• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • TALIBAN CLEARS STAND ON KASHMIR CLAIMING IT AS BILATERAL AND INTERNAL ISSUE DMG

Taliban Clears Stand on Kashmir: কাশ্মীর অভ্যন্তরীণ এবং দ্বিপাক্ষিক বিষয়, ভারতের চিন্তা কমিয়ে জানালো তালিবানরা

আফগানিস্তানে তালিবান শাসন শুরু হতেই কাশ্মীরে নিরাপত্তা বৃদ্ধি৷ প্রতীকী ছবি

আফগানিস্তানে তালিবান সরকার প্রতিষ্ঠা হওয়া এখন সময়ের অপেক্ষা৷ আফগানিস্তানের এই পরিস্থিতি ভারতের উদ্বেগের কারণ হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে (Taliban Clears Stand on Kashmir)৷

  • Share this:

    #দিল্লি: কাশ্মীর অভ্যন্তরীণ এবং দ্বিপাক্ষিক বিষয়৷ কাশ্মীর নিয়ে তারা মাথা ঘামাতেও বিশেষ আগ্রহী নয়৷ সংবাদসংস্থা এএনআই-এর খবর অনুযায়ী, আফগানিস্তানে ক্ষমতা দখলের পর কাশ্মীর নিয়ে নিজেদের অবস্থান এভাবেই স্পষ্ট করে দিল তালিবানরা৷ ফলে আফগানিস্তানে তালিবানরা ক্ষমতা দখল করায় কাশ্মীরেও তার প্রভাব পড়তে পারে বলে যে আশঙ্কা ছিল, তা আপাতত অনেকটাই নিরসন হলেও বলে মনে করা হচ্ছে৷ ভারত সরকারের শীর্ষ স্তরও এখনও পর্যন্ত মনে করছে, কাশ্মীরে চেষ্টা করলেও খুব বেশি প্রভাব বিস্তার করতে পারবে না তালিবানরা৷ যদিও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবেই কাশ্মীরে নিরাপত্তা আরও জোরদার করছে ভারত৷

    গোটা বিষয়টি সম্পর্কে ওয়াকিবহল এক সরকারি সূত্রকে উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা এএনআই-কে জানিয়েছেন, 'কাশ্মীরে নজরদারি এবং নিরাপত্তা দুই-ই বাড়ানো হবে৷ কিন্তু এই মুহূর্তে আফগানিস্তানে পাকিস্তানের মদতপুষ্ট যে গোষ্ঠীগুলি সক্রিয়, তাদের কাশ্মীরে বিশেষ কোনও প্রভাব বিস্তােরর ক্ষমতা নেই৷'

    রবিবারই কাবুলের দখল নিয়ে নিয়েছে তালিবানরা৷ আফগানিস্তানে তালিবান সরকার প্রতিষ্ঠা হওয়া এখন সময়ের অপেক্ষা৷ আফগানিস্তানের এই পরিস্থিতি ভারতের উদ্বেগের কারণ হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে৷ কারণ পাকিস্তান ভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই- তৈবা, লস্কর-ই-ঝাংভি আফগানিস্তানে কিছুটা হলেও সক্রিয়৷ সংবাদসংস্থা এএনআই-এর খবর অনুযায়ী, এই জঙ্গি সংগঠনগুলি তালিবানদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাবুলের একাংশ এবং বেশ কয়েকটি গ্রামাঞ্চলে চেকপোস্টও তৈরি করে ফেলেছে৷

    ভারত সহ বিশ্বের অনেক দেশেরই আশঙ্কা, তালিবান শাসনে আফগানিস্তান ফের একবার সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠবে৷ ভারত সরকারের ওই শীর্ষ আধিকারিক সংবাদসংস্থাকে নিজের আশঙ্কার কথা প্রকাশ করে জানিয়েছেন, 'আমেরিকা যে সমস্ত অস্ত্র দিয়েছিল এবং তাছাড়াও আফগান সেনার ৩ লক্ষ সদস্যের সমস্ত অস্ত্রশস্ত্র এখন তালিবানদের হাতে চলে এসেছে৷' তবে পরিস্থিতি সম্পর্কে যাঁরা অবগত, তাঁদের মতে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই তালিবানদের ভারতের বিরুদ্ধে উস্কানোর চেষ্টা করলেও তা খুব একটা ফলপ্রসূ হবে না৷ কারণ এই মুহূর্তে ক্ষমতা দখল করে যথেষ্ট শক্তিশালী জায়গায় রয়েছে তালিবানরা৷ ফলে তালিবানরা দুর্বল থাকার সময় আইএসআই যে প্রভাব খাটাতে পারত, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে তা আর সম্ভব হবে না৷ যদিও সরকারি ওই শীর্ষ আধিকারিক স্বীকার করে নিয়েছেন, কোনওভাবেই সতর্কতায় ঢিলে দেওয়া উচিত হবে না ভারতের৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: