাবে বিবেচনা করি। যদি বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে ভ্যাকসিন সরবরাহের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার না দেওয়া হয়, তবে আমি আশঙ্কা করি কোভিড সমস্যা আরও বহুগুণে বাড়বে। বর্তমান দেশে যে ভাবে টিকার অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে, সেই দিকটি বিবেচনা করে সরকারেরও উচিত বিশ্ব জুড়ে হাসপাতাল থেকে ভ্যাকসিন আমদানির অনুমতি দেওয়া।’’

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: